বাড়ি > ভাগ্যলিপি > গ্রহণের কু-প্রভাব দূর হবে এই নিয়মগুলি পালনে
গ্রহণের সর্বাধিক প্রভাব মিথুন রাশিতে পড়বে।
গ্রহণের সর্বাধিক প্রভাব মিথুন রাশিতে পড়বে।

গ্রহণের কু-প্রভাব দূর হবে এই নিয়মগুলি পালনে

  • ২১ জুন আষাঢ় মাসের অমাবস্যার দিনে ঘটতে চলেছে বছরের প্রথম সূর্য গ্রহণ। এই গ্রহণ রবিবার মিথুন রাশি ও মৃগশির নক্ষত্রে লাগবে।

 

২১ জুন আষাঢ় মাসের অমাবস্যার দিনে ঘটতে চলেছে বছরের প্রথম সূর্য গ্রহণ। এই গ্রহণ রবিবার মিথুন রাশি ও মৃগশির নক্ষত্রে লাগবে। মিথুন বুধ গ্রহের রাশি এবং মৃগশির নক্ষত্রের অধিপতি মঙ্গল। গ্রহণের সর্বাধিক প্রভাব মিথুন রাশিতে পড়বে। রবিবার গ্রহণ শেষ হলে, তার অশুভ প্রভাব থেকে বাঁচার জন্য কিছু কাজ অবশ্যকর্তব্য।

  • গ্রহণের সময় মহামৃত্যুঞ্জয় মন্ত্র অথবা শিবের নাম জপ করুন। আবার সূর্যের বীজ মন্ত্রের জপ করা উচিত। এর ফলে গ্রহণের প্রভাব ব্যক্তির ওপর পড়ে না। ১০৮ বার সূর্যের বীজ মন্ত্র জপ করা উচিত। এই বীজ মন্ত্রটি হল— ওম ঘৃণিঃ সূর্যায় নমঃ।
  • গ্রহণ শেষ হওয়ার পর গঙ্গাজল দিয়ে স্নান করা উচিত। এমন করলে গ্রহণের কুপ্রভাব থেকে মুক্তি পাওয়া যায়। স্নানের পর পরিষ্কার-পরিচ্ছন্ন জামাকাপড় পড়ে অন্য কোনও কাজে হাত লাগাবেন।
  • গ্রহণ শেষ হলে, পুরো ঘরে গঙ্গা জল ছিটিয়ে শুদ্ধ করা উচিত। ঠাকুরের ওপরও গঙ্গা জল ছেটান। ঘর পরিষ্কার পরিচ্ছন্ন করুন। এ ভাবে ঘরের ওপর থেকে গ্রহণের কুপ্রভাব দূর হবে।
  • গ্রহণ শেষ হওয়ার পর পুজার্চনা করা উচিত। কাছাকাছি কোনও মন্দির হলে সেখানে পুজো করে গরিবদের দান-দক্ষিণা দেওয়া উচিত। গ্রহণ শেষ হওয়ার পর গোরুকে রুটি খাওয়ানো শুভ মনে করা হয়।
  • গ্রহণ শেষ হওয়ার পর অমাবস্যা তিথি চলাকালীন ব্রাহ্মণ ভোজন করাতে পারেন। তা সম্ভব না-হলে কোনও মন্দিরে আটা, ঘী, দক্ষিণা, কাপড় অথবা অন্য জরুরি জিনিস দান করতে পারেন।

বন্ধ করুন