বাংলা নিউজ > বাংলার মুখ > অন্যান্য জেলা > টার্গেট ছিল মহিলারা, কোলাঘাটে পাকড়াও কেপমারি চক্রের ২ সদস্য

টার্গেট ছিল মহিলারা, কোলাঘাটে পাকড়াও কেপমারি চক্রের ২ সদস্য

সাংবাদিক বৈঠকে পূর্ব মেদিনীপুরের পুলিশ সুপার। 

পুলিশ সূত্রে জানা গিয়েছে, ধৃত রাজা হালদার বাড়ি বারুইপুরে। লাল্টু হালদার বাড়ি কুলপি থানা এলাকায়। পুলিশ আধিকারিকরা জানিয়েছেন, সাত - আট জনের একটি দল পূর্ব মেদিনীপুরসহ একাধিক জেলায় প্রতারিত করতো সাধারণ মানুষকে।

কোলাঘাট থেকে কেপমারি চক্রের ২ সদস্যকে গ্রেফতার করল পূর্ব মেদিনীপুর পুলিশ। রাস্তায় পড়ে থাকা টাকা বাটোয়ারার নামে মহিলাদের গয়না নিয়ে চম্পট দিত তারা। রাজ্যের একাধিক জেলায় এভাবে লক্ষ লক্ষ টাকার প্রতারণা করেছে এই চক্র। রবিবার কোলাঘাটের হলদিয়া মোড় থেকে চক্রের ২ সদস্যকে গ্রেফতার করেন আধিকারিকরা। তাদের কাছ থেকে উদ্ধার হয়েছে আগ্নেয়াস্ত্র, কার্তুজ ও প্রচুর নগদ।

পুলিশ সূত্রে জানা গিয়েছে, ধৃত রাজা হালদার বাড়ি বারুইপুরে। লাল্টু হালদার বাড়ি কুলপি থানা এলাকায়। পুলিশ আধিকারিকরা জানিয়েছেন, সাত - আট জনের একটি দল পূর্ব মেদিনীপুরসহ একাধিক জেলায় প্রতারিত করতো সাধারণ মানুষকে। চক্রের টার্গেট ছিল একাকী মহিলারা। কোন মহিলাদের সামনে এই দলের একজন যুবক এসে জিজ্ঞাসা করত, কিছু টাকা রাস্তায় পড়ে রয়েছে সেটা তার কি না। এর পর আরও একজন এসে মহিলাকে একই প্রশ্ন করত। এর পর প্রথম যুবক বলত এই টাকার বান্ডিলের কোনও মালিক নেই, তাহলে আমরা ভাগ করে নিই। এই বলে মহিলার কাছ থেকে কিছু গয়না নিয়ে পুরো টাকার বান্ডিল তাকে দিয়ে দিত। পরে দেখা যেত বান্ডিলের প্রথম কয়েকটি নোট আসল। বাকি সব খবরের কাগজ সাজানো।

এ ভাবেই প্রতারনার ফাঁদে ফেলে পূর্ব মেদিনীপুরসহ দুই ২৪ পরগনা, কলকাতা ও একাধিক জেলায় লক্ষ লক্ষ টাকা হাতিয়েছে চক্রটি। গতকাল কোলাঘাট থানার পুলিশ গোপন সূত্রে খবর পেয়ে হলদিয়া মোড় থেকে ২ জনকে গ্রেপ্তার করে। তাদের কাছ থেকে একটি পিস্তল, একটি গুলি, ১ লক্ষ ১১ হাজার ৮০০ টাকা, একটি ছুরি এবং লোহার রড উদ্ধার করে পুলিশ। বাকিদের ধরার চেষ্টা চালাচ্ছে পুলিশ।

 

বন্ধ করুন