বাংলা নিউজ > বাংলার মুখ > অন্যান্য জেলা > ময়নাগুড়িতে ছোট বোনের দোলনায় দোল খেতে গিয়ে মর্মান্তিক মৃত্যু দিদির
মৃতদেহের প্রতীকী ছবি।

ময়নাগুড়িতে ছোট বোনের দোলনায় দোল খেতে গিয়ে মর্মান্তিক মৃত্যু দিদির

মৃত ছাত্রীর নাম সোনালী সরকার (১৬)।ময়নাগুড়ির উল্লাডাবরী গ্রামের বাসিন্দা।

দোলনায় দোল খেতে গিয়ে মর্মান্তিক ঘটনা ঘটল। দোলনার দড়ি গলায় জড়িয়ে মৃত্যু হল এক দশম শ্রেণির ছাত্রীর। জলপাইগুড়ির ময়নাগুড়িতে এই ঘটনাকে কেন্দ্র করে ব্যাপক চাঞ্চল্য ছড়িয়েছে। একইসঙ্গে এরকম মর্মান্তিক ঘটনায় শোকের ছায়া নেমে এসেছে পরিবারে। মৃত ছাত্রীর নাম সোনালী সরকার (১৬)।ময়নাগুড়ির উল্লাডাবরী গ্রামের বাসিন্দা।

পারিবারিক সূত্রে জানা গিয়েছে, ওই ছাত্রীর বোনের বয়স ৫ বছর। ছোট মেয়ের জন্য দোলনা বানিয়ে ছিলেন বাবা রামপ্রসাদ সরকার। তিনি একটি সোনার দোকানে কাজ করেন। মর্মান্তিক ঘটনাটি ঘটেছে গত বুধবার। ওই দিনও তিনি কাজে বেরিয়েছিলেন। দুর্ঘটনার খবর পেয়ে তিনি দ্রুত বাড়িতে ছুটে আসেন। পরে বড় মেয়েকে স্থানীয় হাসপাতালে নিয়ে যান। সেখানে চিকিৎসকরা মৃত ঘোষণা করেন। পরিবারের সদস্যরা জানিয়েছেন, ছোট বোনের জন্য তৈরি দোলনাতে দোল খেতে গিয়েছিল সোনালী। সেই সময় কোনওভাবে দোলনার দড়ি তার গলায় পেঁচিয়ে যায়। প্রাণপণ চেষ্টা করেও তা ছাড়াতে পারেনি। তার জেরেই শ্বাসরোধ হয়ে মৃত্যু হয় সোনালীর। পরিবারের সদস্যরা জানাচ্ছেন, মাঝেমধ্যেই ছোট বোনের দোলনায় দোল খেত সোনালী। কিন্তু, এদিন দোল খেতে গিয়ে যে এরকম ঘটবে তা কেউই ভাবতে পারেননি।

এই ঘটনায় অস্বাভাবিক মৃত্যুর মামলা রুজু করে তদন্ত শুরু করেছে পুলিশ। গতকাল মৃতদেহ ময়নাতদন্ত করা হয়েছে। এরপর মৃতদেহ পরিবারের হাতে তুলে দেওয়া হয়েছে বলে পুলিশ সূত্রে খবর। কীভাবে এই ঘটনা ঘটল তা কিছুতেই বুঝে উঠতে পারছেন না পরিবারের সদস্যরা। এরকম মৃত্যুর ঘটনায় শোকের ছায়া নেমে এসেছে ওই পরিবারে। গোটা বিষয়টি খতিয়ে দেখছে পুলিশ।

বন্ধ করুন