বাংলা নিউজ > বাংলার মুখ > অন্যান্য জেলা > আত্মহত্যা করতে গঙ্গায় ঝাঁপ দিয়েও বেঁচে ফিরলেন বৃদ্ধা
নিজস্ব চিত্র
নিজস্ব চিত্র

আত্মহত্যা করতে গঙ্গায় ঝাঁপ দিয়েও বেঁচে ফিরলেন বৃদ্ধা

  • এরপর সুকুমার সরকার নামে এক মৎসজীবী নৌকা নিয়ে গিয়ে ওই বৃদ্ধাকে উদ্ধার করেন।

‌কথায় বলে ‘‌রাখে হরি তো মারে কে।’‌ ঠিক তাই হল। ছেলেকে হারিয়ে শোকে কাতর ৬৫ বছরের এক বৃদ্ধা গঙ্গায় ঝাঁপ দিয়েছিলেন। কিন্তু তাঁকে অবশ্য উদ্ধার করে নিয়ে আসা সম্ভব হয়েছে। স্থানীয় হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে ওই বৃদ্ধাকে। হাসপাতাল সূত্রে খবর, সুস্থ রয়েছেন ওই বৃদ্ধা।

ঘটনাটি ঘটেছে শান্তিপুরের বেলঘড়িয়া পঞ্চদেবতা ঘাটে। গত বুধবার মাঝ গঙ্গা দিয়ে এক বৃদ্ধার দেহ ভেসে আসতে দেখেন মৎসজীবীরা। এরপর সুকুমার সরকার নামে এক মৎসজীবী নৌকা নিয়ে গিয়ে ওই বৃদ্ধাকে উদ্ধার করেন। উদ্ধার করার পর মৎসজীবীরা প্রথমে ভেবেছিলেন, বৃদ্ধা বোধহয় মারা গিয়েছে। কিন্তু যাননি। কিছুক্ষণের মধ্যেই তাঁর জ্ঞান ফিরে আসে। তাঁর পরিচয় জিজ্ঞাসা করতেই বৃদ্ধা জানান, তাঁর নাম লক্ষ্মী প্রামাণিক। তাঁর বাড়ি বর্ধমানের মেমারিতে। তাঁর স্বামী নেই। ৪ মাস আগেই তাঁর ছেলে মারা গেছে। অনেকদিন ধরেই মানসিক অবসাদে ভুগছিলেন তিনি। তাই আত্মহত্যার পথ বেছে নিয়েছিলেন। বৃদ্ধা জানান, বাড়ি থেকে বেড়িয়ে সমুদ্রগড় ঘাটে গিয়ে গঙ্গায় ঝাঁপ দিয়েছিলেন। স্থানীয় বাসিন্দাদের মতে, ২৫ কিলোমিটার জলে ভেসে থাকার পরও কোনও শারীরিক সমস্যা হয়নি বৃদ্ধার।

সব কথা জানতে পেরে স্থানীয় বাসিন্দারা তাঁর প্রাথমিক সেবা করেন। এরপর শান্তিপুর থানায় খবর দেওয়া হয়। পুলিশ এসে বৃদ্ধাকে শান্তিপুর স্টেট জেনারেল হাসপাতালে ভর্তি করায়। জানা গিয়েছে, চিকিৎসায় সাড়া দিচ্ছেন বৃদ্ধা। পুলিশ ওই বৃদ্ধার পরিবারের সঙ্গে যোগাযোগের চেষ্টা চালাচ্ছে।

বন্ধ করুন