বাংলা নিউজ > ভাগ্যলিপি > Astro Tips: টাকা আসছে না? উপার্জন বাড়ছে না? ৯ মিনিটের এই আচার বদলে দেবে ভাগ্য
রোজ ৯ মিনিট কোন নিয়ম পালন করবেন?

Astro Tips: টাকা আসছে না? উপার্জন বাড়ছে না? ৯ মিনিটের এই আচার বদলে দেবে ভাগ্য

  • উপার্জন বেড়ে যেতে পারে। জীবন থেকে বহু দুঃখকষ্টও কেটে যেতে পারে। ৯ মিনিট ধরে একটি আচার পালন করলেই হবে। 

ন'মিনিটের এই টোটকা বদলাবে আপনার ভাগ্য। চাকরিতে সমস্যা,বিবাহতে বাঁধা,ভাগ্য আপনার সঙ্গ দিচ্ছে না,তাহলে আগামীকাল থেকেই শুরু করুন এই ন'মিনিটের কাজটি যা আপনার জীবনকে বদলে দেবে সম্পূর্ণভাবে।

জ্যোতিষশাস্ত্রে এরকম অনেক উপায় আছে যা করে আপনি আপনার ভাগ্যকে ফিরিয়ে আনতে পারেন। অনেক সময় আমরা এক জায়গায় হয়তো আটকে যাই সেটা চাকরি সমস্যা হতে পারে,সাংসারিক ঝামেলা,দাম্পত্য কলহ বা বিবাহ সমস্যাও হতে পারে। কিন্তু খুব ছোট্ট একটা উপায় আপনাদের জীবনকে সম্পূর্ণভাবে পাল্টাতে পারে চলুন দেখে নেয়া যাক উপায়টি কী ৷

মেয়েরা আজকের দিনে যথেষ্ট সাবলম্বী। তাঁরা উপার্জন করে নিজেদের সংসার সামলাতে সক্ষম। কিন্ত অনেকসময় দেখা যায় ভালো করে পড়াশুনা করেও সেভাবে চাকরির কোনও সুযোগ আসছে না। রোজগার করলেও রোজগারের পরিমাণ যৎসামান্য। সে ক্ষেত্রে এই উপায়টি আপনারা করতে পারেন। প্রতি মঙ্গলবার মেয়েরা নিজেদের বাঁ হাতের অনামিকা আঙ্গুলে সিঁদুর মাখাবেন,তারপর ন'মিনিট ইষ্ট দেবতার ধ্যান করবেন। যে মনস্কামনা নিয়ে কাজটি করছেন সেটি পূর্ণ হওয়ার জন্য ভগবানের কাছে প্রার্থনা করবেন। নয় মিনিট পর হাত ভালো করে ধুয়ে নেবেন। কাজটি প্রতি সপ্তাহেরমঙ্গলবারকরবেন,সেই সঙ্গে প্রতি মঙ্গলবার নিরামিষ খাওয়ার চেষ্টা করবেন এই কাজটি কিছুদিন করার পর থেকে আপনারা এর সকরাত্মক পরিণাম দেখতে পাবেন।ছেলেদের জন্য উপায় একই শুধু সময় ও দিন আলাদা। চলুন দেখে নেওয়া যাক ছেলেরা এক্ষেত্রে কী করবে।

ছেলেদের ক্ষেত্রে উপার্জনের সমস্যা একটা বড় সমস্যা। এই মহামারী পরিস্থিতিতে অনেকেই রোজগারের সমস্যায় ভুগছেন,সে ক্ষেত্রে ছেলেরা ডান হাতের বুড়ো আঙুলে সিঁদুর মাখিয়ে রাখবেন তবে আপনাদের কাছে কুড়ি মিনিট রাখতে হবে ও সেই সঙ্গে ইস্ট দেবতার স্মরণ করবেন কুড়ি মিনিট। তারপর হাতটি ধুয়ে নেবেন এবং কাজটি আপনারা প্রতি শুক্রবারে করবেন। প্রতি শুক্রবার নিরামিষ খাবেন। মেয়েরা প্রতি মঙ্গলবার এবং ছেলেরা প্রতি শুক্রবার নিরামিষ খাওয়ার সাথে সাথে কাজটি করতে থাকবেন,দেখবেন কিছুদিনের মধ্যেই ভাগ্য আপনাদের ফিরতে শুরু করেছে।

(উপরোক্ত তথ্যে এটা কখনই দাবি করা হচ্ছে না যে এটা পূর্ণত সত্য এবং সঠিক ৷ এই তথ্য ধর্মীয় আস্থা ও লৌকিক মান্যতার উপর আধারিত)

বন্ধ করুন