বাংলা নিউজ > বাংলার মুখ > অন্যান্য জেলা > ‘‌বিশ্বভারতী হয়েছে পশ্চিমবঙ্গ ভারতী’‌, বিতর্কিত মন্তব্য করলেন বিদ্যুৎ চক্রবর্তী
বিশ্বভারতীর উপাচার্য বিদ্যুৎ চক্রবর্তী।

‘‌বিশ্বভারতী হয়েছে পশ্চিমবঙ্গ ভারতী’‌, বিতর্কিত মন্তব্য করলেন বিদ্যুৎ চক্রবর্তী

  • এই ভিডিও ভাইরাল হতেই প্রতিবাদ করতে শুরু করেছেন আশ্রমিক থেকে শুরু করে ছাত্রছাত্রীরাও।

আবারও বিতর্ক তৈরি করলেন বিশ্বভারতীর উপাচার্য বিদ্যুৎ চক্রবর্তী। এবার তিনি বলেছেন, বিশ্বভারতী এখন পশ্চিমবঙ্গ ভারতী বা বোলপুর ভারতী হয়ে গিয়েছে। এই মন্তব্যের একটি ভিডিও সোশ্যাল মিডিয়ায় ভাইরাল হয়ে পড়েছে। সাধারণতন্ত্র দিবসের দিন তিনি বিশ্বভারতী প্রাঙ্গণে দাঁড়িয়ে এই কথা বলছেন। যদিও এই ভিডিও ফুটেজের সত্যতা যাচাই করেনি হিন্দুস্তান টাইমস বাংলা ডিডিটাল।

ঠিক কী বলেছেন বিশ্বভারতীর উপাচার্য?‌ ওই ভিডিও ফুটেজে উপাচার্য বিনয় ভবনের মাঠে দেখা গিয়েছে। সেথানে তিনি বলছেন, ‘‌যাঁরা বিশ্বভারতীর সঙ্গে যুক্ত রয়েছেন, তাঁদের কি দায়িত্ব নয়? যে আমরা যাব, আমরা গিয়ে বিশ্বভারতী ক্যাম্পাস গড়ব। যদি আমরা দায়িত্ব না নিই, তাহলে উত্তরাখণ্ড ক্যাম্পাস হয়ে যাবে কিন্তু। আজকে বিশ্বভারতী হয় হয়েছে পশ্চিমবঙ্গ ভারতী, না হয় বোলপুর ভারতী হয়ে গিয়েছে। আমি থাকতে কিন্তু এটা উত্তরাখণ্ড ভারতী হতে দেব না। আমি এটাকে বিশ্বভারতীই রাখতে চাই। তাই আমাদের বেশ কিছু লোকজনকে ওখানে যেতে হবে। আমাদের ওখানে থাকতে হবে। তাতে বিশ্বভারতী বিশ্বভারতীই থাকবে।’‌

এই ভিডিও ভাইরাল হতেই প্রতিবাদ করতে শুরু করেছেন আশ্রমিক থেকে শুরু করে ছাত্রছাত্রীরাও। এমনকী নেটিজেনরাও ক্ষোভ উগড়ে দিয়েছেন। বিশ্বভারতীর আশ্রমিক সুপ্রিয় ঠাকুর বলেন, ‘‌এই সম্পর্কে আর কী বলার আছে। উনি তো বিশ্বভারতীর সর্বময় কর্তা হয়ে বসে আছেন। উনি আসলে কী বার্তা দিতে চাইছেন, জানি না।’‌

উল্লেখ্য, বিশ্বভারতীর নতুন ক্যাম্পাস উত্তরাখণ্ডের রামগড়ে। বিশ্বভারতীর অধ্যাপকদের সেখানে গিয়ে পড়ানো দায়িত্ব বলে মনে করেন তিনি। তা না–হলে উত্তরাখণ্ড বিশ্ববিদ্যালয় হয়ে যাবে। এমনই বলতে চেয়েছেন উপাচার্য বলে মনে করা হচ্ছে। সম্প্রতি বাংলার নেতাজি ট্যাবলো নিয়ে তিনি বলেছিলেন, ট্যাবলোতে কি আদৌ গরিবের পেট ভরবে?

বন্ধ করুন