বাংলা নিউজ > বাংলার মুখ > অন্যান্য জেলা > Viral Audio clip: ‘টাকা ছাড়া কাজ হয় না’, তৃণমূল নেত্রীর অডিয়ো ক্লিপ ঘিরে তুমুল বিতর্ক

Viral Audio clip: ‘টাকা ছাড়া কাজ হয় না’, তৃণমূল নেত্রীর অডিয়ো ক্লিপ ঘিরে তুমুল বিতর্ক

টাকা ছাড়া কাজ নয়, ভাইরাল অডিয়ো ক্লিপ। (ছবিটি প্রতীকী, সৌজন্যে এএফপি)

১৬ মিনিট ২২ সেকেন্ডের এই অডিয়োতে মিনতিদি নামে ওই মহিলা অপর মহিলাকে বলছেন, ‘জমি থেকে শুরু করে অঙ্গনওয়াড়ি চাকরি বা সরকারি চাকরি সব ক্ষেত্রেই টাকা না দিলে কাজ হয় না।’ ওই মহিলাকে আরও বলতে শোনা যায়, তিনি নিজে হাতে টাকা নেন না।

এসএসসি দুর্নীতির মধ্যেই দুই মহিলার কথোপকথনের অডিয়ো ক্লিপ নিয়ে শোরগোল পড়ে গিয়েছে। যেখানে এক মহিলা অন্য এক মহিলাকে বলছেন, ‘টাকা ছাড়া কাজ হয় না। আর কাজ না হলেই টাকা ফেরত দেওয়া হয়।’ সম্প্রতি এই অডিও ক্লিপ সামনে আসার পরেই তুঙ্গে রাজনৈতিক তরজা। বিরোধীদের দাবি যে মহিলা এ কথা বলেছেন তিনি আসলে একজন তৃণমূল নেত্রী।

অডিয়ো ক্লিপে (সত্যতা বিচার করেনি হিন্দুস্তান টাইমস বাংলা) একজন মহিলা অন্যজনকে ‘মিনতিদি’ বলে সম্বোধন করছেন। ১৬ মিনিট ২২ সেকেন্ডের এই অডিয়োতে মিনতিদি নামে ওই মহিলা অপর মহিলাকে বলছেন, ‘জমি থেকে শুরু করে অঙ্গনওয়াড়ি চাকরি বা সরকারি চাকরি সব ক্ষেত্রেই টাকা না দিলে কাজ হয় না।’ ওই মহিলাকে আরও বলতে শোনা যায়, তিনি নিজে হাতে টাকা নেন না। তবে কাজ না হলে সেই টাকা ফেরত দেওয়া হবে আগামী ফেব্রুয়ারির মধ্যে। শুধু তাই নয়, এই অডিয়ো ক্লিপে মহিলাকে আরও বলতে শোনা যায়, ‘যারা কাজ করার জন্য টাকা নিয়েছেন তাদের কথা আমি চন্দ্রিমাদিকে বলেছি। চন্দ্রিমাদি তাকে দ্রুত টাকা ফেরত দিতে বলেছেন।’

এই নিয়ে শুরু হয়েছে রাজনৈতিক তরজা। বিজেপির দাবি, যাকে মিনতিদি বলে সম্বোধন করা হচ্ছে আসলে তিনি হলেন পশ্চিম বর্ধমান জেলা পরিষদের কর্মাধ্যক্ষ (শিশু ও নারীকল্যাণ) তথা জেলা মহিলা তৃণমূল সভানেত্রী মিনতি হাজরা। অন্যদিকে, যাকে চন্দ্রিমাদি বলা হচ্ছে তিনি রাজের মন্ত্রী চন্দ্রিমা ভট্টাচার্য হতে পারেন। এ বিষয়ে পশ্চিম বর্ধমানের সিপিএম নেতা পার্থ মুখোপাধ্যায়ের দাবি, রাজ্যে চাকরি পেতে গেলে যে টাকা দিতে হয় এই অডিয়ো হল তার প্রমাণ।

যদিও এই অভিযোগ অস্বীকার করেছেন মিনতি। তিনি বলেন, ‘আমার গলা নকল করে এই ক্লিপ ছড়ানো হয়েছে।’ তার আরও অভিযোগ, দুর্গাপুরের এক মহিলা এই ষড়যন্ত্র করেছেন। অন্যদিকে, চন্দ্রিমা ভট্টাচার্য বলেন, ‘আমি কিছুই জানি না।আমার কিছু বলার নেই।’

বন্ধ করুন