বাংলা নিউজ > বাংলার মুখ > ধেয়ে আসছে ঘূর্ণিঝড়, আমফানের স্মৃতি উসকে বাংলার উপর চোখ রাঙাচ্ছে ইয়াস
ধেয়ে আসছে ঘূর্ণিঝড় ইয়াস (প্রতীকী ছবি, সৌজন্যে এএনআই)
ধেয়ে আসছে ঘূর্ণিঝড় ইয়াস (প্রতীকী ছবি, সৌজন্যে এএনআই)

ধেয়ে আসছে ঘূর্ণিঝড়, আমফানের স্মৃতি উসকে বাংলার উপর চোখ রাঙাচ্ছে ইয়াস

  • ২৬ মে পশ্চিমবঙ্গ এবং ওড়িশার উপকূলে আছড়ে পড়তে পারে ঘূর্ণিঝড় 'ইয়াস'।

২৬ মে পশ্চিমবঙ্গ এবং ওড়িশার উপকূলে আছড়ে পড়তে পারে ঘূর্ণিঝড় 'ইয়াস'। আইএমডির পূর্বাভাস, ২৫ মে বঙ্গোপসাগরে ঘূর্ণাবর্ত থেকে শক্তিশালী ঘূর্ণিঝড়ে পরিণত হতে পারে ইয়াস। পশ্চিমবঙ্গে আঘাত না হেনে ঝড়টির ওড়িশা বা বাংলাদেশের দিকে চলে যাওয়ারও সম্ভাবনা রয়েছে। আবহাওয়া দফতর প্রাথমিকভাবে জানিয়েছে, ওড়িশা থেকে বাংলাদেশের সুন্দরবন ও চট্টগ্রাম এলাকা পর্যন্ত ইয়াসের প্রভাব থাকতে পারে বলে।

গত কয়েকদিন ধরেই প্রচণ্ড গরমে নাজেহাল দক্ষিণবঙ্গবাসী। বাতাসে জলীয়বাষ্পের পরিমাণ বাড়ায় ভ্যাপসা গরম পোয়াতে হচ্ছে দক্ষিণবঙ্গবাসীকে৷ এই আবহে আগামী সপ্তাহে ঘূর্ণিঝড় আঘাত হানতে পারে দক্ষিণবঙ্গে। আইএমডির পূর্বাভাস বলছে, আগামী ২০ থেকে ২২ মে-র মধ্যে পূর্বমধ্য বঙ্গোপসাগরে তৈরি হতে পারে ঘূর্ণাবর্তটি।

আইএমডি জানিয়েছে, সাগরে অনুকূল পরিবেশ থাকায় ঘূর্ণাবর্তটি ক্রমশ শক্তি সঞ্চয় করে সেটি শক্তিশালী ঘূর্ণিঝড়ে পরিণত হতে পারে। তবে এখনই ঘূর্ণিঝড়ের শক্তির বিষয়ে স্পষ্ট ধারণা করা যাচ্ছে না। ঘূর্ণাবর্ত তৈরি হলে সেই বিষয়ে স্পষ্ট হওয়া যাবে। তবে অনুকূল পরিবেশ থাকায় এই ঘূর্ণিঝড়টি সুপারসাইক্লোনে পরিণত হতে পারে বলে জানিয়েছে আবহাওয়া দফতর। যার জেরে আশঙ্কা বাড়ছে দক্ষিণবঙ্গবাসীর।

আইএমডি সূত্রে খবর, আগামী ২১ মে আন্দামানে প্রবেশ করতে পারে বর্ষা। এছাড়া ঘূর্ণাবর্ত সৃষ্টির জেরে পশ্চিমবঙ্গে প্রবল বর্ষণের সম্ভাবনা রয়েছে আগামী সপ্তাহে। আইএমডির পূর্বাভাস, ২৬ থেকে ২৯ মে পর্যন্ত চলবে ভারী বৃষ্টি। এদিকে ঘূর্ণিঝড়ের গতিপথ ওড়িশার দিকে হলে পারাদ্বীপ, মেদিনীপুরে ক্ষয়ক্ষতি হতে পারে।

বন্ধ করুন