বাড়ি > ভাগ্যলিপি > রুদ্রাক্ষ ব্যবহারে মেলে শুভ ফল, জানুন ১৪টি প্রজাতির গুণাবলী
নির্দিষ্ট মন্ত্র এবং দেবতা অনুযায়ী রুদ্রাক্ষ ধারণ করলে বিশেষ লাভ হয়।
নির্দিষ্ট মন্ত্র এবং দেবতা অনুযায়ী রুদ্রাক্ষ ধারণ করলে বিশেষ লাভ হয়।

রুদ্রাক্ষ ব্যবহারে মেলে শুভ ফল, জানুন ১৪টি প্রজাতির গুণাবলী

  • মোট ১৪ রকমের রুদ্রাক্ষ প্রজাতি পাওয়া যায় এবং প্রত্যেকটিরই বিশেষত্ব পৃথক পৃথক।

হিন্দু শাস্ত্রে রুদ্রাক্ষের উপরে বিশেষ গুরুত্ব আরোপ করা হয়েছে। পৌরাণিক উপাখ্যান অনুযায়ী, দীর্ঘ তপস্যার পরে শিব দৃষ্টি মেললে তাঁর চোখ থেকে অশ্রু গড়িয়ে পড়ে। যেখানে যেখানে সেই অশ্রুবিন্দু ঝরে পড়ে, সেখানে সেখানে জন্ম নেয় রুদ্রাক্ষ বৃক্ষ। বলা হয়, শ্রাবণ মাসে রুদ্রাক্ষ ধারণ করা শুভ।

অনেকেই রুদ্রাক্ষ ধারণ করেন। মোট ১৪ রকমের রুদ্রাক্ষ প্রজাতি পাওয়া যায় এবং প্রত্যেকটিরই বিশেষত্ব পৃথক পৃথক। নির্দিষ্ট মন্ত্র এবং দেবতা অনুযায়ী সেই রুদ্রাক্ষ ধারণ করলে বিশেষ লাভ হয়।

জানুন এই চৌদ্দ ধরনের রুদ্রাক্ষ কোন দেবতার প্রতীক এবং কোন মন্ত্রে এটি ধারণ করবেন--

একমুখী রুদ্রাক্ষ- এই রুদ্রাক্ষ শিবের অত্যন্ত প্রিয়। যে ব্যক্তির ধন-সম্পদ এবং ভৌতিক বস্তুর আকাঙ্ক্ষা থাকে তিনি এই রুদ্রাক্ষ ধারণ করতে পারেন। ওম হ্রীং নম: মন্ত্র জপ করে এই রুদ্রাক্ষ ধারণ করতে হয়।

দ্বিমুখী রুদ্রাক্ষ- একে অর্ধনারীশ্বরের রুদ্রাক্ষ বলা হয় এবং এটি সমস্ত ইচ্ছে পূরণ করে। একে ধারণের পূর্বে ওম নম: মন্ত্রের জপ করা উচিত।

৩ মুখী রুদ্রাক্ষ- একে অগ্নিদেবের রুদ্রাক্ষ বলা হয়। এটি ধারণ করলে ব্যক্তির সমস্ত ইচ্ছে শীঘ্র পুরো হয়। ওম ক্লীং নম: মন্ত্র জপ করে একে ধারণ করা উচিত।

৪ মুখী রুদ্রাক্ষ- সাক্ষাৎ ব্রহ্মার রুদ্রাক্ষ এটি। যা ধারণ করলে, ধর্ম, অর্থ, কাম, মোক্ষ লাভ হয়। ওম হ্রীং নম: মন্ত্র জপ করে একে ধারণ করতে হয়।

৫ মুখী রুদ্রাক্ষ- এটি কালাগ্নি দেবতার রুদ্রাক্ষ। একে পরলে সমস্ত সমস্যার সমাধান হয়। একে ধারণের পূর্বে ওম হ্রীং নম: মন্ত্র জপ করবেন।

৬ মুখী রুদ্রাক্ষ- এটি কার্তিকের রুদ্রাক্ষ। এটি পরলে ব্রহ্মহত্যার পাপ থেকে মুক্তি পাওয়া যায়। পরার সময় ওম হ্রীং হুম নম: মন্ত্র জপ করবেন।

৭ মুখী রুদ্রাক্ষ- একে সপ্তর্ষি সপ্তমাতৃকায়েং রুদ্রাক্ষ বলা হয়। যে ব্যক্তির অত্যধিক আর্থিক ক্ষতি হয়েছে এবং তা কাটিয়ে ওঠার কোনও উপায় তাঁর হাতে নেই তাঁদের রুদ্রাক্ষ পরা উচিত। ওম হুম নম: মন্ত্র জপ করে এই রুদ্রাক্ষ ধারণ করা উচিত।

৮ মুখী রুদ্রাক্ষ- ওম হুম নম: মন্ত্র জপ করে এই রুদ্রাক্ষ পরলে রোগ মুক্তি ঘটে।

৯ মুখী রুদ্রাক্ষ- একে ন' দেবীর স্বরূপ মনে করা হয়।সমাজে প্রতিষ্ঠার ইচ্ছে থাকলে, এই রুদ্রাক্ষ ধারণ করা উচিত। এক্ষেত্রে ওম হ্রীং হুম নম: মন্ত্র জপ করতে হয়।

১০ মুখী রুদ্রাক্ষ- একে বিষ্ণুর স্বরূপ মনে করা হয়। জীবনে আনন্দের আগমন ঘটানোর জন্য রুদ্রাক্ষ ধারণ করা হয়ে থাকে, যার জন্য ওম হ্রীং নম: মন্ত্রের জপ করতে হয়।

১১ মুখী রুদ্রাক্ষ- এটি রুদ্রদেবের স্বরূপ। জীবনের প্রত্যেকটি ক্ষেত্রে সাফল্যের জন্য এটি ধারণ করতে হয়। এর জন্য ওম হ্রীং হুম নম: মন্ত্র জপ করা উচিত।

১২ মুখী রুদ্রাক্ষ- এটি অন্য সমস্ত রুদ্রাক্ষের চেয়ে ভিন্ন। ওম ক্রৌং ক্ষৌং রৌং নম: মন্ত্র জপ করে এই রুদ্রাক্ষ চুলে ধারণ করা উচিত।

১৩ মুখী রুদ্রাক্ষ- ওম হ্রীং নম: মন্ত্র জপ করে এই রুদ্রাক্ষ পরলে ব্যক্তির ভাগ্য উজ্জ্বল হয়।

১৪ মুখী রুদ্রাক্ষ- এই রুদ্রাক্ষ ব্যক্তিকে পাপ মুক্ত করে। ওম নম: মন্ত্র জপ করে এটি ধারণ করা উচিত।

বন্ধ করুন