বাংলা নিউজ > বাংলার মুখ > অন্যান্য জেলা > বছর শেষে চমক, জিতেন্দ্র তিওয়ারির প্রশংসায় বাবুল সুপ্রিয়
জিতেন্দ্র তিওয়ারি ও বাবুল সুপ্রিয়। ফাইল ছবি
জিতেন্দ্র তিওয়ারি ও বাবুল সুপ্রিয়। ফাইল ছবি

বছর শেষে চমক, জিতেন্দ্র তিওয়ারির প্রশংসায় বাবুল সুপ্রিয়

  • এবার বাবুল সুপ্রিয়র মুখে শোনা গেল জিতেন্দ্র তিওয়ারির প্রশংসা। কয়েকদিন আগে পর্যন্ত তাঁকে দলে নেওয়া নিয়ে আপত্তি করেছিলেন এই কেন্দ্রীয় মন্ত্রী।

প্রাপ্তি–অপ্রাপ্তির বছরের শেষে জিতেন্দ্র তিওয়ারির প্রাপ্তির ঝুলি খানিকটা ভরল। কারণ এবার বাবুল সুপ্রিয়র মুখে শোনা গেল জিতেন্দ্র তিওয়ারির প্রশংসা। কয়েকদিন আগে পর্যন্ত তাঁকে দলে নেওয়া নিয়ে আপত্তি করেছিলেন এই কেন্দ্রীয় মন্ত্রী। কিন্তু গত ১০ বছরে রাজ্যে কোনও উন্নয়ন হয়নি, এই মর্মে বিজেপির তোলা অভিযোগকে দেরিতে হলেও সমর্থন করেছেন আসানসোলের প্রাক্তন মেয়র তথা তৃণমূল বিধায়ক জিতেন্দ্র। সে কথা উল্লেখ করেই তাঁর প্রশংসা করলেন কেন্দ্রীয় মন্ত্রী বাবুল সুপ্রিয়। যা নিয়ে চর্চা শুরু হয়েছে রাজ্য–রাজনীতির অলিন্দে।

বছরের শেষ দিন পশ্চিম বর্ধমানের অন্ডালে বিজেপির ‘‌আর নয় অন্যায়’‌ কর্মসূচিতে যোগ দেন আসানসোলের বিজেপি সাংসদ বাবুল সুপ্রিয়। এই কর্মসূচি উপলক্ষ্যে মিছিল শেষে খাঁন্দরা বটতলা বাসস্ট্যান্ডে সভা হয়। সেখানে বক্তব্য রাখতে গিয়ে বাবুল উন্নয়নে নিয়ে রাজ্য সরকারের বিরুদ্ধে আক্রমণ করেন। পরে তিনি সংবাদমাধ্যমে বলেন, ‘‌১০ বছরের তৃণমূল আমলে এলাকার কোনও উন্নয়ন হয়নি। উন্নয়ন হয়েছে শাসকদলের নেতাদের জীবনযাপনে। আসানসোল এলাকায় কেন্দ্রীয় সরকারের অনেক প্রকল্পের কাজ করতে দেয়নি শাসকদল। আমরা বললে বলবেন, মিথ্যা বলছি। কিন্তু দেরিতে হলেও সত্যি কথাটা স্বীকার করে নিয়েছেন আসানসোলের প্রাক্তন মেয়র জিতেন্দ্র তিওয়ারি। তাঁর কথাতেই প্রমাণ হয়েছে, রাজনৈতিক কারণেই আসানসোল এলাকায় উন্নতি করতে দেয়নি তৃণমূল কংগ্রেস সরকার।’‌

এদিন শাসকদলকে কটাক্ষ করে তাঁর মন্তব্য, ‘‌অনেক শখ করে আলিপুর সংশোধনাগার নীল–সাদা রং করেছে সরকার। ভোটের পর ওখানেই থাকবে সবাই। ওটাই তখন তৃণমূলের পার্টি অফিস হবে।’‌ খাঁন্দরায় দলীয় কর্মসূচিতে আসার পথে অন্য ভূমিকায় দেখা গেল গায়ক বাবুলকে। সবুজ সমিতির মাঠে কচিকাঁচাদের ক্রিকেট প্রশিক্ষণ চলছিল। তা দেখেই গাড়ি থেকে নেমে সোজা মাঠে গিয়ে খুদে ক্রিকেটারদের সঙ্গে বেশ কিছুক্ষণ সময় কাটান তিনি।

বন্ধ করুন