বাংলা নিউজ > বাংলার মুখ > অন্যান্য জেলা > অতিক্রান্ত প্রায় ৩০ ঘণ্টা, এখনও নিয়ন্ত্রণে আসেনি নিউ ব্যারাকপুরের কারখানার আগুন
রোবট এনে আগুন নেভানোর কাজ চলছিল। (ছবি সৌজন্য এএনআই)
রোবট এনে আগুন নেভানোর কাজ চলছিল। (ছবি সৌজন্য এএনআই)

অতিক্রান্ত প্রায় ৩০ ঘণ্টা, এখনও নিয়ন্ত্রণে আসেনি নিউ ব্যারাকপুরের কারখানার আগুন

  • স্থানীয়দের দাবি, খোঁজ মেলেনি চারজন শ্রমিকেরও।

আগুন লাগার পর অতিক্রান্ত প্রায় ৩০ ঘণ্টা। কিন্তু এখনও নিভল না নিউ ব্যারাকপুরের গেঞ্জি কারখানার আগুন। স্থানীয়দের দাবি, খোঁজ মেলেনি চারজন শ্রমিকেরও। দমকল সূত্রে খবর, কারখানা এতটাই তপ্ত হয়ে আছে যে ভিতরে ঢোকা যাচ্ছে না। আগুন নিয়ন্ত্রণে আসার পর তাঁদের উদ্ধারের চেষ্টা করা হবে।

বৃহস্পতিবার রাত তিনটে নাগাদ তালবান্দা এলাকার একটি তিনতলা বাড়ির গেঞ্জির কারখানায় আগুন লাগে। সেখানে প্রচুর পরিমাণে সুতো, কাপড় মজুত ছিল। তার জেরে বাড়ির অপর অংশের ওষুধের গুদাম এবং রঙের কারখানায় দ্রুত আগুন ছড়িয়ে পড়ে। সেই গুদামে স্যানিটাইজার, ওষুধের মতো প্রচুর দাহ্য মজুত ছিল। রঙের কারখানায় ডিজেলের পাশাপাশি সিলিন্ডার মজুত ছিল বলে দাবি স্থানীয়দের। তার জেরে আগুনের তীব্রতা আরও বাড়তে থাকে। পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনতে রোবট নামাতে বাধ্য হয় দমকল। তাপ সহ্য এবং জল ছড়ানোর ক্ষমতা বেশি হলেও আগুনের তীব্রতায় রোবটকেও কারখানার ভিতরে ঢোকানো যায়নি। দমকলকর্মীরাই আগুন নেভানোর চেষ্টা করতে থাকেন। পরে পে-লোডার নিয়ে এসে কারখানার দেওয়াল ভেঙে আগুন নেভানোর চেষ্টা করা হয়। কিন্তু এখনও নিয়ন্ত্রণে আসেনি আগুন।

দমকল সূত্রে খবর, শুক্রবার সকালেও কারখানার বিভিন্ন অংশে আগুন দেখা যাচ্ছে। সেই ‘পকেট ফায়ার’ নেভানোর কাজ চালানো হচ্ছে। কিন্তু বাড়িটি অত্যন্ত তপ্ত হয়ে থাকায় ভিতরে ঢোকা দুষ্কর হয়ে পড়েছে। স্থানীয়দের দাবি, যে চারজন নিখোঁজ আছেন, তাঁদের এখনও উদ্ধার করা যায়নি। আগুন নিয়ন্ত্রণে আসার পর তাঁদের উদ্ধারের চেষ্টা করা হবে বলে দমকল সূত্রে খবর।

বন্ধ করুন