বাংলা নিউজ > ভাগ্যলিপি > পিতৃ অমাবস্যার দিনে এই কাজগুলি করে নিন, সারা বছর থাকবে সুখ-সমৃদ্ধি
মহালয়ার দিনে সকালে উঠে স্নানের পর সূর্যকে লাল ফুল ও লাল চন্দন মিশিয়ে জল অর্পণ করুন।
মহালয়ার দিনে সকালে উঠে স্নানের পর সূর্যকে লাল ফুল ও লাল চন্দন মিশিয়ে জল অর্পণ করুন।

পিতৃ অমাবস্যার দিনে এই কাজগুলি করে নিন, সারা বছর থাকবে সুখ-সমৃদ্ধি

  • মনে করা হয় এদিন দান-পুণ্য ছাড়াও পরোপকারের কাজ করলে পূর্বপুরুষদের আশীর্বাদ লাভ করা যায়।

পিতৃপক্ষের সমাপ্তি আজ। সর্বপিকৃ অমাবস্যা, মহালয়া অমাবস্যা বা বির্জনী অমাবস্যার দিনটিকে পিতৃপক্ষের শেষ দিন হিসেবে গণ্য করা হয়। এদিনে পিতৃলোকে গমন করেন পূর্বপুরুষরা। মনে করা হয় এদিন দান-পুণ্য ছাড়াও পরোপকারের কাজ করলে পূর্বপুরুষদের আশীর্বাদ লাভ করা যায়। ব্যক্তির জীবনের সমস্ত সমস্যা দূর হয় এবং জীবনে সৌভাগ্য ও সমৃদ্ধির আগমন ঘটে। এদিন ৬টি কাজ রয়েছে, যা পালন করলে পরিবারে আনন্দ ও শান্তি বিরাজ করতে পারবে।

১. মহালয়ার দিনে সকালে উঠে স্নানের পর সূর্যকে লাল ফুল ও লাল চন্দন মিশিয়ে জল অর্পণ করুন। তার পর অন্ন-জল গ্রহণ না-করে আটার গুলি তৈরি করুন এবং মাছকে খাওয়ান। এর প্রভাবে জীবন থেকে সমস্থা দূর হয় এবং সুখ-সমৃদ্ধির আশীর্বাদ লাভ করা যায়।

২. পিতৃ অমাবস্যার দিনে কালো পিঁপড়েকে চিনি মেশানো আটা খাওয়ালে বিশেষ লাভ পাওয়া যায়। মনে করা হয়, এমন করলে পূর্বপুরুষরা আমাদের সমস্ত ভুল ক্ষমা করে দেন। পাপস্খলন হয় এর ফলে এবং পুণ্য লাভ করা যায়। এর প্রভাবে মনোস্কামনাপূর্ণ হয় বলেও মনে করা হয়।

৩. পূর্বপুরুষদের উদ্দেশে মিষ্টি বস্তু দান করলে তাঁদের আশীর্বাদ লাভ করা যায়। মহালয়ার দিনে মিষ্টি ভাত তৈরি করে মন্দিরে নিয়ে যান এবং সেখানে উপস্থিত দরিদ্র ব্যক্তিদের তা খাওয়ান। এর ফলে পূর্বপুরুষরা প্রসন্ন হন এবং সব সময় সুখী থাকার আশীর্বাদ দেন।

৪. এ দিন ব্রাহ্মণদের ভোজন করানো অত্যন্ত পুণ্যদায়ক মনে করা হয়। এদিন অন্তত ৫ জন ব্রাহ্মণকে বাড়িতে ডেকে ভোজন করান। ৫ জন ব্রাহ্মণকে ডাকা সম্ভভ না-হলে অন্তত এক জন ব্রাহ্মণকে ডাকুন। ভোজন করানোর পর দক্ষিণা দিয়ে বিদায় করুন তাঁদের। মনে করা হয় পিতৃপুরুষরা এই ভোজন লাভ করেন।

৫. পিতৃ অমাবস্যার দিনে বাড়িতে একটি বড় লেবু নিয়ে যান। সূর্যাস্তের সময় সন্ধেবেলা এই লেবুকে নিজের ওপর দিয়ে ৪ বার ঘুরিয়ে ৪ টুকড়োয় কেটে চৌমাথা রাস্তায় ফেলে আসুন। পিতৃ অমাবস্যার দিন এই কাজ করলে কোনও কাজে আগত বাধা ও কুনজর দূর হয়।

৬. পিতৃ অমাবস্যার দিনে কালসর্প দোষ দূর করার উপায় করতে পারেন। এদিন রুপোর নাগ ও নাগিনের পুজো করুন। মাথায় ছুইয়ে জলে প্রবাহিত করে দিন। মনে করা হয় এই অমাবস্যা তিথিতে এই উপায় করলে কোষ্ঠিতে উপস্থিত কালসর্প দোষ দূর হয়।

বন্ধ করুন