বাংলা নিউজ > বাংলার মুখ > অন্যান্য জেলা > উধাও হতে চলেছে বড়দিন, নববর্ষের কোলাহল, সোমবার থেকে দিঘার সমুদ্রে বন্ধ স্নান
উধাও হতে চলেছে বড়দিন, নববর্ষের কোলাহল, সোমবার থেকে দিঘার সমুদ্রে বন্ধ স্নান। (ছবিটি প্রতীকী, সৌজন্য পিটিআই)

উধাও হতে চলেছে বড়দিন, নববর্ষের কোলাহল, সোমবার থেকে দিঘার সমুদ্রে বন্ধ স্নান

অনেক পর্যটকরাই রয়েছে, যাঁরা আগামী কয়েকদিনের জন্য হোটেলের ঘর বুক করে রেখেছেন, তাঁদের ক্ষেত্রে কী হবে, সেটা বুঝে উঠতে পারছেন না হোটেল মালিকরা।

‌সোমবার থেকে বন্ধ রাজ্যের সব পর্যটনকেন্দ্র। এই খবর জানাজানি হতেই হতাশ দিঘায় ঘুরতে আসা অনেক পর্যটকই। পরিস্থিতির কথা বিচার করে ধাপে ধাপে এগোতে চাইছে প্রশাসন। তবে কড়া বিধিনিষেধ কার্যকর করার কাজ শুরু হয়ে যাবে।

পূর্ব মেদিনীপুর জেলা প্রশাসন সূত্রে খবর, রাজ্য সরকারের কড়া বিধিনিষেধ মেনেই কাল থেকে দিঘার সমুদ্রে স্নান করা বন্ধ করা হবে। সমুদ্র সৈকত গার্ড রেল দিয়ে ঢেকে ফেলা হবে। পাশাপাশি দিঘা-সহ আশেপাশের পর্যটনকেন্দ্রগুলিতে এই বিধিনিষেধের বিষয়ে মাইকিং করা হবে।

এই প্রসঙ্গে জেলাশাসক পূর্ণেন্দু মাজি জানান, করোনা যাতে আরও ছড়িয়ে পড়তে না পড়ে, তার জন্য সকলের সহযোগিতার প্রয়োজন। রাজ্য সরকারের নির্দেশিকা মেনেই কাজ হবে। তবে প্রশাসন মনে করছে, দিঘা-সহ আশেপাশের অন্যান্য পর্যটন কেন্দ্র একধাক্কায় বন্ধ করে দেওয়া মুশকিল। এখনও পর্যন্ত পর্যটন কেন্দ্র বন্ধ করার নির্দেশ এলেও হোটেলগুলিকে বন্ধ করার কোনও নির্দেশ আসেনি।

জানা যাচ্ছে, অনেক পর্যটকরাই রয়েছে, যাঁরা আগামী কয়েকদিনের জন্য হোটেলের ঘর বুক করে রেখেছেন, তাঁদের ক্ষেত্রে কী হবে, সেটা বুঝে উঠতে পারছেন না হোটেল মালিকরা। দিঘা হোটেলিয়ার্স অ্যাসোসিয়েশনের যুগ্ম-সম্পাদক বিপ্রদাস চট্টোপাধ্যায় জানান, 'দিঘায় থাকা এই পর্যটকদের কী হবে, তা নিয়ে যথেষ্ট উৎকণ্ঠায় রয়েছি। প্রশাসনের সঙ্গে এই বিষয়ে আলোচনা চলছে।'

চনা চলছে।'

বন্ধ করুন