বাংলা নিউজ > বাংলার মুখ > অন্যান্য জেলা > '‌পাহাড় সমস্যা সামাধানে' দিল্লিতে বৈঠকের ডাক শাহের, ডাক পেলেন না বিমল গুরুং
কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিত শাহ (ছবি সৌজন্যে পিটিআই) (HT_PRINT)
কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিত শাহ (ছবি সৌজন্যে পিটিআই) (HT_PRINT)

'‌পাহাড় সমস্যা সামাধানে' দিল্লিতে বৈঠকের ডাক শাহের, ডাক পেলেন না বিমল গুরুং

বে বৈঠকে এখনও আমন্ত্রণ পাননি গোর্খা জনমুক্তি মোর্চা প্রধান বিমল গুরুং। ভারতীয় গোর্খা প্রজাতান্ত্রিক মোর্চা প্রধান অনীত থাপাও বৈঠকে আমন্ত্রণ পাননি।

সম্প্রতি পাহাড়ে নতুন রাজনৈতিক সমীকরণ তৈরি হয়েছে। নতুন দল গড়েছেন গোর্খা জনমুক্তি মোর্চা ছেড়ে বেরিয়ে আসা অনীত থাপা। বিনয় তামাংও নতুন রাজনৈতিক দল গড়ার পথে। এরইমধ্যে পাহাড় সমস্যা সমাধানে বৈঠক ডাকলেন কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিত শাহ। আগামী ১২ অক্টোবর দিল্লির নর্থ ব্লকে বৈঠক ডেকেছেন শাহ।

ইতিমধ্যে কেন্দ্রের তরফে বৈঠকে হাজির থাকার জন্য রাজ্য সরকারকে চিঠি পাঠানো হয়েছে বলে জানিয়েছে বলে দাবি করেছে জিএনএলএফ। ঘিসিংয়ের এই দলকেও বৈঠকে হাজির থাকার জন্য আমন্ত্রণ জানানো হয়েছে। পাশাপাশি দার্জিলিঙের বিধায়ক নীরজ জিম্বা ও সাংসদ রাজু বিস্তকেও আমন্ত্রণ জানানো হয়েছে। তবে বৈঠকে এখনও আমন্ত্রণ পাননি গোর্খা জনমুক্তি মোর্চা প্রধান বিমল গুরুং। ভারতীয় গোর্খা প্রজাতান্ত্রিক মোর্চা প্রধান অনীত থাপাও বৈঠকে আমন্ত্রণ পাননি। গুরুং শিবিরের মতে, পাহাড় সমস্যার সমাধানের অর্থই হল পৃথক গোর্খাল্যান্ড তৈরি করা। সেই বিষয়েই যদি আলোচনা না হয়, তাহলে আর কী হল? তবে কেন্দ্রের ডাকা এই বৈঠক নিয়ে আশাবাদী জিএনএলএফ। তাঁদের মতে, এই বৈঠকের ফলে পাহাড়ে স্থায়ী সমস্যা সমাধানের ক্ষেত্রে সুরাহা হবে।

উল্লেখ্য, গত লোকসভা নির্বাচনে বিজেপির সঙ্গে বিমল গুরুঙের গোর্খা জনমুক্তি মোর্চা থাকলেও ক্রমেই দুই দলের মধ্যে সম্পর্কে চিড় ধরতে শুরু করে। এরপর গত বিধানসভা ভোটের আগে বিজেপিকে ছেড়ে তৃণমূলকে সমর্থনের কথা জানিয়ে দেন বিমল গুরুং। রাজ্যের বিভিন্ন জায়গায় তৃণমূল প্রার্থীর সমর্থনে প্রচার করতেও তাঁদের দেখা গিয়েছিল।

়েছিল।

বন্ধ করুন