ফাইল ছবি
ফাইল ছবি

নাটকে যবনিকা, শিলিগুড়ির প্রশাসকের দায়িত্ব নিলেন অশোক ভট্টাচার্য

  • চাপের মুখে শনিবার নতুন বিজ্ঞপ্তি জারি করে পুর দফতর। তাতে বাদ দেওয়া হয় তৃণমূল কাউন্সিলরদের নাম। এর পরই প্রশাসনিক বোর্ডের দায়িত্ব নিতে রাজি হন অশোকবাবুরা।

শিলিগুড়ির মুখ্য প্রশাসকের দায়িত্ব গ্রহণ করলেন বিদায়ী মেয়র অশোক ভট্টাচার্য। শুক্র ও শনিবারের নাটকের পর প্রশাসক বোর্ড থেকে তৃণমূল কাউন্সিলরদের নাম বাদ দেওয়ার পরই দায়িত্ব নিয়ে রাজি হন অশোকবাবু-সহ বিদায়ী বাম কাউন্সিলররা। নৈতিক জয় হয়েছে, এই দাবি করে সোমবার প্রশাসনিক বোর্ডের দায়িত্ব নেন তাঁরা। 

করোনার জেরে পুরভোট স্থগিত হয়ে যাওয়ায় একের পর এক পুরসভায় বসাতে হচ্ছে প্রশাসক। ইতিমধ্যে ফিরহাদ হাকিমের কলকাতা পুরসভার মুখ্য প্রশাসক হওয়া নিয়ে বিবাদ আদালত পর্যন্ত পৌঁছেছে। সেই আবহেই শিলিগুড়ির জন্য অশোকবাবুকে প্রধান করে ১২ সদস্যের বোর্ড গঠন করেছিল রাজ্য সরকার। তাতে ছিলেন তৃণমূলের ৫ কাউন্সিলরও।

এতেই বেঁকে বসে বামেরা। তারা বলেন, শিলিগুড়ির প্রশাসনিক বোর্ডে বিরোধী কাউন্সিলরদের সামিল করলে অন্যান্য জায়গাতেও তাই করতে হবে। নইলে শিলিগুড়ি প্রশাসনিক বোর্ড থেকে বাদ দিতে হবে তাদের নাম। চাপের মুখে শনিবার নতুন বিজ্ঞপ্তি জারি করে পুর দফতর। তাতে বাদ দেওয়া হয় তৃণমূল কাউন্সিলরদের নাম। এর পরই প্রশাসনিক বোর্ডের দায়িত্ব নিতে রাজি হন অশোকবাবুরা। 

অশোকবাবু বলেন, ‘বিরোধী কাউন্সিলরদের প্রশাসনিক বোর্ডে রাখা মানে শিলিগুড়ির মানুষের অপমান। সরকারের সিদ্ধান্ত বদল আসলে সাধারণ মানুষেক জয়।’

এদিন দায়িত্ব নিয়ে অশোকবাবু বলেন, ‘প্রশাসনিক বোর্ডের প্রাথমিক লক্ষ্য হবে নাগরিক পরিষেবা জারি রাখা ও করোনা মোকাবিলা।’

 

বন্ধ করুন