বাড়ি > ভাগ্যলিপি > সুখ-সমৃদ্ধি-অভয় দান করে গণেশের এই ৩২টি রূপ
ভক্ত গণপতি রূপে গণেশের চারটি ভুজা ও সাদা রঙের শরীর প্রত্যক্ষ করা যায়।
ভক্ত গণপতি রূপে গণেশের চারটি ভুজা ও সাদা রঙের শরীর প্রত্যক্ষ করা যায়।

সুখ-সমৃদ্ধি-অভয় দান করে গণেশের এই ৩২টি রূপ

  • গণেশের এই বালক গণপতি স্বরূপে ৬টি হাতে পৃথক পৃথক ফল রয়েছে। তাঁর শরীরও লাল রঙের।

২২ অগস্ট থেকে শুরু হয়েছে গণেশ আরাধনা। ১০ দিন ব্যাপী এই উৎসব উপলক্ষে জানুন, গণেশের ৩২টি স্বরূপ সম্পর্কে।

১. শ্রী বালক গণপতি- গণেশের এই বালক গণপতি স্বরূপে ৪টি ভুজে পৃথক পৃথক ফল রয়েছে। তাঁর শরীরও লাল রঙের।

২. তরুণ গণপতি- এই স্বরূপ তাঁর কিশোর রূপকে দর্শায়। এই রূপে অষ্টভুজার রক্তবর্ণ শরীরের গণেশ দেখা যায়। তাঁর এই রূপ যুবাবস্থায় শক্তির প্রতীক মনে করা হয়।

৩. ভক্ত গণপতি- এই রূপে গণেশের চারটি ভুজা ও সাদা রঙের শরীর প্রত্যক্ষ করা যায়। 

৪. বীর গণপতি- যোদ্ধাসম এই স্বরূপের একাধিক হাতে ভিন্ন ভিন্ন ধরণের অস্ত্র ধারণ করে থাকেন। এই রূপে তাঁকে সাহস ও বীরত্বের প্রতীক মনে করা হয়।

৫. শক্তি গণপতি- চারভুজা ও সিঁদূর বর্ণের শরীর প্রত্যক্ষ করা যায়। গণেশের এই রূপ অভয় মুদ্রায় রয়েছে।

৬. দ্বিজ গণপতি- চারটি ভুজা রয়েছে এই রূপে। এটি দুটি গুণের প্রতীক, একটি জ্ঞান ও অপরটি সম্পত্তি। সুখ-সম্পত্তির মনস্কামনার জন্য তাঁর এই রূপের পুজো করা হয়।

৭. সিদ্ধি গণপতি- তাঁর এই মুদ্রা বুদ্ধি ও সাফল্যের প্রতীক। এতে তিনি বিশ্রাম মুদ্রায় অধিষ্ঠিত। এতে তাঁর শরীর পীতবর্ণের। মুম্বইয়ের সিদ্ধিবিনায়ক মন্দিরে তাঁর এই স্বরূপ বিদ্যমান।

৮. বিঘ্ন গণপতি- দশ ভুজাধারী সোনালী কায়ার গণেশ এই স্বরূপে প্রত্যক্ষ করা যাবে। তাঁর বিঘ্ন স্বরূপ সমস্ত ধরণের বাধা দূর করে। এই রূপে গণেশের হাতে শঙ্খ ও চক্র সুশোভিত হয়।

৯. উচ্চিষ্ঠ গণপতি- গণেশের এই স্বরূপের মন্দির তামিলনাড়ুতে অবস্থিত। এই রূপে নীলবর্ণের গণেশ দেখা যাবে। এই স্বরূপ মোক্ষ ও ঐশ্বর্য প্রদান করে। 

১০. হেরম্ব গণপতি- এই রূপে গণেশের পাঁচটি মাথা। এই রূপ হীন ও অসহায়দের রক্ষকের প্রতীক। এই রূপে তাঁর বাহন বাঘ।

১১. উদ্ধ গণপতি- ছয় ভুজাধারী স্বর্ণবর্ণের গণেশ এই স্বরূপে দেখা যায়।

১২. ক্ষিপ্র গণপতি- গণেশের এই স্বরূপ ভক্তদের ইচ্ছা শীঘ্র পুরো করে। এই রূপে গণেশের চার হাতের একটিতে কল্পবৃক্ষের শাখা ও শূঁরে ঘট থাকে।

১৩. লক্ষ্মী গণপতি- আট ভূজাধারী ও গৌরবর্ণ শরীরের সঙ্গে গণেশ এতে বুদ্ধি ও সিদ্ধির সঙ্গে বিরাজমান। এই রূপে গণেশের একটি হাতে টিয়া থাকে।

১৪. বিজয় গণপতি- পুণের অষ্টবিনায়ক মন্দিরে গণেশের এই রূপের পুজো হয়। বিশালাকার গণেশের এই রূপের বাহন মূষক।

১৫. মহাগণপতি- দ্বারকায় গণেশের এই রূপের মন্দির অবস্থিত। এখানে কৃষ্ণ গণেশ বন্দনা ও আরাধনা করেছিলেন। রক্তবর্ণের গণেশের এই স্বরূপে ত্রিনেত্র রয়েছে।

১৬. নৃত্য গণপতি- কল্পবৃক্ষের নীচে নৃত্যরত স্বরূপ এটি।

১৭. একাক্ষর গণপতি- কর্নাটকের হাম্পিতে গণেশের এই রূপের মন্দির অবস্থিত। এই রূপে গণেশের মাথায় চাঁদ ও ত্রিনেত্র রয়েছে।

১৮. হরিদ্রা গণপতি- ছয় ভুজাধারী হলুদ রঙের শরীর।

১৯. ত্র্যৈক্ষ গণপতি- সোনালি বর্ণ, ত্রিনেত্র ও চার ভুজাধারী গণেশ।

২০. বর গণপতি- বরদানের মুদ্রায় গণেশের স্বরূপ সুখ ও সমৃদ্ধি প্রদান করে।

২১. ত্র্যক্ষর গণপতি- গণেশের এই স্বরূপে ব্রহ্মা, বিষ্ণু ও মহেশের সমাবেশ রয়েছে।

২২. ক্ষিপ্র প্রসাদ গণপতি- এই স্বরূপে গণেশ সমস্ত মনস্কামনা অতিশীঘ্র পূর্ণ করেন।

২৩. ঋণ মোচন গণপতি- চার ভুজাধারী লাল বস্ত্র পরিহিত গণেশ। 

২৪. একদন্ত গণপতি- এই স্বরূপে গণেশ সমস্ত বাধা দূর করেন। অন্যান্য স্বরূপের তুলনায় এতে গণেশের পেট বেশ বড় হয়।

২৫. সৃষ্টি গণপতি- বিশালাকার মূষক এই স্বরূপের গণেশের বাহন। এই রূপ প্রকৃতির শক্তিকে প্রকট করে।

২৬. দ্বিমুখ গণপতি- হলুদবর্ণের, চার ভুজাধারী ও দুটি মুখ বিশিষ্ট গণেশের স্বরূপ।

২৭. উদ্দণ্ড গণপতি- এই রূপে গণেশের ১২টি হাত রয়েছে। এই স্বরূপ ন্যায়ের প্রতীক। 

২৮. দূর্গা গণপতি- এই রূপে গণেশ লাল বস্ত্র পরিহিত ও অজেয় মুদ্রায়ে বিরাজমান।

২৯. ত্রিমুখ গণপতি- এই স্বরূপে তিনটি মুখ ও ছটি হাত রয়েছে গণেশের।

৩০. যোগ গণপতি- নীল বস্ত্র পরিহিত যোগ মুদ্রায়ে বিরাজমান গণেশ।

৩১. সিংহ গণপতি- এই স্বরূপে গণেশের মুখ সিংহের ও হাতির শূঁড় রয়েছে।

৩২. সঙ্কষ্ট হরণ গণপতি- এই স্বরূপে তিনি সংকট দূর করেন।

 

বন্ধ করুন