বাংলা নিউজ > ভাগ্যলিপি > Yogini ekadashi 2022: শুক্রবার যোগিনী একাদশী, এই ৭ মুহূর্তে পূজা করবেন না কেন? জেনে নিন ব্রতকথাটিও
যোগিনী একাদশী কেন পালন করা হয়?

Yogini ekadashi 2022: শুক্রবার যোগিনী একাদশী, এই ৭ মুহূর্তে পূজা করবেন না কেন? জেনে নিন ব্রতকথাটিও

  • যোগিনী একাদশীতে ভগবান বিষ্ণুর আরাধনা ছাড়াও, উপবাস কাহিনিরও বিশেষ তাৎপর্য রয়েছে। এটি বিশ্বাস করা হয় যে দ্রুত সেই গল্প পাঠ করলে সমস্ত পাপ থেকে মুক্তি পাওয়া যায়।

যোগিনী একাদশী ২৪শে জুন ২০২২, শুক্রবার। আষাঢ় মাসের কৃষ্ণপক্ষের একাদশীকে যোগিনী একাদশী বলা হয়। একাদশী তিথি ভগবান বিষ্ণুকে উৎসর্গ করা হয়। বিশ্বাস করা হয় যে এই দিনে ভগবান বিষ্ণুর আরাধনা করলে ভগবান বিষ্ণুর আশীর্বাদ পাওয়া যায়। শাস্ত্র মতে একাদশী উপবাস করলে মৃত্যু পরবর্তী মোক্ষ লাভ হয়।

যোগিনী একাদশীর তাৎপর্য: যোগিনী একাদশী সম্পর্কে ভগবান শ্রীকৃষ্ণ শ্রীমদ্ভগবদগীতায় বলেছেন যে এই উপবাস পালন করলে ৮৮ হাজার ব্রাহ্মণকে অন্নদানের সমান ফল পাওয়া যায়।

যোগিনী একাদশীর শুভ সময়:

ব্রহ্ম মুহূর্ত ভোর ০৪.০৪ থেকে ০৪:৪৪ মিনিট পর্যন্ত ।

অভিজিৎ মুহূর্ত – ১১:৫৬ থেকে ১২:৫১ মিনিট পর্যন্ত ।

বিজয় মুহুর্ত -দুপুর ০২:৪৩ থেকে ০৩:৩৯ মিনিট পর্যন্ত ।

গোধূলি মুহূর্ত – সন্ধ্যা ০৭:০৯ থেকে ০৭:৩৩ মিনিট পর্যন্ত ।

অমৃত কাল- ভোর ০৫:০৮ ২৫ জুন থেকে ০৬:৫৩ মিনিট পর্যন্ত ।

সর্বার্থ সিদ্ধি যোগ -ভোর ০৫:২৪ থেকে ০৮:০৪ মিনিট পর্যন্ত ।

কোন কোন মুহূর্তে যোগিনী একাদশীর পূজা করবেন না:

রাহুকাল – ১০.৩৯ থেকে ১২.২৪ মিনিট পর্যন্ত ।

ইয়ামগন্ড - ০৩:৫৩ থেকে ০৫:৩৮ মিনিট পর্যন্ত ।

গুলিক কাল- ০৭:০৯ থেকে ০৮:৫৪ মিনিট পর্যন্ত

ভিদাল যোগ - ০৫:২৪ থেকে ০৮:০৪ মিনিট পর্যন্ত ।

দুরমুহূর্ত- ০৮:১২ থেকে ০৯:০৮ মিনিট পর্যন্ত ।

গান্ড মূল - ০৫:২৪ থেকে ০৮:০৪ মিনিট পর্যন্ত ।

একাদশীর পূজা পদ্ধতি:

  • একাদশীর দিন সকালে ঘুম থেকে উঠে প্রথমে স্নান করে পরিষ্কার কাপড় পরিধান করে একাদশীর উপবাসের সংকল্প নিন।
  • এরপর বাড়ির মন্দিরে পূজা করার আগে একটি বেদি তৈরি করে তাতে ৭টি ধান (উড়দ, মুগ, গম, ছোলা, যব, চাল এবং বাজরা) রাখুন।
  • বেদীতে একটি কলস স্থাপন করুন এবং তাতে আম বা অশোকের ৫টি পাতা রাখুন।
  • এবার বেদীতে ভগবান বিষ্ণুর মূর্তি বা ছবি রাখুন।
  • এর পরে, ভগবান বিষ্ণুকে হলুদ ফুল, মরসুমি ফল এবং তুলসী দল উৎসর্গ করুন।
  • তারপর ধূপ-প্রদীপ থেকে বিষ্ণুর আরতি করুন।
  • সন্ধ্যায়, ভগবান বিষ্ণুর আরতি করার পরে, ফল গ্রহণ করুন।
  • রাতে না ঘুমিয়ে, ভজন-কীর্তন করতে করতে জাগরণ করুন।
  • -পরদিন সকালে একজন ব্রাহ্মণকে ব্রাহ্মণ খাওয়ান এবং যথাসম্ভব দান ও দক্ষিণা দিয়ে বিদায় করুন।
  • অতঃপর নিজের খাবার খেয়ে উপবাস ভেঙে ফেলুন।

যোগিনী একাদশী ব্রত মাহাত্ম্য:

প্রাচীনকালে অলকাপুরী শহরে রাজা কুবেরের বাড়িতে হেম নামে এক মালী বাস করতেন। তাঁর কাজ ছিল শিবের পূজার জন্য প্রতিদিন মানসরোবর থেকে ফুল আনা। স্ত্রীর সঙ্গে অবাধ বিচরণ করায় একদিন ফুল আনতে দেরি হয় তার। তিনি দেরিতে পৌঁছান।

এতে ক্ষুব্ধ হয়ে কুবের তাকে কুষ্ঠরোগী হওয়ার অভিশাপ দেন। অভিশাপের প্রভাবে হেম মালি এদিক-ওদিক ঘুরে বেড়াতে থাকেন এবং দৈবকৃপায় একদিন মার্কণ্ডেয় ঋষির আশ্রমে পৌঁছে যান। ঋষি তার যোগ শক্তিতে তার অসুখের কারণ জানতে পারলেন। তারপর তিনি তাকে যোগিনী একাদশীর উপবাস পালন করতে বলেন। উপবাসের প্রভাবে হেম মালীর কুষ্ঠরোগ দূর হয়ে তিনি মোক্ষ লাভ করেন।

( উপরোক্ত তথ্যে এটা কখনই দাবি করা হচ্ছে না যে এটা পূর্ণত সত্য এবং সঠিক৷ এব্যাপারে বিশদ জানতে অবশ্যই বিশেষজ্ঞের পরামর্শ নেওয়া উচিত )

বন্ধ করুন