বাংলা নিউজ > বাংলার মুখ > অন্যান্য জেলা > Dengue death: ষষ্ঠীর দিনে দেগঙ্গায় ডেঙ্গিতে মৃত্যু গৃহবধূর, সচেতনতার বার্তা চিরঞ্জিতের

Dengue death: ষষ্ঠীর দিনে দেগঙ্গায় ডেঙ্গিতে মৃত্যু গৃহবধূর, সচেতনতার বার্তা চিরঞ্জিতের

ডেঙ্গিতে মৃত্যু মহিলার। প্রতীকী ছবি (AP)

জানা গিয়েছে, গত মঙ্গলবার থেকে জ্বরে ভুগছিলেন সুলেখা। এরপরে তাকে বিশ্বনাথপুর গ্রামীণ হাসপাতালে নিয়ে যান পরিবারের সদস্যরা। অবস্থার অবনতি হওয়ায় গতকাল শুক্রবার তাকে বারাসত জেলা হাসপাতালে স্থানান্তর করেন। কিন্তু, সেখানে অবস্থার অবনতি হওয়ায় আজ আরজিকর হাসপাতালে নিয়ে যাওয়ার পথে তার মৃত্যু হয়।

উৎসবের মরশুমে রাজ্যে ভয় ধরাচ্ছে ডেঙ্গির বাড়বাড়ন্ত। ফের ডেঙ্গিতে আক্রান্ত হয়ে মৃত্যু হল এক গৃহবধুর। মৃত গৃহবধূর নাম সুলেখা কর্মকার (৪৬)। তিনি উত্তর ২৪ পরগনার দেগঙ্গার বাসিন্দা। ষষ্ঠীর দিনে গৃহবধূর মৃত্যুতে শোকের ছায়া নেমেছে পরিবারে। বারসতে ডেঙ্গি যেভাবে বেড়ে চলেছে তাতে উদ্বিগ্ন স্বাস্থ্যকর্তারা। পুজোর মরশুমে বারাসতে ডেঙ্গি, ম্যালেরিয়ার বাড়বাড়ন্ত নিয়ে দুর্গাপুজোর উদ্বোধনী অনুষ্ঠান থেকেই সাধারণ মানুষকে সতর্ক করলেন বারাসতের তৃণমূল বিধায়ক তথা অভিনেতা চিরঞ্জিত চক্রবর্তী।

ডেঙ্গিতে মৃত্যু, ডেথ সার্টিফিকেটে উল্লেখ ‘জ্বর’! প্রতিবাদে নার্সিংহোম ভাঙচুর

জানা গিয়েছে, গত মঙ্গলবার থেকে জ্বরে ভুগছিলেন সুলেখা। এরপরে তাকে বিশ্বনাথপুর গ্রামীণ হাসপাতালে নিয়ে যান পরিবারের সদস্যরা। অবস্থার অবনতি হওয়ায় গতকাল শুক্রবার তাকে বারাসত জেলা হাসপাতালে স্থানান্তর করেন। কিন্তু, সেখানে অবস্থার অবনতি হওয়ায় আজ আরজিকর হাসপাতালে নিয়ে যাওয়ার পথে তার মৃত্যু হয়। রাজ্যে প্রতিদিনই নতুন করে ডেঙ্গিতে সংক্রমিত হচ্ছেন বহু মানুষ। কলকাতা এবং উত্তর চব্বিশ পরগণায় ডেঙ্গিয়ে আক্রান্তের সংখ্যা সবচেয়ে বেশি। পরিস্থিতি মোকাবিলায় পুজোর মরশুমে ইতিমধ্যেই স্বাস্থ্যকর্মীদের জন্য বিশেষ নির্দেশিকা দেওয়ার পাশাপাশি পুরকর্মীদেরও ছুটি বাতিল করা হয়েছে। রাজ্যের পুর ও নগরোন্নয়ন মন্ত্রী ফিরহাদ হাকিম ডেঙ্গি মোকাবেলায় সচেতনতার উপর জোর দিয়েছেন।

তৃণমূল বিধায়ক চিরঞ্জিতও মনে করছে এই পরিস্থিতিতে সচেতনতাই হল ডেঙ্গি মোকাবিলায় একমাত্র রাস্তা। বারাসতে একটি পুজোর উদ্বোধনে গিয়ে গতকাল মানুষকে ডেঙ্গি ম্যালেরিয়া নিয়ে সচেতন করেন চিরঞ্জিত চক্রবর্তী। তিনি বলেন, ‘করোনার দাপট এখন কম হয়েছে। তবে ডেঙ্গি বাড়ছে। ম্যালেরিয়াও আছে। তাই খুব সাবধান। বাড়ির আশেপাশে কোথাও জল দেবেন না। এলাকা পরিষ্কার পরিচ্ছন্ন রাখুন।’

বন্ধ করুন