বাংলা নিউজ > বাংলার মুখ > অন্যান্য জেলা > আত্মহত্যা করতে রেললাইনে শুয়ে পড়েন যুবতী, পুরুলিয়ায় ধেয়ে এল মালগাড়ি, তারপর?
আত্মহত্যা করতে রেল লাইনে শুয়ে পড়েন যুবতী৷

আত্মহত্যা করতে রেললাইনে শুয়ে পড়েন যুবতী, পুরুলিয়ায় ধেয়ে এল মালগাড়ি, তারপর?

  • পুলিশ সূত্রে খবর, ওই যুবতী আদ্রারই শ্যামপুর গ্রামের বাসিন্দা৷ বেশ কিছুদিন ধরে মানসিক অবসাদে ভুগছিলেন৷ পারিবারিক অশান্তিই তাঁকে এই অবসাদের দিকে ঠেলে দিয়েছিল। তাই সম্ভবত যুবতী আত্মহত্যার সিদ্ধান্ত নেন৷

আত্মহত্যা করতে রেল লাইনে শুয়ে পড়েছিলেন এক যুবতী৷ আর তখনই ওই লাইনেই হাজির দ্রতগতিতে আসা একটি মালগাড়ি৷ কিন্তু দূর থেকে চালক দেখতে পান ওই যুবতী লাইনে শুয়ে আছেন। পরিস্থিতি বেগতিক দেখে চালক জরুরি ব্রেক কষেন। তৎক্ষনাৎ থেমে যায় মালগাড়ি। আর চালকের তৎপরতাতেই প্রাণে বাঁচলেন ওই যুবতী৷ তবে ট্রেনের চাকায় যুবতীর একটি হাত কাটা গিয়েছে৷

ঠিক কী ঘটেছে পুরুলিয়ায়?‌ স্থানীয় সূত্রে খবর, পুরুলিয়ার আদ্রায় দ্রুতগতিতে আসছিল মালগাড়ি। দক্ষিণ–পুর্ব রেলওয়ের আদ্রা ডিভিশনের আদ্রা–চান্ডিল শাখায় গড়ধ্রুবেশ্বর–আনাড়া রেল স্টেশনের মাঝে এই ঘটনা ঘটে৷ এখানে রেললাইনের উপরে শুয়ে আত্মহত্যা করতে যান ওই যুবতী৷ যুবতীকে লাইনের উপরে শুয়ে থাকতে দেখে ট্রেনের গতি কমিয়ে হর্ন দিতে থাকেন চালক৷ কিন্তু তাতে কাজ না হওয়ায় জরুরি ব্রেক কষেন তিনি। তখনই প্রাণে বাঁচেন যুবতী। কিন্তু হাত কাটা যায়।

কী করে হাত কাটা গেল?‌ জানা গিয়েছে, জরুরি ব্রেক কষলে ট্রেনটির নীচে পড়ে যান যুবতী৷ তাই কাটা যায় তাঁর হাতের একটি অংশ৷ ট্রেন থামিয়ে দ্রুততার সঙ্গে মালগাড়ির চালক আনাড়া স্টেশনের আরপিএফ পোস্টে খবর দেন৷ সেখান থেকে রেল পুলিশ এসে জখম যুবতীকে উদ্ধার করে রঘুনাথপুর মহকুমা হাসপাতালে নিয়ে যায়৷ সেখানেই চিকিৎসাধীন তিনি৷

কেন আত্মহত্যা করতে চাইছিলেন যুবতী?‌ পুলিশ সূত্রে খবর, ওই যুবতী আদ্রারই শ্যামপুর গ্রামের বাসিন্দা৷ বেশ কিছুদিন ধরে মানসিক অবসাদে ভুগছিলেন৷ পারিবারিক অশান্তিই তাঁকে এই অবসাদের দিকে ঠেলে দিয়েছিল। তাই সম্ভবত যুবতী আত্মহত্যার সিদ্ধান্ত নেন৷ কিন্তু মালগাড়ি চালকের তৎপরতায় প্রাণে বাঁচলেন ওই যুবতী৷

বন্ধ করুন