বাংলা নিউজ > বাংলার মুখ > অন্যান্য জেলা > নিখোঁজ চতুর্থ শ্রেণির ছাত্রীর ঝুলন্ত দেহ উদ্ধার, খুন না আত্মহত্যা?‌ তদন্তে পুলিশ
মৃত দেহের প্রতীকী ছবি
মৃত দেহের প্রতীকী ছবি

নিখোঁজ চতুর্থ শ্রেণির ছাত্রীর ঝুলন্ত দেহ উদ্ধার, খুন না আত্মহত্যা?‌ তদন্তে পুলিশ

  • কিন্তু বাড়ি ফেরার পর দেখেন মেয়ে ফেরেনি। খোঁজাখুঁজি করেও সন্ধান মেলেনি মেয়েটির।

খেলতে গিয়ে নিখোঁজ হয়েছিল চতুর্থ শ্রেণির ছাত্রী। আজ তার ঝুলন্ত দেহ উদ্ধার হল। এই ঘটনায় চাঞ্চল্য ছড়িয়ে পড়েছে পশ্চিম মেদিনাপুরের সবংয়ে। এখানেই ঝুলন্ত দেহ উদ্ধার হয়েছে চতুর্থ শ্রেণির ছাত্রীর। এই ঘটনার পর প্রশ্ন উঠেছে, এটা খুন নাকি আত্মহত্যা? মৃত ছাত্রীর নাম মাম্পি খাটুয়া (‌১০)‌। গতকাল সে খেলতে গিয়ে নিখোঁজ হয়েছিল।

স্থানীয় সূত্রে খবর, সবং ব্লকের ৫ নম্বর সারতা অঞ্চলের বীরকোটা গ্রামের বাসিন্দা পূর্ণচন্দ্র খাটুয়া। স্ত্রী বিষ্ণুপ্রিয়া খাটুয়া। তাঁদের বড় মেয়ে মাম্পি খাটুয়া এবং ৩ বছরের ছেলে রয়েছে। এখানের একটি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের চতুর্থ শ্রেণির ছাত্রী মাম্পি। রবিবার বিকেলে বাবা–মা যখন জমিতে চাষ করতে গিয়েছিলেন, তখন বাড়ির পাশে একটি মাঠে খেলতে যায় ওই ছাত্রী। কিন্তু বাড়ি ফেরার পর দেখেন মেয়ে ফেরেনি। খোঁজাখুঁজি করেও সন্ধান মেলেনি মেয়েটির।

পুলিশ সূত্রে খবর, এই ঘটনার পর থানায় নিখোঁজ ডায়েরি করেন এই পরিবার। পুলিশও খোঁজখবর করতে শুরু করে। সকালেই বাড়ির রান্নাঘরে ওই চতুর্থ শ্রেণির ছাত্রীর ঝুলন্ত দেহ দেখতে পান পরিবারের সদস্যরা। খবর দেওয়া হয় থানায়। ওই ছাত্রীকে উদ্ধার করে স্থানীয় একটি হাসপাতালে নিয়ে গেলে সেখানে চিকিৎসকরা তাকে মৃত বলে ঘোষণা করেন। সবং থানার পুলিশ ওই ছাত্রীর মৃতদেহ উদ্ধার করে নিয়ে ময়নাতদন্তের জন্য পাঠিয়েছে।

এটা কী আত্মহত্যা?‌ নাকি খুন?‌ পরিবারের সদস্যরা জানাচ্ছেন, মাম্পি কোনওভাবে আত্মহত্যা করতে পারে না। এই ঘটনার নেপথ্যে অন্য কোনও রহস্য রয়েছে। এই ঘটনার তদন্তের দাবি জানিয়েছে মৃত ছাত্রীর পরিবার। এমনকী একটি অস্বাভাবিক মৃত্যুর অভিযোগ দায়ের করে তদন্ত শুরু করেছে পুলিশ। মনে করা হচ্ছে পরিবারের সঙ্গে কারও শত্রুতা ছিল। তাই পরিবারের দুর্বল জায়গায় আঘাত করা হয়েছে।

বন্ধ করুন