বাংলা নিউজ > ভাগ্যলিপি > Mercury remedies Lal kitab : জেনে নিন লাল কিতাব অনুসারে ১২টি ঘরে বুধের প্রতিকার
রাতে সবুজ (খোসা সমেত কাচা) মুগ ডাল ভিজিয়ে রেখে সকালে পশু পাখিদের খাওয়ান ।

Mercury remedies Lal kitab : জেনে নিন লাল কিতাব অনুসারে ১২টি ঘরে বুধের প্রতিকার

  • Mercury remedies Lal Kitab: রাশিফলের প্রতিটি ঘরে বুধ গ্রহের প্রভাব আলাদা এবং রাশিফলের ১২টি ভাব একজন ব্যক্তির জীবনের সমস্ত গুরুত্বপূর্ণ দিকগুলির সঙ্গে সম্পর্কিত। আসুন জেনে নেওয়া যাক লাল কিতাব অনুসারে ১২টি ঘরে বুধের ফল এবং বুধ গ্রহের শান্তির প্রতিকার।

লাল কিতাব অনুসারে বুধ গ্রহের তাৎপর্য

সূর্য, শুক্র ও রাহু বুধের বন্ধু। যেখানে চাঁদ বুধ গ্রহের শত্রু। অন্যদিকে, লাল কিতাবের বিপরীতে, বৈদিক জ্যোতিষশাস্ত্রে, বুধ গ্রহকে একটি নিরপেক্ষ গ্রহ হিসাবে বিবেচনা করা হয়, যা শুভ গ্রহের সাথে মিলিত হলে ভাল ফল দেয় এবং অশুভ গ্রহের সাথে এর সংমিশ্রণ অশুভ ফল দেয় ।

লাল কিতাবের মতে, বুধের সাথে চন্দ্রের শত্রুতা রয়েছে। তবে, বুধ চন্দ্রকে শত্রু মনে করে না। বরং চন্দ্রের চতুর্থ ঘরে বুধ অত্যন্ত শুভ ফলদায়ক। বৈদিক জ্যোতিষশাস্ত্রে, বলা হয় মিথুন এবং কন্যা রাশির অধিপতি বুধ গ্রহ। যেখানে লাল কিতাবে বলা হয়, কুণ্ডলীর তৃতীয় এবং ষষ্ঠ ঘরের অধিপতি বুধ গ্রহ।

বুধ গ্রহের কারকত্ব

বুধ একজন ব্যক্তির কথা বলার প্রকৃতির উপর প্রভাব ফেলে। এর সাথে একজন মানুষ কতটা বুদ্ধিমান ও বিচক্ষণ হবেন, তাও বুধ গ্রহের অবস্থান দেখায়। যদি কোনো ব্যক্তির কুণ্ডলিতে বুধ গ্রহ পীড়িত বা দুর্বল হয়, তবে সেই ব্যক্তিকে গণিত, যুক্তি এবং যোগাযোগের ক্ষেত্রে অসুবিধার সম্মুখীন হতে হয়। অন্যদিকে, বুধের অবস্থান শক্তিশালী হলে, ব্যক্তি খুব ভাল ফল দেখতে পান এসব ক্ষেত্রে।

লাল কিতাব অনুসারে বুধের প্রভাব

বুধ একটি শুভ গ্রহ। কোনো ব্যক্তির কুণ্ডলীতে বুধ গ্রহ শক্তিশালী হলে সেই ব্যক্তি বুধের ইতিবাচক ফল পান। বিপরীতে, যদি ব্যক্তির জন্ম তালিকায় বুধের অবস্থান দুর্বল হয় তবে এটি ব্যক্তির জন্য নেতিবাচক ফলাফল দেয়। আসুন জেনে নেওয়া যাক বুধের নেতিবাচক ও ইতিবাচক ফলাফল কী:-

ইতিবাচক প্রভাব - বুধের ইতিবাচক প্রভাবের কারণে, ব্যক্তির যোগাযোগের ধরন খুব শক্তিশালী এবং তিনি বুদ্ধিমান হন। ব্যক্তি তার উপস্থিতি দিয়ে সমাজে তার প্রভাব ফেলে। বুধের ইতিবাচক প্রভাবের কারণে একজন ব্যক্তির যুক্তি দেওয়ার ক্ষমতা প্রখর হয় এবং তিনি গণিতেও ভাল হন।

নেতিবাচক প্রভাব- বুধের নেতিবাচক প্রভাবের কারণে কথা বলতে অসুবিধার সম্মুখীন হতে হয় এবং তিনি গণিতে দুর্বল এবং গণনায় সমস্যায় পড়েন। এর পাশাপাশি, ব্যক্তির যুক্তি করার ক্ষমতা খুবই দুর্বল। পীড়িত বুধের প্রভাবে ব্যক্তি ব্যবসায় ক্ষতিগ্রস্ত হন। মানুষের জীবনে দারিদ্র্য আসে।

লাল কিতাব অনুসারে বুধ গ্রহের শান্তির প্রতিকার

লাল কিতাবের প্রতিকার জ্যোতিষশাস্ত্রে খুবই গুরুত্বপূর্ণ বলে মনে করা হয়। তাই লাল কিতাবে বুধ গ্রহের শান্তির কৌশলগুলি খুবই উপকারী এবং সহজ। যে কোনো ব্যক্তি সহজেই সেগুলো নিজে করতে পারেন। বুধ গ্রহ সংক্রান্ত লাল কিতাবের প্রতিকার করলে মানুষ বুধ গ্রহের ইতিবাচক ফল পায়। জ্যোতিষশাস্ত্র অনুসারে, যদি কোনও ব্যক্তির বুধ দুর্বল হয় তবে তার পান্না পরা উচিত। যদি ব্যক্তিটি রত্ন পাথর কিনতে সক্ষম না হয় তবে তার মুল পরিধান করা উচিত। এছাড়া বুধ গ্রহের জন্য চার মুখী রুদ্রাক্ষ পরা হয়। বুধ গ্রহের সাথে সম্পর্কিত লাল কিতাবের প্রতিকারগুলি নিম্নরূপ:

অ্যালকোহল, মাংস, ডিম থেকে বিরত থাকুন বুধবার।

রাতে মাথায় কাছে জল রেখে সকালে অশ্ব্থ্থ গাছে নিবেদন করুন বুধবার।

ভেড়া, ছাগল, তোতাপাখি খাচায় বা বাড়ীতে আটকে রাখবেন না।

রাতে সবুজ (খোসা সমেত কাচা) মুগ ডাল ভিজিয়ে রেখে সকালে পশু পাখিদের খাওয়ান।

মন্দির বা ধর্মীয় স্থানে চাল বা দুধ দান করুন বুধবার।

কাককে খাওয়ান বুধবার।

লাল কিতাবের প্রতিকার জ্যোতিষশাস্ত্রের নীতির উপর ভিত্তি করে। তাই এই বইটি জ্যোতিষশাস্ত্রে একটি গুরুত্বপূর্ণ স্থান পেয়েছে।

(উপরোক্ত তথ্য ধর্মীয় আস্থা ও লৌকিক মান্যতার উপর আধারিত)

বন্ধ করুন