বাড়ি > ভাগ্যলিপি > রাত পেরোলেই বিশ্বকর্মা পুজো, জানুন দেব-কারিগরের জন্ম-রহস্য ও কীর্তির কথা
পৌরাণিক যুগের অস্ত্র-শস্ত্র বিশ্বকর্মা দ্বারাই নির্মিত।
পৌরাণিক যুগের অস্ত্র-শস্ত্র বিশ্বকর্মা দ্বারাই নির্মিত।

রাত পেরোলেই বিশ্বকর্মা পুজো, জানুন দেব-কারিগরের জন্ম-রহস্য ও কীর্তির কথা

  • বিশ্বকর্মাই স্বর্ণ দিয়ে লঙ্কামহল তৈরি করেন। এ ছাড়াও পাণ্ডবদের জন্য ইন্দ্রপ্রস্থ নগরের নির্মাণ করেছিলেন। কৌরবদের হস্তিনাপুর ও কৃষ্ণের দ্বারকাও তাঁরই কীর্তি।

হিন্দু পঞ্জিকা মতে, প্রতিবছর আশ্বিন মাসের কৃষ্ণপক্ষের চতুর্দশী তিথিতে বিশ্বকর্মা পুজো হয়। ধর্মীয় ধ্যান-ধারণা অনুযায়ী এ দিনই বিশ্বকর্মার জন্ম হয়েছিল। মনে করা হয়, দেবতা ও রাক্ষসদের মধ্যে সমুদ্রমন্থনের সময় তাঁর উৎপত্তি হয়। পৌরাণিক যুগের অস্ত্র-শস্ত্র বিশ্বকর্মা দ্বারাই নির্মিত। বজ্রের নির্মাণ তিনিই করেছিলেন।

এমনকি বিশ্বকর্মাই স্বর্ণ দিয়ে লঙ্কামহল তৈরি করেন। এ ছাড়াও পাণ্ডবদের জন্য ইন্দ্রপ্রস্থ নগরের নির্মাণ করেছিলেন। কৌরবদের হস্তিনাপুর ও কৃষ্ণের দ্বারকাও তাঁরই কীর্তি। এদিন বিশ্বকর্মার পুজো করলে শুভ ফল লাভ করা যায়, ব্যবসায়ে বৃদ্ধি হয়।

বিশ্বকর্মা পুজোয় যন্ত্রপাতি ও কলকব্জার পুজো হয়। তাই এ সময় ভুলেও এগুলির অপমান করা উচিত নয়, এ সবই পরিষ্কার-পরিচ্ছন্ন করে রাখা উচিত। আবার পুরনো কোনও মেশিন এদিন ফেলে দিতেও নেই। 

পুজোর দিন এই জিনিসগুলিকে বিশ্রাম দেওয়া উচিত। নিজে এগুলি ব্যবহার করবেন না, এমনকি কাউকে করতে দেওয়াও উচিত নয়। সমস্ত কারখানায় অবশ্যই বিশ্বকর্মা পুজো করা উচিত। ব্যবসায়ে বৃদ্ধির জন্য পুজোর দিন দরিদ্র ও ব্রাহ্মণদের দান করা উচিত।

বন্ধ করুন