বাংলা নিউজ > বাংলার মুখ > অন্যান্য জেলা > প্রতিবেশীর বাড়ি যাচ্ছিলেন, পথে সানস্ট্রোকে মৃত্যু ক্যানিংয়ের বৃদ্ধার
সানস্ট্রোকে বৃদ্ধার মৃত্যু। প্রতীকী ছবি।

প্রতিবেশীর বাড়ি যাচ্ছিলেন, পথে সানস্ট্রোকে মৃত্যু ক্যানিংয়ের বৃদ্ধার

  • এই গরম থেকে রেহাই কবে মিলবে তা এখনও স্পষ্ট নয়। বঙ্গে কবে বৃষ্টি নামবে তা নির্দিষ্ট করে জানাতে পারেনি আলিপুর আবহাওয়া দফতর। এই পরিস্থিতিতে স্কুলগুলিতে গরমের ছুটি এগিয়ে নিয়ে আসা হয়েছে। কালবৈশাখী এখনও সেভাবে পায়নি দক্ষিণবঙ্গ। তার মধ্যে গরমের জেরে একের পর এক মৃত্যু হয়েছে মানুষের।

গরম কতটা পড়েছে?‌ এই প্রশ্নের উত্তর মিলছে রাস্তায় বেরোলেই। মানুষ রাস্তায় পা রাখলেই ঘেমে স্নান করে যাচ্ছেন। আর প্রচণ্ড সূর্যের তাপে নাজেহাল হতে হচ্ছে। অসুস্থ হয়ে পড়ছেন আট থেকে আশি সব বয়সের মানুষ। এবার কতটা গরম তার উত্তর মিলেছে সানস্ট্রোকে বৃদ্ধার মৃত্যু ঘটনা দিয়ে। এমনই ঘটনা ঘটেছে দক্ষিণ ২৪ পরগনার ক্যানিংয়ে।

ঠিক কী ঘটেছে ক্যানিংয়ে?‌ স্থানীয় সূত্রে খবর, ৭০ বছরের বৃদ্ধা চপলা গায়েন ক্যানিংয়ের ইটখোলা গ্রামের বাসিন্দা। অবসরপ্রাপ্ত নার্স হলেও পাড়া–প্রতিবেশীর খবর রাখেন। বৃহস্পতিবার দুপুরে তিনি বাড়ি থেকে বেরিয়েছিলেন। প্রতিবেশীর বাড়িতে যাওয়ার জন্য। কিন্তু প্রখর রোদে বেরিয়ে অসুস্থবোধ করতে থাকেন তিনি। তখন বাড়িতে ফিরেও আসেন। কিন্তু হঠাৎ মাটিতে পড়ে যান।

তারপর ঠিক কী ঘটল?‌ পরিবার সূত্রে খবর, মাটিতে পড়ে যাওয়ার পর তাঁকে তোলা করা হয়। চিকিৎসার জন্য সঙ্গে সঙ্গে ক্যানিং মহকুমা হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হয়। সেখানে চিকিৎসা শুরুও হয় তাঁর। কিন্তু রাতে চিকিৎসকরা তাঁকে মৃত বলে ঘোষণা করেন। সানস্ট্রোকেই তাঁর মৃত্যু হয়েছে। আর তাতেই বোঝা গেল এখানে গরম কতটা পড়েছে।

উল্লেখ্য, এই গরম থেকে রেহাই কবে মিলবে তা এখনও স্পষ্ট নয়। বঙ্গে কবে বৃষ্টি নামবে তা নির্দিষ্ট করে জানাতে পারেনি আলিপুর আবহাওয়া দফতর। এই পরিস্থিতিতে স্কুলগুলিতে গরমের ছুটি এগিয়ে নিয়ে আসা হয়েছে। কালবৈশাখী এখনও সেভাবে পায়নি দক্ষিণবঙ্গ। তার মধ্যে গরমের জেরে একের পর এক মৃত্যু হয়েছে মানুষের।

বন্ধ করুন