বাংলা নিউজ > ভাগ্যলিপি > দুর্গাসপ্তসতী পাঠে পাওয়া যায় রোগ শোক ও সংকট থেকে মুক্তি
এই পাঠের ফলে শান্তি, সুখ-সমৃদ্ধি, যশ, মান-সম্মান বৃদ্ধি হয়।
এই পাঠের ফলে শান্তি, সুখ-সমৃদ্ধি, যশ, মান-সম্মান বৃদ্ধি হয়।

দুর্গাসপ্তসতী পাঠে পাওয়া যায় রোগ শোক ও সংকট থেকে মুক্তি

  • পুরাণ অনুযায়ী দুর্গাসপ্তসতী পাঠ করলে সমস্ত সঙ্কট থেকে মুক্তি পাওয়া যায়। এই পাঠে ১৩টি অধ্যায় রয়েছে ও এগুলিকে তিনটি অংশে ভাগ করা হয়েছে।

১৭ অক্টোবর থেকে শুরু হচ্ছে দুর্গাপুজো। এ সময় দুর্গাকে প্রসন্ন করার জন্য দুর্গাসপ্তশতী পাঠের বিশেষ গুরুত্ব রয়েছে। পুরাণ অনুযায়ী, দুর্গাসপ্তসতী পাঠ করলে সমস্ত সংকট থেকে মুক্তি পাওয়া যায়। এই পাঠে ১৩টি অধ্যায় রয়েছে ও এগুলিকে তিনটি অংশে ভাগ করা হয়েছে। 

নিয়ম অনুযায়ী, সতর্কতার সঙ্গে দুর্গাসপ্তসতী একদিনেই পাঠ করা উচিত। আবার সময় না-থাকলে ক্রমাঙ্ক অনুযায়ী সাত দিনে পাঠ সম্পূর্ণ করা যেতে পারে। এই পাঠের ফলে শান্তি, সুখ-সমৃদ্ধি, যশ, মান-সম্মান বৃদ্ধি হয়। বিভিন্ন অধ্যায় পাঠ নানান মনস্কামনা পূর্ণ করে।

  • দুর্গাসপ্তসতীর প্রথম অধ্যায় পাঠ করলে চিন্তামুক্তি ঘটে। চিত্ত প্রসন্ন থাকে।
  • দ্বিতীয় পাঠে আইন-আদালতের মামলা থেকে মুক্তি পাওয়া যায়।
  • বিরোধী ও শত্রুদের হাত থেকে মুক্তি দেয় তৃতীয় অধ্যায় পাঠ।
  • চতুর্থ অধ্যায় পাঠ করলে দুর্গার আশীর্বাদ লাভ হয় ও সমস্ত দুঃখ নিবারণ হয়।
  • পঞ্চম অধ্যায় পাঠের ফলে প্রসন্ন হন দশভূজা।
  • ষষ্ঠ অধ্যায় পাঠের ফলে ভয়, আশঙ্কা, অশুভ শক্তির প্রভাব থেকে মুক্তি লাভ সম্ভব হয়। যাঁরা অকারণেই ভয় পান, তাঁদের জন্য এই পাঠ উপযোগী।
  • বিশেষ মনস্কামনা পূরণের জন্য দুর্গাসপ্তশতীর সপ্তম অধ্যায় পাঠ করা উচিত।
  • আবার অষ্টম অধ্যায় পাঠ করলে বিবাহ সংক্রান্ত সমস্ত সমস্যা দূর হয়। এর ফলে মনমতো জীবনসঙ্গী পাওয়া যায়।
  • সন্তানসুখ লাভের জন্য বা বিচ্ছিন্ন আত্মীয়ের সঙ্গে পুনরায় সম্পর্ক গড়ে তোলার জন্য নবম অধ্যায়ের পাঠ ফলপ্রসূ।
  • দশম অধ্যায় পাঠ করলে রোগ-শোক থেকে মুক্তি ঘটে।
  • একাদশ অধ্যায় পাঠের ফলে সুখ-শান্তি পাওয়া যায়। এমনকী ব্যবসায়ে লাভও হয়।
  • দুর্গাসপ্তসতীর দ্বাদশ অধ্যায় পাঠে সমাজে মান-প্রতিষ্ঠা বৃদ্ধি হয়। সুখ-সম্পত্তি লাভ করা যায়।
  • ত্রয়োদশ অধ্যায় পাঠের ফলে দুর্গা প্রসন্ন হন ও তাঁর আশীর্বাদ লাভ করা যায়।

বন্ধ করুন