বাংলা নিউজ > বাংলার মুখ > অন্যান্য জেলা > দিঘার সমুদ্রে তলিয়ে গিয়ে মৃত্যু পর্যটকের, প্রশ্নের মুখে পুলিশি নিরাপত্তা
দিঘার সমুদ্রে তলিয়ে গেলেন এক পর্যটক।

দিঘার সমুদ্রে তলিয়ে গিয়ে মৃত্যু পর্যটকের, প্রশ্নের মুখে পুলিশি নিরাপত্তা

  • বারবার সমুদ্রে তলিয়ে পর্যটকদের মৃত্যুর ঘটনা ঘটছে। তাতে একাধিক প্রশ্নচিহ্ন দেখা দিয়েছে! পুলিশের ভূমিকা নিয়ে প্রশ্ন উঠছে। উত্তাল সমুদ্রে কেন পুলিশ সমুদ্র স্নানে বাধা দিল না? এখন ঘটনা ঘটে যাওয়ার পর দিঘা মোহনা থানা মৃতদেহটি উদ্ধার করে ময়নাতদন্তে পাঠিয়েছে। পুরোও ঘটনাটি খতিয়ে দেখা হচ্ছে।

সমুদ্রসৈকত দিঘায় দুর্ঘটনা লেগেই রয়েছে। কখনও কাঁকড়া খেয়ে মৃত্যু, কখনও হোটেল মালিকের সঙ্গে বচসা, কখনও সমুদ্রে স্নান করতে গিয়ে তলিয়ে যাওয়ার ঘটনা ঘটেই চলেছে। এবার আবার সৈকতনগরী দিঘায় সমুদ্র স্নান করতে নেমে তলিয়ে গেলেন এক পর্যটক। পুলিশ–নুলিয়ারা অনেক কষ্টে উদ্ধার করে হাসপাতালে নিয়ে গেলে মৃত বলে ঘোষণা করা হয় তাঁকে। মৃতদেহটি কাঁথি হাসপাতালে ময়নাতদন্তের জন্য পাঠানো হয়েছে।

ঠিক কী ঘটেছে দিঘায়?‌ পুলিশ সূত্রে খবর, মৃত পর্যটকের নাম রতন সামন্ত (৪৭)। তাঁর বাড়ি উওর ২৪ পরগনার জেলার দত্তপুকুর এলাকায়। শনিবার দত্তপুকুর এলাকা থেকে ৫৪ জনের পর্যটকের দল দিঘায় বেড়াতে আসেন। আজ, রবিবার তাদের ফিরে যাওয়ার কথা ছিল। দিঘার জগন্নাথ ঘাটের সমুদ্র স্নানে নামেন তাঁরা। সপরিবারে স্নান করার সময় তলিয়ে যায় রতন সামন্ত।

তারপর সেখানে কী ঘটল?‌ এদিকে রতনের তলিয়ে যাওয়া দেখে পরিবারের সদস্য এবং অন্যান্যরা চিৎকার জুড়ে দেন। তখন ছুটে আসেন কর্তব্যরত নুলিয়ারা। দিঘা মোহনা থানার পুলিশ সেখানে হাজির হন। নিখোঁজ পর্যটকের খোঁজে শুরু হয় তল্লাশি। এরপরই পর্যটকের দেহ ভেসে ওঠে। তৎক্ষমাৎ দিঘা হাসপাতালে নিয়ে গেলে পর্যটককে চিকিৎসকরা মৃত বলে ঘোষণা করেন।

কেন এমন ঘটনা ঘটল?‌ অন্যদিকে বারবার সমুদ্রে তলিয়ে পর্যটকদের মৃত্যুর ঘটনা ঘটছে। তাতে একাধিক প্রশ্নচিহ্ন দেখা দিয়েছে! পুলিশের ভূমিকা নিয়ে প্রশ্ন উঠছে। উত্তাল সমুদ্রে কেন পুলিশ সমুদ্র স্নানে বাধা দিল না? এখন ঘটনা ঘটে যাওয়ার পর দিঘা মোহনা থানা মৃতদেহটি উদ্ধার করে ময়নাতদন্তে পাঠিয়েছে। পুরোও ঘটনাটি খতিয়ে দেখা হচ্ছে।

বন্ধ করুন