বাড়ি > ভাগ্যলিপি > ৫৬ ভোগে প্রসন্ন কৃষ্ণ, জানুন এই ভোগের কারণ ও সূচি
৫৬ ভোগ ৬টি রসের সাহায্যে ৬ ধরণের স্বাদ দেয়।
৫৬ ভোগ ৬টি রসের সাহায্যে ৬ ধরণের স্বাদ দেয়।

৫৬ ভোগে প্রসন্ন কৃষ্ণ, জানুন এই ভোগের কারণ ও সূচি

  • জন্মাষ্টমীতে কৃষ্ণকে ৫৬ ভোগ অর্পণ করে তার প্রসাদ গ্রহণ করা অত্যন্ত শুভ মনে কার হয়। শ্রীমদভাগবত অনুযায়ী, কৃষ্ণকে প্রসন্ন করার জন্য ৫৬টি ব্যঞ্জনের ভোগ অর্পণ করা হয়।

এক সপ্তাহ আগে থেকেই জন্মাষ্টমীর আয়োজন শুরু হয়। জন্মাষ্টমীর দিনে কৃষ্ণকে ৫৬ ভোগ অর্পণ করার পরম্পরা দীর্ঘদিন ধরেই চলে আসছে। তবে আপনারা কী জানেন, এই ৫৬ ভোগ অর্পণের কারণ? 

কৃষ্ণকে অর্পিত ৫৬ ভোগ সম্পর্কে নানান ধারণা প্রচলিত রয়েছে। এর মধ্যে একটি গোবর্ধন পর্বতের সঙ্গে সম্পর্কযুক্ত। এই গল্প অনুযায়ী, যশোদা বালক কৃষ্ণকে একদিনে অষ্টপ্রহর ভোজন করাতেন। একদা ইন্দ্রের রোষাগ্নি থেকে সমস্ত ব্রজবাসীদের রক্ষার জন্য কৃষ্ণ গোবর্ধন পর্বতকে নিজের কনিষ্ঠা আঙুলে তুলে নেন। সে সময় লাগাতার ৭ দিন কৃষ্ণ অন্ন-জল গ্রহণ করেননি।

অষ্টম দিনে ইন্দ্রের বর্ষা বন্ধ হওয়ায় সমস্ত ব্রজবাসী গোবর্ধন পর্বত থেকে বেরিয়ে আসেন। দিনে অষ্টপ্রহর ভোজন করে থাকেন যে কৃষ্ণ, তাঁকে ৭ দিন এভাবে অনাহারে দেখে ব্রজবাসী ও যশোদার কষ্ট হয়। তখন সমস্ত ব্রজবাসী-সহ যশোদা মিলে ৭ দিন ও ৮ প্রহরের হিসেবে ৫৬টি ব্যঞ্জন বালক কৃষ্ণের সামনে পরিবেশন করেন।

জন্মাষ্টমীতে কৃষ্ণকে ৫৬ ভোগ অর্পণ করে তার প্রসাদ গ্রহণ করা অত্যন্ত শুভ মনে কার হয়। বর্ষাকালে যে সমস্ত শাক-সব্জি খাওয়া অনুচিত, তা-ও কৃষ্ণের ভোগে অন্তর্ভুক্ত করেন অনেকে। শ্রীমদভাগবত অনুযায়ী, কৃষ্ণকে প্রসন্ন করার জন্য ৫৬টি ব্যঞ্জনের ভোগ অর্পণ করা হয়। ৫৬ ভোগের সূচি হল-

১. ভাত (ভক্ত), ২. ডাল (সুপ), ৩. চাটনি (প্রলেহ), ৪. কঢ়ী (সদিকা), ৫. দই-সব্জির কঢ়ী (দধিশাকজা), ৬. সিখরন (সিখরিণী), ৭. শরবৎ (অবলেহ), ৮. বাটী (বালকা), ৯. মোরব্বা (ইক্ষু খেরিণী), ১০. শর্করা যুক্ত (ত্রিকোণ), ১১. বড়া (বটক), ১২. মঠরী (মধু শীর্ষক), ১৩. ফেনি (ফেণিকা), ১৪. পুরী বা লুচি (পরিষ্টশ্চ), ১৫. খজলা (শতপত্র), ১৬. ঘেওয়ার (সধিদ্রক), ১৭. মালপুয়া (চক্রাম), ১৮. চোলা (চিল্ডিকা), ১৯. জিলিপি (সুধাকুন্ডলিকা), ২০. মেসু (ধৃতপূর), ২১. রসগোল্লা (বায়ুপূর), ২২. চন্দ্রকলা, ২৩. মহরায়তা (দই), ২৪. থুলি (স্থূলী), ২৫. লবঙ্গপুরী (কর্পূরনাড়ী), ২৬. খুরমা (খণ্ড মণ্ডল), ২৭. দালিয়া (গোধূম), ২৮. পরিখা, ২৯. সুফলঢয়া (মৌরী যুক্ত), ৩০. বিলসারু (দধিরূপ), ৩১. লাড্ডু (মোদক), ৩২. শাক, ৩৩. অধানৌ আচার (সৌধানা), ৩৪. মোঠ (মণ্ডকা), ৩৫. পায়েস (ক্ষীর), ৩৬. দই, ৩৭. গাওয়া ঘি, ৩৮. মাখন (হৈয়ঙ্গপীনম), ৩৯. মালাই (মন্ডূরী), ৪০. রাবড়ি (কূপিকা), ৪১. পাপড় (পর্পট), ৪২. সীরা (শক্তিকা), ৪৩. লস্যি (লসিকা), ৪৪. সুবত, ৪৫. মোহন (সংঘায়), ৪৬. সুপুড়ি (সুফলা), ৪৭. এলাচ (সিতা), ৪৮. ফল, ৪৯. তাম্বুল, ৫০. মোহন ভোগ, ৫১. লবণ, ৫২. কষায়, ৫৩. মধুর, ৫৪. তিক্ত, ৫৫. কটূ, ৫৬. অম্ল।

এই ৫৬ ভোগ ৬টি রসের সাহায্যে ৬ ধরণের স্বাদ দেয়। ৫৬ ভোগে কৃষ্ণ প্রসন্ন হন ও ভক্তদের সমস্ত মনস্কামনা পূর্ণ করেন।

বন্ধ করুন