বাংলা নিউজ > ভাগ্যলিপি > Shani Amavasya: শনি অমাবস্যায় সাড়েসাতি ও পিতৃদোষ থেকে মুক্তির উপায় জানুন এখানে

Shani Amavasya: শনি অমাবস্যায় সাড়েসাতি ও পিতৃদোষ থেকে মুক্তির উপায় জানুন এখানে

যে জাতকদের ওপর শনির সাড়েসাতি ও আড়াই চলছে, তাঁরা অবশ্যই শনি অমাবস্যার দিনে দান করবেন।

জেনে নিন।

হিন্দু ধর্মে অমাবস্যার বিশেষ গুরুত্ব রয়েছে। চলতি বছর ৪ ডিসেম্বর (শনিবার) অমাবস্যার দিনে বিশেষ সংযোগ সৃষ্টি হচ্ছে। জ্যোতিষীদের মতে খুব কম সময় শনিবার অমাবস্যা পড়ে। চলতি বছর ৪ ডিসেম্বর শনি অমাবস্যা। ৩ ডিসেম্বর বিকেল ৪টে ৫৬ মিনিটে অমাবস্যা তিথি শুরু হবে, শেষ হবে ৪ ডিসেম্বর দুপুর ১টা ১৩ মিনিটে। ৪ ডিসেম্বর আবার সূর্যগ্রহণ লাগতে চলছে। যার ফলে এই শনি অমাবস্যার গুরুত্ব বৃদ্ধি পেয়েছে। 

এদিন ব্রাহ্মণদের পাঁচটি বস্তু দান করা উচিত। এগুলি হল, অন্ন, কালো তিল, ছাতা, বিউলির ডাল, সরষের তেল। এই পাঁচটি বস্তু দান করলে পরিবারে সমৃদ্ধি বৃদ্ধি হয় এবং শত্রুদের ওপর জয়লাভ করা যায়। এই পঞ্চদানের ফলে বিপত্তি থেকে রক্ষা ও পিতৃপুরুষদের প্রসন্ন করা সম্ভব। আবার এই সংযোগে সরষের তেল দান করলে শনির প্রভাবের সমাপ্তি ঘটে।

যে জাতকদের ওপর শনির সাড়েসাতি ও আড়াই চলছে, তাঁরা অবশ্যই শনি অমাবস্যার দিনে দান করবেন। সূর্যগ্রহণের সময় পঞ্চদান করলে তাঁদের জীবন থেকে শনির প্রভাব সমাপ্ত হয় এবং শনি তাঁদের ওপর প্রসন্ন থাকেন। আবার পঞ্চদান থেকে প্রসন্ন হয়ে সূর্য সমস্ত বাধা খেকে মুক্তি ও বিপত্তি থেকে লড়ার শক্তি প্রদান করেন।

আবার এ দিন জলে গঙ্গাজল বা কোনও পবিত্র নদীর জল মিশিয়ে স্নান করা উচিত। এর প্রভাবে নানান দোষ দূর হয়। শনি অমাবস্যার দিনে জলে কালো তিল মিশিয়ে স্নান করলে শনি দোষ দূর হয়। আবার এ দিন কালো কাপড়ে, কালো তিল রেখে দান করলেও সাড়েসাতি ও আড়াইয়ের প্রভাব থেকে স্বস্তি পেতে পারেন। পাশাপাশি একটি লোটায় জল ও দুধের সঙ্গে সাদা তিল মিশিয়ে অশ্বত্থ গাছে অর্পণ করলে পিতৃদোষ থেকেও মুক্তি পেতে পারেন।

বন্ধ করুন