বাংলা নিউজ > বাংলার মুখ > অন্যান্য জেলা > বাংলায় ভোট পরবর্তী হিংসার নিয়ে উদ্বেগ, CJI-এর কাছে অভিযোগ ২০৯৩ মহিলা আইনজীবীর
বাংলায় ভোট পরবর্তী হিংসার নিয়ে অভিযোগ মহিলা আইনজীবীদের। ফাইল ছবি : হিন্দুস্তান টাইমস (HT_PRINT)
বাংলায় ভোট পরবর্তী হিংসার নিয়ে অভিযোগ মহিলা আইনজীবীদের। ফাইল ছবি : হিন্দুস্তান টাইমস (HT_PRINT)

বাংলায় ভোট পরবর্তী হিংসার নিয়ে উদ্বেগ, CJI-এর কাছে অভিযোগ ২০৯৩ মহিলা আইনজীবীর

বাংলায় ভোট পরবর্তী হিংসা নিয়ে উদ্বেগ প্রকাশ করে সুপ্রিমকোর্টের প্রধান বিচারপতি এনভি রামনার কাছে অভিযোগ জানালেন ২০৯৩ জন মহিলা আইনজীবী।

গত ২ মে রাজ্যের নির্বাচনের ফল প্রকাশের পর থেকেই দিকে দিকে হিংসা ছড়ায়। ঘটনায় উদ্বেগ প্রকাশ করে একাধিক জাতীয় কমিশন। শাসকদল তৃণমূলের বিরুদ্ধে তোপ দাগে বিজেপি। উদ্বেগ প্রকাশ করে বিভিন্ন জায়গায় যান রাজ্যপাল জগদীপ ধনখড়ও। এবার ভোট পরবর্তী হিংসা নিয়ে উদ্বেগ প্রকাশ করে সুপ্রিমকোর্টের প্রধান বিচারপতি এনভি রামনার কাছে অভিযোগ জানালেন ২০৯৩ জন মহিলা আইনজীবী।

পশ্চিমবঙ্গে ভোট পরবর্তী হিংসা সংক্রান্ত একাধিক মামলা এখনও পর্যন্ত দায়ের হয়েছে শীর্ষ আদালতে। এই পরিস্থিতিতে এবার মহিলা আইনজীবীরা এরাজ্য়ের আইনশৃঙ্খলা পরিস্থিতি প্রসঙ্গে শীর্ষ আদালতের প্রধান বিচারপতির দৃষ্টি আকর্ষণ করতে চাইলেন। ইতিমধ্যেই সুপ্রিমকোর্ট রাজ্যে ঘটে যাওয়া ভোট পরবর্তী হিংসা নিয়ে রিপোর্ট চেয়ে পাঠিয়েছে। তবে মমতার সরকারের তরফে এই প্রসঙ্গে কোনও জবাব দেওয়া হয়নি। এরই মাঝে, বাংলা নিয়ে প্রধান বিচারপতিকে একটি চিঠি লিখে নালিশ জানালেন মহিলা আইনজীবীরা।

আইনজীবীদের অভিযোগ, গত ২ মে পশ্চিমবঙ্গ বিধানসভা নির্বাচনের ফল প্রকাশ্র পর থেকেই রাজ্যের আইনশৃঙ্খলা পরিস্থিতি ভেঙে পড়ে। এখনও পর্যন্ত সেই পরিস্থিতির উন্নতি হয়নি। এর জেরে বাংলার বর্তমান পরিস্থিতির দিকে প্রধান বিতারপতির দৃষ্টি আকর্ষণ করতেই এই চিঠি। আইনজীবীদের দাবি, বিষয়টি নিয়ে স্বতঃপ্রণোদিতভাবে কোনও পদক্ষেপ করা হোক শীর্ষ আদালতের তরফে।

উল্লেখ্য, কয়েকদিন আগেই পশ্চিমবঙ্গে জরুরি অবস্থা জারির আবেদন জানিয়ে জনস্বার্থ মামলা রুজু হয় সুপ্রিমকোর্টে। পাশাপাশি অপর একটি আবেদনে রাজ্য়ে ভোট পরবর্তী হিংসার তদন্তের জন্য সিট গঠন করার আর্জি জানানো হয়। দাবি করা হয়েছে, একুশের বিধানসভা নির্বাচনের পরই পশ্চিমবঙ্গজুড়ে হিংসার বাতাবরণ তৈরি হয়েছে৷ ঘরছাড়া হতে হয়েছে অসংখ্য মানুষকে৷ অবিলম্বে এই ঘরছাড়াদের ঘরে ফেরানো, করোনা এই পরিস্থিতিতে তাঁদের সকলের জন্য খাবার, ওষুধ-সহ যাবতীয় অত্যাবশ্যকীয় পণ্য সরবরাহ ও নিরাপত্তার ব্য়বস্থা করা হোক।

বন্ধ করুন