বাড়ি > বাংলার মুখ > অন্যান্য জেলা > মুখ্যমন্ত্রীর উপস্থিতিতেই সরকারি গণবিবাহের অনুষ্ঠানে বিক্ষোভ দেখালেন আদিবাসীরা
বৃহস্পতিবার মালদার গাজোলে আদিবাসী নৃত্যে অংশ নেন পশ্চিমবঙ্গের মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। (PTI)
বৃহস্পতিবার মালদার গাজোলে আদিবাসী নৃত্যে অংশ নেন পশ্চিমবঙ্গের মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। (PTI)

মুখ্যমন্ত্রীর উপস্থিতিতেই সরকারি গণবিবাহের অনুষ্ঠানে বিক্ষোভ দেখালেন আদিবাসীরা

  • সংগঠনটির রাজ্য সভাপতি মোহন টুডুকে আটক করেছে গাজোল থানার পুলিশ।

মুখ্যমন্ত্রীর সামনেই মালদায় আদিবাসীদের জন্য সরকারের আয়োজিত গণবিবাহের আসরের সামনে বিক্ষোভ আদিবাসী সংগঠনেরই। বৃহস্পতিবার মালদার গাজোলে প্রশাসনের উদ্যোগে আয়োজন করা হয়েছিল এই গণবিবাহের আসরের। সেখানে বিক্ষোভ দেখায় ঝাড়খণ্ড দিশম পার্টির সদস্যরা। সংগঠনটির রাজ্য সভাপতি মোহন টুডুকে আটক করেছে গাজোল থানার পুলিশ।

গত ২ ফেব্রুয়ারি গাজোলে VHP-র গণবিবাহের আসরে হামলা চালায় ঝাড়খণ্ড দিশম পার্টির সদস্যরা। অভিযোগ ছিল, ওই আসরে আদিবাসী তরুণীদের ধর্মান্তরিত করা হচ্ছে। এই ঘটনার কথা বিধানসভায় উল্লেখ করে বিজেপিকে কাঠগড়ায় তোলেন মুখ্যমন্ত্রী। ঝাড়খণ্ড দিশম পার্টির সুরে সুর মিলিয়ে তিনিও তোলেন ধর্মান্তরণের অভিযোগ। এর পরই পালটা গণবিবাহ আয়োজনের ঘোষণা করেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়।

বৃহস্পতিবার দুপুরে মালদার গাজোলে বসেছিল সেই সরকারি গণবিবাহের আসর। মালদা থেকে সেখানে হেলিকপ্টারে উড়ে যান মুখ্যমন্ত্রী। পাত্রপাত্রীদের শুভেচ্ছা জানান। তার পর যোগ দেন আদিবাসী নাচে।

ওদিকে মুখ্যমন্ত্রী পৌঁছতেই বিবাহ অনুষ্ঠানের অদূরে বিক্ষোভ দেখাতে শুরু করেন ঝাড়খণ্ড দিশম পার্টির সদস্যরা। সংগঠনের রাজ্য সভাপতি মোহন টুডু বলেন, ‘গণবিবাহ ব্যাপারটাই আদিবাসী সংস্কৃতি বিরুদ্ধ। কী করে তার আয়োজন করতে পারে সরকার?’

ঝাড়খণ্ড দিশম পার্টির অভিযোগ, রূপশ্রী প্রকল্পের টাকা দেওয়ার বিনিময়ে আদিবাসী মেয়েদের সরকারি গণবিবাহের অনুষ্ঠানে বিয়ে করতে বাধ্য করা হচ্ছে। তাই প্রথা ভেঙে সরকারি কর্মসূচিতে যোগ দিতে বাধ্য হয়েছেন ওই যুবক-যুবতীরা। কিছুক্ষণ বিক্ষোভ চলার পর মোহন টুডু ও অন্যান্যদের আটক করে গাজোল থানায় নিয়ে যায় পুলিশ।



বন্ধ করুন