বাংলা নিউজ > বাংলার মুখ > অন্যান্য জেলা > Suicide: ‌রাতের অন্ধকারে আত্মঘাতী নাবালিকা, গোপীবল্লভপুরে ব্যাপক আলোড়ন

Suicide: ‌রাতের অন্ধকারে আত্মঘাতী নাবালিকা, গোপীবল্লভপুরে ব্যাপক আলোড়ন

আত্মহত্যা করল এক নাবালিকা প্রতীকী ছবি

বাড়ির সদস্যরা তড়িঘড়ি ওই নাবালিকার দেহ উদ্ধার করে গোপীবল্লভপুর সুপার স্পেশালিটি হাসপাতালে নিয়ে যান। কিন্তু সেখানে চিকিৎসকরা তাকে মৃত বলে ঘোষণা করেন। পুলিশ এসে মৃতদেহটি ময়নাতদন্তের জন্য ঝাড়গ্রাম সুপার স্পেশালিটি হাসপাতালে নিয়ে যায়। এই ঘটনায় শোকের ছায়া নেমে এসেছে।

এবার গলায় ফাঁস দিয়ে আত্মহত্যা করল এক নাবালিকা বলে খবর। এই ঘটনায় ব্যাপক শোরগোল পড়ে গিয়েছে পশ্চিম মেদিনীপুরের গোপীবল্লভপুরে। নাবালিকার রহস্যজনক মৃত্যুর নেপথ্য কী কারণ?‌ তা নিয়ে ধোঁয়াশা তৈরি হয়েছে। যদিও পরিবার এই বিষয়ে কিছু বলতে পারছেন না। তদন্তে নেমেছে পুলিশ। সেখান থেকেই অনেকগুলি ক্লু পাচ্ছে পুলিশ।

ঠিক কী ঘটেছে গোপীবল্লভপুরে?‌ পুলিশ সূত্রে খবর, ওই নাবালিকার বাড়ি গোপীবল্লভপুর ১নং ব্লকের শাশড়া অঞ্চলের হুমটিয়া এলাকায়। ইদানিং নাবালিকা হতাশায় ভুগছিল। সেখান থেকেই আত্মহত্যার সিদ্ধান্ত নিয়েছে সে বলে প্রাথমিক তদন্তে মনে করা হচ্ছে। তবে ময়নাতদন্তের রিপোর্ট সামনে আসলে বোঝা যাবে প্রকৃত কারণ কী।

ঠিক কী বক্তব্য পরিবারের?‌ পরিবার সূত্রে খবর, রাতের খাবার খেয়ে প্রত্যেকদিনের মতোই ঘুমোতে যায় নাবালিকা। সকালে তার ঠাকুমা ঘুম থেকে উঠে রান্নাঘরে যেতে গিয়ে দেখেন নাবালিকার ঝুলন্ত দেহ। আর তা দেখে চিৎকার করে ওঠেন। তাতে পরিবারের অন্যান্য সদস্যদের ঘুম ভেঙে যায়। চিৎকার শুনেই পরিবারের সবাই ছুটে আসেন।

তারপর সেখানে কী হল?‌ বাড়ির সদস্যরা তড়িঘড়ি ওই নাবালিকার দেহ উদ্ধার করে গোপীবল্লভপুর সুপার স্পেশালিটি হাসপাতালে নিয়ে যান। কিন্তু সেখানে চিকিৎসকরা তাকে মৃত বলে ঘোষণা করেন। পুলিশ এসে মৃতদেহটি ময়নাতদন্তের জন্য ঝাড়গ্রাম সুপার স্পেশালিটি হাসপাতালে নিয়ে যায়। এই ঘটনায় শোকের ছায়া নেমে এসেছে।

বন্ধ করুন