বাংলা নিউজ > বাংলার মুখ > অন্যান্য জেলা > প্রধানসহ ৩ পঞ্চায়েত সদস্য তৃণমূলে, বিজেপির হাতছাড়া হল পঞ্চায়েত
শুক্রবার বনগাঁয় তৃণমূলের যোগদান অনুষ্ঠান।
শুক্রবার বনগাঁয় তৃণমূলের যোগদান অনুষ্ঠান।

প্রধানসহ ৩ পঞ্চায়েত সদস্য তৃণমূলে, বিজেপির হাতছাড়া হল পঞ্চায়েত

  • শুক্রবার দুপুরে তৃণমূলের বনগাঁ সাংগঠনিক জেলা কার্যালয়ে এসে তারা আনুষ্ঠানিকভাবে দলবদল করেন তাঁরা৷ তাঁদের হাতে তৃণমূলের পতাকা তুলে দিয়ে বরণ করে নেন বনগাঁ সাংগঠনিক জেলার সভাপতি গোপাল শেঠ ও সাংগঠনিক জেলার চেয়ারম্যান শংকর দত্ত।

বিজেপি প্রধানসহ ৩ পঞ্চায়েত সদস্যর তৃণমূলে যোগদান করায় উত্তর ২৪ পরগনার গাইঘাটায় পঞ্চায়েতের দখল নিল তৃণমূল। গাইঘাটা ব্লকের ধর্মপুর ২ পঞ্চায়েতের বিজেপির প্রধান ও তিন জন বিজেপির পঞ্চায়েত সদস্য ও একজন নির্দল পঞ্চায়েত সদস্য শুক্রবার তৃণমূলে যোগদান করেন। শুক্রবার দুপুরে তৃণমূলের বনগাঁ সাংগঠনিক জেলা কার্যালয়ে এসে তারা আনুষ্ঠানিকভাবে দলবদল করেন তাঁরা৷ তাঁদের হাতে তৃণমূলের পতাকা তুলে দিয়ে বরণ করে নেন বনগাঁ সাংগঠনিক জেলার সভাপতি গোপাল শেঠ ও সাংগঠনিক জেলার চেয়ারম্যান শংকর দত্ত। এই যোগদানের ফলে বিজেপির দখলে থাকা ওই পঞ্চায়েত তৃণমূলের দখলে এল।

উত্তর ২৪ পরগনা গাইঘাটা ব্লকের ধর্মপুর ২ গ্রাম পঞ্চায়েতের মোট আসন ১৬। ২০১৮ সালের পঞ্চায়েত নির্বাচনে ৮টি আসনে জয়ী হয় বিজেপি, ২ নির্দল ও তৃণমূল কংগ্রেস পায় ৬টি আসন। ভোটে জিতে এক নির্দল প্রার্থী তৃণমূল যোগদান করেন। অন্য নির্দল সদস্য বিজেপিকে সমর্থন করেন। পরবর্তীতে বিজেপির ৮ জন সদস্য ও ১ নির্দল সমর্থনে পঞ্চায়েত গঠন করে বিজেপি । প্রধান হন নীলাদ্রি ঢালি।

বিজেপি নেতা দেবদাস মণ্ডল বলেন, ২০১১ সাল থেকে সারা পশ্চিমবঙ্গে দল ভাঙার খেলা শুরু করেছে তৃণমূল। সামনে পঞ্চায়েত নির্বাচন। সেই কারণে একের পর এক পঞ্চায়েত জোর করে নিয়ে নিচ্ছে। যদি অফ ক্যামেরা এই প্রধানকে জিজ্ঞাসা করা হয় যে তিনি স্বেচ্ছায় তৃণমূলে গিয়েছেন না চাপের মুখে গিয়েছেন তাহলে জবাব পাবেন। কেউ স্বেচ্ছায় যাচ্ছে না। যারা যাচ্ছে তারা ভয় পেয়ে যাচ্ছে । এখানে বিরোধীদল করা মানে একটি কঠিন লড়াই।

 

বন্ধ করুন