বাংলা নিউজ > ভাগ্যলিপি > ভাইকে কড়ে আঙুল দিয়েই কেন দেওয়া হয় ফোঁটা? জানুন বিস্তারে
শাস্ত্র মতে ব্যোম বা কড়ে আঙুল মহাশূন্যের প্রতীক, আবার নারী প্রকৃতি স্বরূপ।
শাস্ত্র মতে ব্যোম বা কড়ে আঙুল মহাশূন্যের প্রতীক, আবার নারী প্রকৃতি স্বরূপ।

ভাইকে কড়ে আঙুল দিয়েই কেন দেওয়া হয় ফোঁটা? জানুন বিস্তারে

বহুল প্রচলিত ছড়া কেটে, বাঁ হাতের কনিষ্ঠা বা হাতের কড়ে আঙুল দিয়ে ভাইয়ের কপালে চন্দনের ফোঁটা দেন।

আগামিকাল (৬ নভেম্বর) ভাইফোঁটা। প্রতি বছর কার্তিক মাসের শুক্লপক্ষের দ্বিতীয়া তিথিতে এই উৎসব পালিত হয়, সেই অনুযায়ী ৬ নভেম্বর পালিত হবে ভাইফোঁটা বা ভ্রাতৃ দ্বিতীয়া। 

ভাই ফোঁটার দিনে দিদি বা বোনেরা উপবাস থেকে ভাইয়ের কপালে ফোঁটা দিয়ে থাকেন। দূর্বা, আতপ চাল দিয়ে বরণ করেন ভাইকে। তার পর বহুল প্রচলিত ছড়া কেটে, বাঁ হাতের কনিষ্ঠা বা হাতের কড়ে আঙুল দিয়ে ভাইয়ের কপালে চন্দনের ফোঁটা দেন। তবে কেন কড়ে আঙুল দিয়েই ভাইকে ফোঁটা দেওয়া হয়, তা কী জানেন? সনাতন ধর্মে এর ব্যাখ্যা পাওয়া যায়।

সনাতন ধর্ম অনুযায়ী, আমাদের হাতের পাঁচটি আঙুল পঞ্চ ইন্দ্রিয়ের প্রতীক। এই পঞ্চ ইন্দ্রিয় হল ক্ষিতি, অপ, তেজ, মরুৎ, ব্যোম। কড়ে আঙুল হল ব্যোম। শাস্ত্র মতে ব্যোম বা কড়ে আঙুল মহাশূন্যের প্রতীক, আবার নারী প্রকৃতি স্বরূপ। অন্য দিকে ভাইবোনের ভালোবাসা আকাশের মতো উদার, অসমী ও অনন্ত। তাই উদার ভালোবাসার প্রতীক হিসেবে কড়ে আঙুলকেই পবিত্র মনে করা হয়। এ কারণে বাঁ হাতের কড়ে আঙুল দিয়েই কপালে তিনবার ও দুই কানের লতিতে দুটো টিকা দেওয়া হয়। শেষে কণ্ঠনালিতে টিকা দেওয়া হয়। এই পদ্ধতিতে টিকা দিয়ে ভাইয়ের মঙ্গল ও দীর্ঘায়ু কামনা করেন বোনেরা।

বন্ধ করুন