বাংলা নিউজ > বাংলার মুখ > অন্যান্য জেলা > গলায় হাত দিতেই রক্ত, সাঁতরাগাছিতে চিনা মাঞ্জায় আঙুল খোয়ালেন যুবক
চিনা মাঞ্জা দিয়ে ঘুড়ি ওড়ানোর প্রবনতা রয়েছে (প্রতীকী ছবি)
চিনা মাঞ্জা দিয়ে ঘুড়ি ওড়ানোর প্রবনতা রয়েছে (প্রতীকী ছবি)

গলায় হাত দিতেই রক্ত, সাঁতরাগাছিতে চিনা মাঞ্জায় আঙুল খোয়ালেন যুবক

  • সাঁতরাগাছি ব্রিজ থেকে তিনি বাইকে চেপে নামতেই পুরানো বাসস্ট্যান্ডের কাছে তাঁর গলায় টান লাগে।

ফের চিনা মাঞ্জায় ভয়াবহ দুর্ঘটনা। মা ফ্লাইওভারে একাধিকবার এই চিনা মাঞ্জা সুতোয় জখম হয়েছেন একাধিকজন। এবার হাওড়ার সাঁতরাগাছি ব্রিজে সেই চিনা মাঞ্জায় ডান হাতের বুড়ো আঙুল খোয়ালেন হাওড়ার বাগনানের এক বাসিন্দা। গৌতম মান্না নামে ওই বাসিন্দার গলাতেও আঘাত লেগেছে। ঠিক কী হয়েছিল ঘটনা?

গৌতম মান্না জানিয়েছেন, কলকাতার দিক থেকে বাগনানের দিকে যাচ্ছিলেন তিনি। দুপুরে সাঁতরাগাছি ব্রিজ থেকে তিনি বাইকে চেপে নামতেই পুরানো বাসস্ট্যান্ডের কাছে তাঁর গলায় টান লাগে। গলায় হাত দিয়ে দেখেন গলগল করে রক্ত ঝড়ছে। এর সঙ্গেই ভীষণ যন্ত্রণা অনুভব করেন তিনি। এরপর তিনি বাইক নিয়ে উলটে পড়ে যান। কোনা ট্রাফিক গার্ডের কর্মীরা তাঁকে উদ্ধার করেন। প্রথমে একটি বেসরকারি হাসপাতালে ও পরে তাঁকে এসএসকেএম হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হয়। সেখানেই তাঁর অস্ত্রোপচার করা হয়েছে। 

এদিকে বাসিন্দাদের দাবি ঘুড়ি ওড়ানো ক্ষেত্রে চিনা মাঞ্জা ব্যবহার করা হচ্ছে। কোনও দুর্ঘটনা ঘটলে পুলিশ কয়েকদিনের জন্য একটু তৎপর হয়। বাজারে ধরপাকড় শুরু হয়। কিছুদিন পরেই অবস্থা আবার যে কে সেই। ফের চিনা মাঞ্জা দিয়ে ঘুড়ি ওড়ানো শুরু হয়। তবে সাঁতরাগাছিতেও এই ধরনের মাঞ্জা সুতোয় ঘুড়ি ওড়ানোর প্রবনতা বৃদ্ধি পাওয়ায় বড় দুর্ঘটনার সম্ভাবনা থেকেই যাচ্ছে। 

 

ফের চিনা মাঞ্জায় ভয়াবহ দুর্ঘটনা। মা ফ্লাইওভারে একাধিকবার এই চিনা মাঞ্জা সুতোয় জখম হয়েছেন একাধিকজন। এবার হাওড়ার সাঁতরাগাছি ব্রিজে সেই চিনা মাঞ্জায় ডান হাতের বুড়ো আঙুল খোয়ালেন হাওড়ার বাগনানের এক বাসিন্দা। গৌতম মান্না নামে ওই বাসিন্দার গলাতেও আঘাত লেগেছে। ঠিক কী হয়েছিল ঘটনা।

গৌতম মান্না জানিয়েছেন, কলকাতার দিক থেকে বাগনানের দিকে যাচ্ছিলেন তিনি। দুপুরে সাঁতরাগাছি ব্রিজ থেকে তিনি বাইকে চেপে নামতেই পুরানো বাসস্ট্যান্ডের কাছে তাঁর গলায় টান লাগে। গলায় হাত দিয়ে দেখেন গলগল করে রক্ত ঝড়ছে। এর সঙ্গেই ভীষণ যন্ত্রণা অনুভব করেন তিনি। এরপর তিনি বাইক নিয়ে উলটে পড়ে যান। কোনা ট্রাফিক গার্ডের কর্মীরা তাঁকে উদ্ধার করেন। প্রথমে একটি বেসরকারি হাসপাতালে ও পরে তাঁকে এসএসকেএম হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হয়। সেখানেই তাঁর অস্ত্রোপচার করা হয়েছে। 

এদিকে বাসিন্দাদের দাবি ঘুড়ি ওড়ানো ক্ষেত্রে চিনা মাঞ্জা ব্যবহার করা হচ্ছে। কোনও দুর্ঘটনা ঘটলে পুলিশ কয়েকদিনের জন্য একটু তৎপর হয়। বাজারে ধরপাকড় শুরু হয়। কিছুদিন পরেই অবস্থা আবার যে কে সেই। ফের চিনা মাঞ্জা দিয়ে ঘুড়ি ওড়ানো শুরু হয়। তবে সাঁতরাগাছিতেও এই ধরনের মাঞ্জা সুতোয় ঘুড়ি ওড়ানোর প্রবনতা বৃদ্ধি পাওয়ায় বড় দুর্ঘটনার সম্ভাবনা থেকেই যাচ্ছে। 

|#+|

 

 

 

 

 

 

 

 

বন্ধ করুন