বাড়ি > বাংলার মুখ > অন্যান্য জেলা > বাংলায় বাড়ি বাড়ি গিয়ে ১৬ কোটি সমীক্ষা, দেশে সর্বোচ্চ : মমতা
মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়
মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়

বাংলায় বাড়ি বাড়ি গিয়ে ১৬ কোটি সমীক্ষা, দেশে সর্বোচ্চ : মমতা

গত মাসের তুলনায় রাজ্যে করোনা পজিটিভ হওয়ার হার বেড়েছে। দ্বিগুণ হয়েছে আইএলআই এবং সারি কেস।

একটা সময় বাংলায় করোনাভাইরাস পরিস্থিতি ক্রমশ জটিল হচ্ছিল। সেই অবস্থায় বাড়ি বাড়ি গিয়ে সমীক্ষার শুরু করে রাজ্য সরকার। তারপর থেকে বাড়ি বাড়ি গিয়ে রাজ্যে ১৬ কোটি সমীক্ষা হয়েছে। যা দেশের মধ্যে সর্বোচ্চ। বুধবার নবান্নে এমন দাবি করলেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়।

সাংবাদিক বৈঠকে মুখ্যমন্ত্রী বলেন, ‘বাড়ি বাড়ি গিয়ে সমীক্ষা, আমি একটি ইংরেজি চ্যানেলে দেখছিলাম, একটা রাজ্যকে খুব গর্ব করে দেখানো হচ্ছিল। কোথাও কেউ বলছে, দেড় কোটি করেছি, কেউ বলছে তিন কোটি করেছি। কিন্তু আপনারা কি বাংলার কথা জানেন? বাংলা ১৬ কোটি করেছে।’

আড়াই কোটি পরিবারে কীভাবে ১৬ কোটি সমীক্ষা হয়েছে, সেই ব্যাখ্য়াও দেন মুখ্যমন্ত্রী। তিনি বলেন, '১৬ কোটি বাড়ি বাড়ি সমীক্ষা কীভাবে হল? আমার মোট ২.৫ কোটি পরিবার আছে। কিন্তু এক-একটা বাড়িতে কতবার গেলে ১৬ কোটি হয়? কিন্তু এটা আমাদের আশার মেয়েরা, যাঁরা করোনাভাইরাস যোদ্ধারা এই কাজটা খুব ভালোভাবে করেছেন। আমরা মনে করি, দেশে এটা সর্বোচ্চ।'

মমতা জানান, বাড়ি বাড়ি সমীক্ষা চালিয়ে প্রায় দু'লাখ ইনফ্লুয়েঞ্জা লাইক ইলনেস (আইএলআই) বা সিভিয়ার অ্যাকিউট রেসপিরেটরি ইনফেকশন (সারি) কেসের হদিশ মিলেছে। তিনি বলেন, ‘বাড়ি বাড়ি গিয়ে আমরা ১.৯২ লাখ আইএলআই কেস এবং সারিতে ভুগছেন এমন ৪,৩৩৭ জনকে চিহ্নিত করেছি। অর্থাৎ গত এক মাসে দ্বিগুণের আইএলআই এবং সারি কেস ধরা পড়েছে। মে’র প্রথম সপ্তাহে সেই সংখ্যা ৯৩,০০০-এর আশপাশে ছিল। 

একইসঙ্গে গত মাসের তুলনায় রাজ্যে করোনা পজিটিভ হওয়ার হার বেড়েছে। মুখ্যমন্ত্রী জানান, ৩১ মে পর্যন্ত করোনা পজিটিভ হওয়ার হার ছিল ২.৭ শতাংশ। এখন তা বেড়ে দাঁড়িয়েছে ৩.৪ শতাংশ।

বন্ধ করুন