বাংলা নিউজ > বাংলার মুখ > অন্যান্য জেলা > Cyber crime: ৭ হাজার টাকার স্মার্টওয়াচ মাত্র ১০০ টাকায়! লোভনীয় মেসেজে ক্লিক করতেই যা ঘটল!
যুবকের ব্যাঙ্ক অ্যাকাউন্ট থেকে টাকা হাতিয়ে নেওয়ার অভিযোগ। প্রতীকী ছবি

Cyber crime: ৭ হাজার টাকার স্মার্টওয়াচ মাত্র ১০০ টাকায়! লোভনীয় মেসেজে ক্লিক করতেই যা ঘটল!

  • পুলিশ সূত্রে জানা গিয়েছে, ওই যুবকের নাম অভিজিৎ সামন্ত। অমৃতবেড়িয়া মিনা মার্কেটে একটি ছোট্ট তেলেভাজা চায়ের দোকান রয়েছে তার। অভিজিৎ বাবার সঙ্গে প্রায়ই দোকানে থাকেন। বেশ কিছুদিন ধরে অনলাইনে কম দামে ভালো স্মার্টওয়াচের সন্ধান করছিলেন। 

শখ ছিল বন্ধুদের মতো দামি স্মার্টওয়াচ পরার। কিন্তু টাকা না থাকায় সেই শখ পূরণ করতে পারেনি যুবক। তাই কম দামের স্মার্টওয়াচের খোঁজে প্রায়ই বিভিন্ন ওয়েবসাইট ঘাটাঘাটি করত যুবক। কম দামে স্মার্টওয়াচ কেনার জন্য তার কাছে লোভনীয় অফারের একটি মেসেজও আসে। আর সেই মেসেজে ক্লিক করতে গিয়েই সর্বস্বান্ত হয়ে গেল ওই যুবক। খোয়া গেল যুবকের ব্যাঙ্ক অ্যাকাউন্ট থেকে ৩০ হাজার টাকা। ঘটনাটি পশ্চিম মেদিনীপুর জেলার মহিষাদল থানার ভোলসারা গ্রামের। এই ঘটনায় সাইবার ক্রাইম থানায় অভিযোগ জানিয়েছে ওই যুবক।

আরও পড়ুন: কুরিয়ার বয় সেজে ফিল্মি কায়দায় সাইবার প্রতারকদের পাকড়াও করল পুলিশ

পুলিশ সূত্রে জানা গিয়েছে, ওই যুবকের নাম অভিজিৎ সামন্ত। অমৃতবেড়িয়া মিনা মার্কেটে একটি ছোট্ট তেলেভাজা চায়ের দোকান রয়েছে তার। অভিজিৎ বাবার সঙ্গে প্রায়ই দোকানে থাকেন। বেশ কিছুদিন ধরে অনলাইনে কম দামে ভালো স্মার্টওয়াচের সন্ধান করছিলেন। তারই মধ্যে গত ৭ সেপ্টেম্বর তার কাছে সোশ্যাল মিডিয়ায় একটি মেসেজ যায়। মেসেজে জানানো হয়, ৭০০০ টাকার ঘড়ি পাওয়া যাবে মাত্র ১০০ টাকায়। তার সঙ্গে প্রতারকরা লিঙ্ক সহ একটি ওটিপি নম্বরও পাঠায়। এরপর আকর্ষণীয় সুযোগ দেখে লোভ সামলাতে না পেরে ওই যুবক সেই লিঙ্কে ক্লিক করে। তারপরেই তার এটিএম এর কার্ড নম্বর চাইলে সেই নম্বরও দিয়ে দেয় যুবক। আর তারপরেই ঘটে বিপত্তি।

ওই যুবকের সেভিংস অ্যাকাউন্ট থেকে ৩০ হাজার টাকা হাতিয়ে নেয় প্রতারকরা। ঘটনায় সাইবার ক্রাইম থানায় অভিযোগ জানান ওই যুবক। পুলিশ এখনও পর্যন্ত কাউকে গ্রেফতার করতে পারেনি। সাইবার বিশেষজ্ঞদের মতে, প্রতিদিন নিত্য নতুন পদ্ধতিতে মানুষকে প্রতারণার ফাঁদে ফেলছে সাইবার প্রতারকরা। অনেক ক্ষেত্রেই তারা মানুষের উপর নজর রাখে। কার কোন জিনিসের চাহিদা রয়েছে সেই মতোই তারা মেসেজ পাঠিয়ে টোপ দেয়। আর তাদের পাতা সেই ফাঁদে পা দিলেই টাকা হাতিয়ে নিচ্ছে প্রতারকরা।

বন্ধ করুন