বাংলা নিউজ > বাংলার মুখ > অন্যান্য জেলা > চাকরি-লাইসেন্স দেওয়ার নামে কোটি কোটি টাকা আত্মসাৎ! বিধায়কের নামে অভিযোগ অভিষেককে
চাকরি দেওয়ার নামে কোটি কোটি টাকা নেওয়ার অভিযোগ বিধায়ক তাপস সাহার বিরুদ্ধে (ছবি - টুইটার)
চাকরি দেওয়ার নামে কোটি কোটি টাকা নেওয়ার অভিযোগ বিধায়ক তাপস সাহার বিরুদ্ধে (ছবি - টুইটার)

চাকরি-লাইসেন্স দেওয়ার নামে কোটি কোটি টাকা আত্মসাৎ! বিধায়কের নামে অভিযোগ অভিষেককে

  • Allegation Against TMC MLA: তাপস সাহার বিধানসভা এলাকার লোকেরাই বিধায়কের বিরুদ্ধে একটি চিঠি লিখেছেন তৃণমূল কংগ্রেসের সর্বভারতীয় সাধারণ সম্পাদক অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়কে। জানা গিয়েছে, বিধায়কের বিরুদ্ধে অভিযোগ জানিয়ে তিনটি এলাকা থেকে চিঠি গিয়েছে অভিষেকের কাছে।

তৃণমূল কংগ্রেস নেতা তথা নদিয়ার তেহট্টের বিধায়ক তাপস সাহার বিরুদ্ধে চাকরি পাইয়ে দেওয়ার নামে কোটি কোটি টাকা আত্মসাৎ করার অভিযোগ উঠল। তাঁর বিধানসভা এলাকার লোকেরাই এই নিয়ে একটি চিঠি লিখেছেন তৃণমূল কংগ্রেসের সর্বভারতীয় সাধারণ সম্পাদক অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়কে। জানা গিয়েছে, বিধায়কের বিরুদ্ধে অভিযোগ জানিয়ে তিনটি এলাকা থেকে চিঠি গিয়েছে অভিষেকের কাছে। একটি চিঠি গিয়েছে তেহট্ট থেকে। আরও একটি চিঠি গিয়েছে তাঁর আগের বিধানসভা ক্ষেত্র পলাশিপাড়া থেকে। তৃতীয় চিঠিটি গিয়েছে করিমপুর বিধানসভা কেন্দ্র থেকে। যদিও তাঁর বিরুদ্ধে ওঠা সব অভিযোগ খারিজ করেছেন বিধায়ক তাপস সাহা। শুধু তাই নয়, তাঁর চ্যালেঞ্জ, অভিযোগ প্রমাণিত হলে তিনি বিধায়ক পদ থেকে ইস্তফা দেবেন।

অভিযোগ, ২০১৬ থেকে ২০২১ সাল পর্যন্ত যখন তাপস সাহা পলাশিপাড়ার বিধায়ক ছিলেন। তখন তিনি কয়েক লক্ষ টাকা নিয়েছেন সাধারণ মানুষের থেকে। চাকরি পাইয়ে দেওয়ার প্রতিশ্রুতি দিয়ে সেই টাকা নিলেও বিধায়ক নিজের প্রতিশ্রুতি রাখেননি। এই আবহে যাঁরা টাকা দিয়েছেন, তাঁরা তাঁদের টাকা ফেরত চান বিধায়কের কাছ থেকে। তবে বিধায়ক টাকা ফেরত দিতে অস্বীকার করেন। অভিযোগ, তেহট্ট এবং করিমপুরেও একই ধরনের ঘটনা ঘটান বিধায়ক।

আরও পড়ুন: সন্দেহের বশে লুকিয়ে স্বামীর মোবাইল ঘাঁটাঘাঁটি মানসিক অত্যাচার: হাই কোর্ট 

এই আবহে এবার অভিষেককে একটি চিঠি পাঠিয়ে আবেদন, ‘বিধায়ক তাপস সাহার হাত থেকে আমাদের বাঁচান’। অভিষেককে লেখা চিঠিতে কোন ব্যক্তির থেকে বিধায়ক কত টাকা নিয়েছেন, তার বিবরণ আছে। পাশাপাশি অভিযোগকারীর ঠিকানা, ফোন নম্বরও দেওয়া। মোট তিন জায়গা থেকে সব মিলিয়ে তাপস সাহা ১৬ কোটি টাকা তোলেন বলে অভিযোগ করা হয়েছে চিঠিগুলিতে। এই বিষয়ে অবশ্য সংবাদমাধ্যমকে তাপস সাহা বলেন, ‘সব অভিযোগ ভিত্তিহীন। যদি অভিযোগ প্রমাণিত হয় আমি বিধায়ক পদ, রাজনীতি, সব ছেড়ে দেব।’

বন্ধ করুন