বাংলা নিউজ > বাংলার মুখ > অন্যান্য জেলা > 'তৃণমূলকে ভোট না দিলে পরে দেখে নেব', 'বিজেপি-পাড়ায়' গিয়ে হুমকি দুষ্কৃতীদের
আতঙ্কিত গ্রামবাসীরা।

'তৃণমূলকে ভোট না দিলে পরে দেখে নেব', 'বিজেপি-পাড়ায়' গিয়ে হুমকি দুষ্কৃতীদের

স্থানীয় বাসিন্দাদের তরফে জানা গিয়েছে, বাগাচরা গ্রাম পঞ্চায়েতের অজয় পল্লী এলাকায় মোটরসাইকেলে করে কয়েকজন যুবক এসে হমকি দিতে থাকে।

তৃণমূলকে ভোট না দিলে দেখে নেব। শান্তিপুর বিধানসভা অন্তর্গত বাগাচরা গ্রাম পঞ্চায়েত এলাকায় এই ভাষাতেই মুখ ঢাকা কিছু দুষ্কৃতী হুমকি দিয়ে গিয়েছে বলে অভিযোগ উঠেছে। এই হুমকির পরই আতঙ্কিত গ্রামের বাসিন্দারা। তাঁদের দাবি, ভয়ে কেউই ভোট দিতে যাচ্ছিলেন না। পরে এলাকার স্থানীয় বিজেপি নেতৃত্ব এসে তাঁদের ভোট দিতে নিয়ে যায়।

স্থানীয় বাসিন্দাদের তরফে জানা গিয়েছে, বাগাচরা গ্রাম পঞ্চায়েতের অজয় পল্লি এলাকায় মোটরসাইকেলে করে কয়েকজন যুবক এসে হমকি দিতে থাকে। তাঁরা চিৎকার করে বলে, তৃণমূলকে ভোট না দিলে পরে দেখে নেওয়া হবে। জানা যায়, ওই এলাকায় গত বিধানসভা ভোটে অনেকটাই লিড পেয়েছিল বিজেপি। প্রশ্ন উঠছে, সেই কারণেই কি এভাবে হুমকি দেওয়া হল? কে বা কারা এই হুমকি দেওয়ার পিছনে ইন্ধন জুগিয়েছে, তা অবশ্য এখনও জানা যায়নি। তবে ভোটের দিন গোটা এলাকায় যে একটা আতঙ্কের পরিবেশ তৈরি হয়েছে সেটা স্পষ্ট। প্রথমদিকে গ্রামের অনেক মানুষ ভোট কেন্দ্রে যেতে না চাইলেও পরে বিজেপির স্থানীয় নেতাদের সাহায্যে তাঁদের ভোট কেন্দ্রে নিয়ে যাওয়া হয়।

এই প্রসঙ্গে শান্তিপুরের বিজেপি প্রার্থী নিরঞ্জন বিশ্বাস জানান, ‘‌অজয় পল্লিতে তৃণমূলের কোনও অস্তিত্ব নেই। এখানে সবাই বিজেপি করেন। এই এলাকায় তৃণমূলের লোকজন এসে মহিলাদের হুমকি দিয়ে গেছে, এই এলাকায় তৃণমূলকে ভোট না দিলে রাতে এসে বিষয়টি বুঝে নেবেন। আমরা আসায় এখানে স্থানীয় বাসিন্দাদের মধ্যে সাহস সঞ্চার হয়েছে। তাঁরা এখন ভোট দেবেন ও তৃণমূলের এই হুমকির প্রতিবাদ ভোটদানের মাধ্যমে তাঁরা দেবেন।’‌


বন্ধ করুন