বাংলা নিউজ > বাংলার মুখ > অন্যান্য জেলা > করোনায় বন্ধ লোকনাথ মন্দির, চাকলা–কচুয়া যাওয়ার পথে আটকানো হল ভক্তদের
করোনায় বন্ধ লোকনাথ মন্দির, চাকলা–কচুয়া যাওয়ার পথে আটকানো হল ভক্তদের
করোনায় বন্ধ লোকনাথ মন্দির, চাকলা–কচুয়া যাওয়ার পথে আটকানো হল ভক্তদের

করোনায় বন্ধ লোকনাথ মন্দির, চাকলা–কচুয়া যাওয়ার পথে আটকানো হল ভক্তদের

জন্মাষ্মমীর দিন বাবার মন্দিরে প্রতি বছরই প্রচুর মানুষের সমাগম হয়। কিন্তু এবার মন্দির করোনার জন্য বন্ধ রাখা হয়েছে।

করোনা পরিস্থিতিতে বন্ধ রয়েছে চাকলা–কচুয়ায় লোকনাথ বাবার মন্দির। তাই জন্মাষ্টমীর দিন লাখো লাখো লোকনাথ ভক্তরা মন্দিরের উদ্দেশে যাত্রা করলেও তাঁদের শেষপর্যন্ত ফেরত পাঠিয়ে দেয় বারাসত পুলিশ প্রশাসন। লোকনাথ দেবের মন্দিরে জল ঢালতে না পেরে ক্ষোভে ফেটে পড়েন অনুগামীরা। পুলিশের সঙ্গে বচসায় জড়িয়ে পড়েন তাঁরা।

লোকনাথ মন্দিরে জল ঢালতে জন্মাষ্টমীর আগের দিন রাত থেকে প্রচুর মানুষ বাগবাজার থেকে জল ভরে মধ্যমগ্রাম ডাকবাংলো মোড় হয়ে কচুয়া–চাকলার দিকে যাচ্ছিলেন। তখন তাঁদের বারাসতের চাঁপাডালি মোড়ে আটকে দেয় পুলিশ। মন্দিরের উদ্দেশে আর এগোতে না দেওয়ায় পুলিশের সঙ্গে লোকনাথ বাবার ভক্তদের বচসা বেঁধে যায়।

সুব্রত বিশ্বাস নামে এক ভক্ত জানান, 'আশা করে বেরিয়েছিলাম, বাবার মাথায় জল ঢালতে পারব। গত বছর ঢালতে পারেনি। এবার হয়ত পারব। কিন্তু পুলিশ তো বলছে ফিরে যেতে।' অপর এক ভক্ত জানান, ‘‌আমরা তারকেশ্বরে গিয়ে জল ঢালতে পেরেছি। কিন্তু কচুয়ায় আমাদের যেতে দেওয়া হচ্ছে না। বলছে, করোনার জন্য নাকি বন্ধ আছে। তাই যেতে দেওয়া হচ্ছে না। আমরা বলেছি, আমরা মন্দিরে ঢুকব না। কোনও ভিড় করব না। মন্দিরের বাইরে থেকে জল ঢেকেই ফিরে আসব। কিন্তু আমাদের যেতে দেওয়া হচ্ছে না।’‌

বেশ কয়েকজন অনুগামীদের সঙ্গে কথা কাটাকাটিতে জড়িয়ে পড়েন পুলিশরা। অনুগামীদের পথ আটকে দেওয়ায় তাঁদের মধ্যে ক্ষোভ তৈরি হয়। পুলিশ তাঁদের বোঝানোর চেষ্টা করেন, মন্দির বন্ধ রয়েছে। তাই তাঁরা যেন বাড়ি ফেরত যান। কিন্তু প্রথম দিকে অনুগামীরা তা মানতে চাননি। তাঁরা ‘‌ভোলে বাবা পার কারেগা’‌ এই ধ্বনি তুলে বলতে থাকে, যেতে না দিলে ঘুরপথে যাবেন। এরপর রাস্তা পার হয়ে অন্য ফুটপাত দিয়ে যেতে নিলে তাঁদের পথ ফের আটকানো হয় ও জোর করেই তাঁদের বাড়িতে ফেরত পাঠানো হয়।

বন্ধ করুন