বাংলা নিউজ > বাংলার মুখ > অন্যান্য জেলা > Sitalkuchi firing case: শীতলকুচি গুলি কাণ্ডে নিম্ন আদালতে জামিন পেলেন অভিযুক্ত ৬ CISF জওয়ান

Sitalkuchi firing case: শীতলকুচি গুলি কাণ্ডে নিম্ন আদালতে জামিন পেলেন অভিযুক্ত ৬ CISF জওয়ান

শীতলকুচির সেই ভোটগ্রহণ কেন্দ্র। (ফাইল ছবি, সৌজন্য পিটিআই)

২০২১ সালের বিধানসভা নির্বাচনের চতুর্থ দফায় ভোট পর্ব চলাকালীন শীতলকুচিতে ঘটেছিল গুলি চালানোর ঘটনা। ১০ এপ্রিল শীতলকুচি বিধানসভা কেন্দ্রের জোড়পাটকি গ্রাম পঞ্চায়েতের ৫/১২৬ নম্বর বুথে ভোটগ্রহণ চলাকালীন গুলি চালানো হয়েছিল। সেই ঘটনায় তোলপাড় হয়ে উঠেছিল গোটা রাজ্য রাজনীতি।

শীতলকুচি কাণ্ডে উচ্চ আদালতে আগেই জামিন পেয়েছিলেন অভিযুক্ত ৬ সিআইএসএফ জওয়ান। এবার নিম্ন আদালত থেকে জামিন নিলেন ৬ জন। শুক্রবার মাথাভাঙা মহকুমা আদালতে হাজির হয়ে অভিযুক্তরা জামিন নিয়েছেন। নিম্ন আদালত ওই ৬ জওয়ানকে হাজির হওয়ার নির্দেশ দিয়েছিল। কিন্তু, তাঁরা হাজির হয়নি। এরপর কলকাতা হাইকোর্টের দ্বারস্থ হন অভিযুক্তরা। এদিন তাঁদের জামিন দিয়েছে আদালত।

২০২১ সালের বিধানসভা নির্বাচনের চতুর্থ দফায় ভোট পর্ব চলাকালীন শীতলকুচিতে ঘটেছিল গুলি চালানোর ঘটনা। ১০ এপ্রিল শীতলকুচি বিধানসভা কেন্দ্রের জোড়পাটকি গ্রাম পঞ্চায়েতের ৫/১২৬ নম্বর বুথে ভোটগ্রহণ চলাকালীন গুলি চালানো হয়েছিল। সেই ঘটনায় তোলপাড় হয়ে উঠেছিল গোটা রাজ্য রাজনীতি। অভিযোগ উঠেছিল, সিআইএসএফ জওয়ানরা গুলি চালিয়েছিলেন। এর ফলে মৃত্যু হয়েছিল ৪ যুবকের। মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় তৃতীয়বার ক্ষমতায় আসার পরেই এই ঘটনায় তদন্তের কথা জানিয়েছিলেন। সেই মতো ঘটনার তদন্তভার দেওয়া হয় সিআইডির হাতে। তদন্তে নেমে সিআইডি ঘটনার পুনর্নির্মাণ করে। এছাড়া পরিবারের সদস্য এবং এলাকাবাসীদের সঙ্গে কথা বলে আদালতে রিপোর্ট জমা দেয়। সিআইডি রিপোর্ট খতিয়ে দেখার পর নিম্ন আদালত তাঁদের হাজির হতে বলে। কিন্তু বেশ কয়েকবার হাজির হওয়ার নোটিশ দেওয়ার পরেও নিম্ন আদালতে হাজির হননি অভিযুক্ত সিআইএসএফ জওয়ানরা। ঘটনায় কলকাতা হাইকোর্টের দ্বারস্থ হন ৬ জন। সেখানে তাঁদের জামিন দেওয়া হয়।

কেন্দ্রীয় সরকারের আইনজীবী কৌশিক ভদ্র জানিয়েছেন, ২০২১ সালে শীতলকুচির ওই বুথে গুলি চালানোর ঘটনা ঘটেছিল। সিআইএসএফ জওয়ানরা সেই সময় ডিউটিতে ছিলেন। ঘটনায় তাঁদের বিরুদ্ধে মামলা দায়ের হয়। সিআইডি তদন্তভার গ্রহণ করার পরে আদালতে একটি সিআর কেস ফাইল করেছিল। সেই মামলায় আদালতে হাজির করানোর জন্য নোটিশ দেওয়া হয়েছিল। কিন্তু, তাঁরা হাজির হননি। এরই মধ্যে তাঁরা কলকাতা হাইকোর্টে জামিনের আবেদন জানিয়েছিলেন। তাতে জামিন দিয়েছিল হাইকোর্ট। শুক্রবার মাথাভাঙা মহকুমা আদালত থেকে তাঁরা জামিন নিয়েছেন।

এই খবরটি আপনি পড়তে পারেন HT App থেকেও। এবার HT App বাংলায়। HT App ডাউনলোড করার লিঙ্ক https://htipad.onelink.me/277p/p7me4aup

বন্ধ করুন