বাংলা নিউজ > ভাগ্যলিপি > কর্পূরের ব্যবহারে ধন-ধান্যে ভরপুর থাকবে সংসার
ভাগ্য মজবুত করার জন্য কর্পূরের সঙ্গে ১২টি সাবুদানা জ্বালান।
ভাগ্য মজবুত করার জন্য কর্পূরের সঙ্গে ১২টি সাবুদানা জ্বালান।

কর্পূরের ব্যবহারে ধন-ধান্যে ভরপুর থাকবে সংসার

  • প্রাচীন কাল থেকে পুজোয় কর্পূরের ব্যবহার হয়ে আসছে। জ্যোতিষ অনুযায়ী বাড়িতে কর্পূর জ্বালালে পরিবেশ শুদ্ধ হয়।

প্রাচীন কাল থেকে পুজোয় কর্পূরের ব্যবহার হয়ে আসছে। জ্যোতিষ অনুযায়ী বাড়িতে কর্পূর জ্বালালে পরিবেশ শুদ্ধ হয়। এখানে জানুন কর্পূরের ব্যবহারের মাধ্যমে সংসার কী ভাবে ধন-ধান্যে সমৃদ্ধ করতে পারে।

  • অনেকেই মনে করেন যে, তাঁদের দেবদোষ বা পিতৃদোষ রয়েছে। এ ক্ষেত্রে সকাল, সন্ধ্যা ও রাতে ঘিয়ে ভেজানো কর্পূর জ্বালালে ও শৌচালয়ে ২টি কর্পূর রাখলে এই দোষ থেকে মুক্তি পাওয়া যেতে পারে।
  • শনি, রাহু-কেতুর জন্য দুর্ঘটনা ঘটে। শুধু তাই নয়, আমাদের রাগও দুর্ঘটনার কারণ হয়ে দাঁড়ায়। রাতে ঘুমানোর আগে কর্পূর জ্বালালে লাভ হতে পারে। এ ছাড়াও রাতে হনুমান চালিসা পাঠ করার পরও কর্পূর জ্বালাতে পারেন। এর ফলেও আকস্মিক ঘটনা থেকে মুক্তি পাওয়া যায়।
  • আবার বাস্তুশাস্ত্র অনুযায়ী, চেষ্টা সত্ত্বেও কোনও কাজে সফল না-হলে, রুপোর বাটিতে নিয়মিত লবঙ্গ ও কর্পূর জ্বালান। এর ফলে আটকে থাকা কাজ পুরো হতে পারে। পাশাপাশি অর্থাভাবও হয় না।
  • অনেক সময় বাস্তুদোষের কারণে গৃহে শান্তি থাকে না। আবার কাজেও ক্ষতি হয়। বাস্তুদোষ দূর করার জন্য বাড়ি ও দোকানে কর্পূর রাখা যেতে পারে। 
  • বাড়িতে শুভ শক্তির স্থায়িত্বের জন্য সকাল-সন্ধ্যা ঘিয়ে ভেজানো কর্পূর জ্বালানো উচিত। এমন করলে বাড়িতে অশুভ শক্তির বাস হয় না। 
  • ভাগ্য মজবুত করার জন্য কর্পূরের সঙ্গে ১২টি সাবুদানা জ্বালান। বৃহস্পতিবার এই উপায় করেল আরও শুভ ফল পাওয়া যায়। 
  • অর্থাভাব দূর করার জন্য রাতে রান্নাঘর পরিষ্কার করে রুপোর বাটিতে লবঙ্গ ও কর্পূর জ্বালানো উচিত।

বন্ধ করুন