বাংলা নিউজ > বাংলার মুখ > অন্যান্য জেলা > শিশু পাচারে অভিযুক্ত প্রিন্সিপাল গ্রেফতার, বিজেপি সাংসদের সঙ্গে এক মঞ্চে ধৃত!
বিজেপি সাংসদের সঙ্গে ধৃত প্রিন্সিপাল, মন্ত্রীর টুইট করা ছবি (ফাইল ছবি)
বিজেপি সাংসদের সঙ্গে ধৃত প্রিন্সিপাল, মন্ত্রীর টুইট করা ছবি (ফাইল ছবি)

শিশু পাচারে অভিযুক্ত প্রিন্সিপাল গ্রেফতার, বিজেপি সাংসদের সঙ্গে এক মঞ্চে ধৃত!

  • বিজেপি কি এরকম ক্রিমিনালদের আশ্রয় দেয়? প্রশ্ন নারী ও শিশুকল্যাণ মন্ত্রী শশী পাঁজার

শিশু পাচারকাণ্ডে অভিযুক্ত স্কুলের প্রিন্সিপাল। বাঁকুড়ার জওহর নবোদয় বিদ্যালয়ের অধ্যক্ষ কে রাজোরিয়া সহ পাঁচজনকে ইতিমধ্যেই গ্রেফতার করেছে পুলিশ। এদিকে এই ঘটনাকে ঘিরে রাজনৈতিক চাপানউতোরও তুঙ্গে উঠেছে। নারী ও শিশুকল্যাণ মন্ত্রী শশী পাঁজা ইতিমধ্যেই এনিয়ে টুইট করেছেন। তিনি লিখেছেন, ‘জওহর নবোদয় বিদ্যালয়ের প্রিন্সিপালের বিরুদ্ধে শিশু পাচারের অভিযোগ উঠেছে। তার সঙ্গে বিজেপি সাংসদ সুভাষ সরকারের যোগাযোগ। বিজেপি কি এরকম ক্রিমিনালদের আশ্রয় দেয়? ’আসলে ঠিক কী হয়েছিল ঘটনাটা?

 

স্থানীয় সূত্রে খবর, ওই ব্যক্তি আদপে রাজস্থানের বাসিন্দা। স্থানীয় ব্লক তৃণমূল সভাপতি সন্দীপ বাউরি তার বিরুদ্ধে অভিযোগ আনেন। তাঁর দাবি,' স্কুলের পাশেই আমাদের কার্যালয়। আমাদের কর্মীরা দেখেছিলেন চারজন শিশুকে জোর করে একটি মারুতি ভ্যানে তোলা হচ্ছে। প্রিন্সিপালও সেখানে দাঁড়িয়ে রয়েছেন। এরপর আমাদের কর্মীরা ওখানে ছুটে গেলে প্রিন্সিপাল ছুটে পালান। এরপরই ওই শিশুদের উদ্ধার করা হয়।' পুলিশের দাবি, দুই শিশু কন্যাকে জোর করে তাঁর কাছে রেখে দেওয়া সহ একাধিক অভিযোগ রয়েছে প্রিন্সিপালের বিরুদ্ধে। এসবের মধ্যেই সামনে আসে বিজেপি সাংসদের সঙ্গে প্রিন্সিপালের ছবি। এনিয়ে শোরগোল তুঙ্গে। এদিকে শিশু সুরক্ষা কমিশনও গোটা ঘটনার উপর নজর রাখছে। তবে বিজেপি নেতৃত্বের প্রতিক্রিয়া পাওয়া যায়নি।

 

শিশু পাচারকাণ্ডে অভিযুক্ত স্কুলের প্রিন্সিপাল। বাঁকুড়ার জওহর নবোদয় বিদ্যালয়ের অধ্যক্ষ কে রাজোরিয়া সহ পাঁচজনকে ইতিমধ্যেই গ্রেফতার করেছে পুলিশ। এদিকে এই ঘটনাকে ঘিরে রাজনৈতিক চাপানউতোরও তুঙ্গে উঠেছে। নারী ও শিশুকল্যাণ মন্ত্রী শশী পাঁজা ইতিমধ্যেই এনিয়ে টুইট করেছেন। তিনি লিখেছেন, জওহর নবোদয় বিদ্যালয়ের প্রিন্সিপালের বিরুদ্ধে শিশু পাচারের অভিযোগ উঠেছে। তার সঙ্গে বিজেপি সাংসদ সুভাষ সরকারের যোগাযোগ। বিজেপি কি এরকম ক্রিমিনালদের আশ্রয় দেয়। আসলে ঠিক কী হয়েছিল ঘটনাটা।

স্থানীয় সূত্রে খবর, ওই ব্যক্তি আদপে রাজস্থানের বাসিন্দা। স্থানীয় ব্লক তৃণমূল সভাপতি সন্দীপ বাউরি তার বিরুদ্ধে অভিযোগ আনেন। তাঁর দাবি স্কুলের পাশেই আমাদের কার্যালয়। আমাদের কর্মীরা দেখেছিলেন চারজন শিশুকে জোর করে একটি মারুতি ভ্যানে তোলা হচ্ছে। প্রিন্সিপালও সেখানে দাঁড়িয়ে রয়েছেন। এরপর আমাদের কর্মীরা ওখানে ছুটে গেলে প্রিন্সিপাল ছুটে পালান। এরপরই ওই শিশুদের উদ্ধার করা হয়। পুলিশের দাবি দুই শিশু কন্যাকে জোর করে তাঁর কাছে রেখে দেওয়া সহ একাধিক অভিযোগ রয়েছে প্রিন্সিপালের বিরুদ্ধে। এসবের মধ্যেই সামনে আসে বিজেপি সাংসদের সঙ্গে প্রিন্সিপালের ছবি। এনিয়ে শোরগোল তুঙ্গে। এদিকে শিশু সুরক্ষা কমিশনও গোটা ঘটনার উপর নজর রাখছে। তবে বিজেপি নেতৃত্ব এনিয়ে এখনই মুখ খোলেননি।

|#+|

 

বন্ধ করুন