বাংলা নিউজ > বাংলার মুখ > অন্যান্য জেলা > লালবাজারের অপরাধ দমন শাখার অফিসারের পরিচয় দিয়ে জালিয়াতি করছিল যুবক
লালবাজারের অপরাধ দমন শাখার ভুয়ো পুলিশ পরিচয়ে আর্থিক প্রতারণা, ধৃত অভিযুক্ত : ছবিটি প্রতীকী
লালবাজারের অপরাধ দমন শাখার ভুয়ো পুলিশ পরিচয়ে আর্থিক প্রতারণা, ধৃত অভিযুক্ত : ছবিটি প্রতীকী

লালবাজারের অপরাধ দমন শাখার অফিসারের পরিচয় দিয়ে জালিয়াতি করছিল যুবক

ভুয়ো পরিচয় পত্র ও উর্দি পরেই প্রতারণা চক্রের ফাঁদ পেতে বসেছিল অভিযুক্ত 

সদ্য চন্দননগরের রাস্তায় নীল বাতি লাগানো গাড়িতে মদ্যপান করতে গিয়ে পুলিশের জালে উঠে এসেছিল ভুয়ো ডিএসপি। তার রেশ কাটতে না কাটতেই এবার লালবাজারের অপরাধ দমন শাখার ভুয়ো পুলিশ অফিসার পরিচয়ে আর্থিক প্রতারণার অভিযোগে বরানগর থেকে গ্রেফতার করা হল এক যুবককে। অভিযুক্তকে গ্রেফতার করেছে বরানগর থানা পুলিশ।

মঙ্গলবার অভিযুক্তকে নিজেদের হেফাজতে নেওয়ার জন্য আদালতে আবেদন জানিয়েছে পুলিশ। পুলিশ সূত্রে জানা গিয়েছে, অভিযুক্তের নাম অনিরুদ্ধ দত্ত। ধৃতের বিরুদ্ধে অভিযোগ উঠেছে, লালবাজারের অপরাধ দমন শাখার ইন্সপেক্টর পরিচয়ে লক্ষাধিক টাকা প্রতারণা করেছে অভিযুক্ত। শুধু তাই নয়, পুলিশ সূত্রে আরও জানা গিয়েছে, নকল পরিচয়পত্র ও পুলিশের নকল উর্দি পরে দিব্যি প্রতারণা চালাচ্ছিল অভিযুক্ত। 

অবশেষে প্রতারণার শিকার এক যুবকের অভিযোগের ভিত্তিতে অভিযুক্ত ওই ভুয়ো পুলিশ অফিসারকে হাতেনাতে গ্রেফতার করল পুলিশ। সোমবার সকলেই অনিরুদ্ধ দত্তের বিরুদ্ধে বরানগর থানায় অভিযোগ দায়ের করেন রথীন মল্লিক নামের এক যুবক।

প্রতারিত ওই যুবকের অভিযোগ, ব্যবসা সূত্রে তার সঙ্গে আলাপ হয় অনিরুদ্ধর। নিজেকে লালবাজারের অপরাধ দমন শাখার আধিকারিক পরিচয় তাঁর কাছ থেকে চাপ দিয়ে লক্ষাধিক টাকা আদায় করেছে অনিরুদ্ধ। পরে ওই যুবকের সন্দেহ হওয়ায়, খোঁজ খবর নিয়ে তিনি জানতে পারেন, অনিরুদ্ধ দত্ত নামের কোনও পুলিশ অফিসার লালবাজারের অপরাধ দমন শাখায় কর্মরত নেই। তখনই তিনি পুলিশের দ্বারস্থ হন। অভিযুক্ত ওই যুবককে গ্রেফতার করে তাকে জেরা করে তদন্তকারীরা জানতে পারেন, শুধু রথীনের কাছে থেকেই নয়, ভুয়া পরিচয় পত্র ও উর্দি পরে একাধিক ব্যক্তির কাছ থেকে লক্ষাধিক টাকা প্রতারণা করেছে সে। অভিযুক্ত আরো কার কার কাছ থেকে কত টাকা তুলেছে, এই চক্রের সঙ্গে অন্য কেউ জড়িত রয়েছে কিনা, তা জানতে তদন্ত শুরু করেছে পুলিশ ।

 

বন্ধ করুন