বাংলা নিউজ > ভাগ্যলিপি > বাড়িতে রাখুন ময়ূরপঙ্খ, কমবে দাম্পত্য কলহ, বাচ্চাদের জেদ
ময়ূরপঙ্খ বাচ্চাদের কুনজর থেকে রক্ষা করে।

বাড়িতে রাখুন ময়ূরপঙ্খ, কমবে দাম্পত্য কলহ, বাচ্চাদের জেদ

  • কোনও কাজে লাগাতার বাধা সৃষ্টি হলে মন্দিরে রাধা-কৃষ্ণের মূর্তির সামনে ময়ূরপঙ্খ রেখে দেওয়া উচিত। রাখার ৪০ দিন পর, সেটি বাড়ি নিয়ে আসুন।

হিন্দু ধর্মে ময়ূরপঙ্খকে শুভ মনে করা হয়। শ্রীকৃষ্ণের মুকুটে উজ্জ্বল থাকে এটি। এ ছাড়াও বাড়িতে ময়ূরপঙ্খ রাখলে শুভ ফল পাওয়া যায়। কী ভাবে? জানুন এখানে—

  • প্রচলিত ধারণা অনুযায়ী এর ফলে ধনাত্মক শক্তির বিস্তার হয়। বাস্তুশাস্ত্র অনুযায়ী ময়ূরপঙ্খ শুভ পরিণাম দেয়। বাড়িতে কৃষ্ণের প্রতিমা থাকলে তাতে, অবশ্যই ময়ূরপঙ্খ লাগানো উচিত। এর ফলে নেগেটিভ এনার্জি ছড়ায় না।
  • আবার কোনও কাজে লাগাতার বাধা সৃষ্টি হলে মন্দিরে রাধা-কৃষ্ণের মূর্তির সামনে ময়ূরপঙ্খ রেখে দেওয়া উচিত। রাখার ৪০ দিন পর, সেটি বাড়ি নিয়ে আসুন। এর ফলে কর্মক্ষেত্রে আগত বাধা দূর হবে।
  • আবার বাচ্চাদের পড়াশোনায় মন না-বসলে, তাদের বইয়ের ফাঁকে ময়ূরপঙ্খ রাখলে অনুকূল ফল পাওয়া যায়।
  • ময়ূরপঙ্খ বাচ্চাদের কুনজর থেকে বাঁচায়। অনেক সময় বাচ্চারা অহেতুক কাঁদতে থাকে, এমনকি অসুস্থ পর্যন্ত হয়ে পড়ে। এ ধরণের কুনজর থেকে বাঁচানোর জন্য তাদের হাতে ময়ূরপঙ্খ বেঁধে দিলে শুভ ফল পাওয়া যায়। আবার ময়ূরপঙ্খ দিয়ে তৈরি পাখা দিয়ে বাতাস করলে, বাচ্চাদের জেদি স্বাভাবে পরিবর্তন আনা যেতে পারে।
  • দাম্পত্য জীবনের কলহ থেকে মুক্তির জন্য শয়নকক্ষের পূর্ব দিকে বা দক্ষিণ-পূর্ব দিকে এটি রাখা উচিত। এর ফলে পারস্পরিক সম্পর্কে উন্নতি হয়।

বন্ধ করুন