বাংলা নিউজ > বাংলার মুখ > অন্যান্য জেলা > অস্ত্র বিক্রির বিজ্ঞাপন সোশ্যাল মিডিয়ায়, ভাটপাড়া থেকে গ্রেফতার যুবক
ভাটপাড়া থেকে ওই যুবককে গ্রেফতার করল মানিকতলা থানার পুলিশ। ছবি–স্ক্রিনশট।
ভাটপাড়া থেকে ওই যুবককে গ্রেফতার করল মানিকতলা থানার পুলিশ। ছবি–স্ক্রিনশট।

অস্ত্র বিক্রির বিজ্ঞাপন সোশ্যাল মিডিয়ায়, ভাটপাড়া থেকে গ্রেফতার যুবক

  • পুলিশ সূত্রে খবর, ধৃত যুবকের নাম কিষাণ জয়স্বরা। বাড়ি, ভাটপাড়ার হরিশ চৌধুরী রোডে।

সোশ্যাল মিডিয়ায় পোস্ট করেছিলেন এক যুবক। সে অস্ত্র বিক্রির করতে চেয়েছিল এভাবেই! রীতিমতো ছক কষেই এই পোস্ট করা হয়েছিল। কিন্তু শেষরক্ষা হলো না। ভাটপাড়া থেকে ওই যুবককে গ্রেফতার করল মানিকতলা থানার পুলিশ। ধৃতের কাছে মিলল রিভলভার ও কার্তুজ। মাত্র ২৪ বছরের যুবক। কিন্তু সোশ্যাল মিডিয়ার নেশায় বুঁদ সে।

পুলিশ সূত্রে খবর, ধৃত যুবকের নাম কিষাণ জয়স্বরা। বাড়ি, ভাটপাড়ার হরিশ চৌধুরী রোডে। হোয়াটসঅ্যাপ ও ফেসবুকের একটি গ্রুপে সে অস্ত্র বিক্রি করতে চেয়ে পোস্ট দেয় কিষাণ। গোপন সূত্রে সেই খবর পৌঁছে যায় মানিকতলা থানায়। পরিকল্পনা করে নজরদারি শুরু করেন পুলিশকর্তারা। শেষপর্যন্ত ভাটপাড়া থেকে গ্রেফতার করা হয় অভিযুক্তকে। কিষান জয়স্বরা হরিশ নিয়োগী রোডের বাসিন্দা। তার কাছ থেকে কার্তুজ এবং এইটএমএম পিস্তল বাজেয়াপ্ত করা হয়েছে। তবে অভিযুক্তের দাবি, তার ফেসবুক প্রোফাইল হ্যাক হয়েছিল। তার কাছে আগ্নেয়াস্ত্র কীভাবে এল খতিয়ে দেখা হচ্ছে।

এদিকে পুলিশ একটি সূত্র জানাচ্ছে, এই যুবকের বিরুদ্ধে বেশ কয়েকটা মামলা আগেও রযেছে। তার বিরুদ্ধে ফের নতুন করে অস্ত্র আইনেও মামলা দায়ের করা হলো। ওই যুবক একা নয়, সোশ্যাল মিডিয়ায় অস্ত্রের কারবারের সঙ্গে জড়িত আরও বেশ কয়েকজন। একটা চক্র কাজ করছিল। ধৃতকে জেরা করে কয়েকজনের নামও জানতে পেরেছেন তদন্তকারীরা। ওই যুবক হোয়াটসঅ্যাপ গ্রুপ তৈরি করে আগ্নেয়াস্ত্র বিক্রির ছক কষেছিল।

অন্যদিকে যুবককে জেরা করে উত্তর ২৪ পরগনার ভাটপাড়াতে হানা দেয় পুলিশ। সোশ্যাল মিডিয়ায় সরাসরি বিজ্ঞাপন দিয়ে অস্ত্র বিক্রির চেষ্টা অভিনব বলেই মনে করছেন তদন্তকারীরা। আগে ওই যুবক এভাবে কাউকে আগ্নেয়াস্ত্র বিক্রি করেছে নাকি এই প্রথম তা খতিয়ে দেখছে পুলিশ। উল্লেখ্য, জুলাই মাসের গোড়ার দিকে গুলি চলেছিল থানার ঢিল ছোঁড়া দূরত্বে। ভাটপাড়া পুরসভার দোরগোড়ায়। প্রাণে রক্ষা পেয়েছিলেন পুর–প্রশাসক হিমাংশু সরকার। আহত হন তাঁর সহকারী সৌরভ দাস।

বন্ধ করুন