বাংলা নিউজ > বাংলার মুখ > অন্যান্য জেলা > ‘অন্য কোনও দলে যাচ্ছি না’, ঘণ্টাখানেকের মধ্যে সেই লেখাকে ‘আলবিদা’ বাবুলের
বাবুল সুপ্রিয়। (ফাইল ছবি, সৌজন্য এএনআই)
বাবুল সুপ্রিয়। (ফাইল ছবি, সৌজন্য এএনআই)

‘অন্য কোনও দলে যাচ্ছি না’, ঘণ্টাখানেকের মধ্যে সেই লেখাকে ‘আলবিদা’ বাবুলের

  • 'দিল্লির দৃষ্টি আকর্ষণের চেষ্টা’, নাম না করে বাবুলকে কটাক্ষ কুণাল ঘোষের।

বারবেলায় জানিয়েছিলেন ‘অন্য কোনও দলে যাচ্ছি না।’ কিন্তু ঘণ্টাখানেকের মধ্যেই ফেসবুক পোস্টের সেই অংশ গায়েব হয়ে গেল। তারপরই প্রশ্ন উঠেছে, তাহলে কি অন্য কোনও দলেই যাচ্ছেন বাবুল সুুপ্রিয়? তাঁর গন্তব্য কি তৃণমূল কংগ্রেসই?

শনিবার দুপুরে ‘আলবিদা’ জানিয়ে ফেসবুকে পোস্টের পর থেকেই স্পষ্ট হয়ে গিয়েছিল, বিজেপি ছাড়ছেন প্রাক্তন কেন্দ্রীয় মন্ত্রী। স্বভাবতই প্রশ্ন উঠতে শুরু করে, তাহলে কি তৃণমূলে যাচ্ছেন? সেই প্রশ্নের উত্তর নিজের ফেসবুক পোস্টেই দিয়েছিলেন বাবুল। লিখেছিলেন, ‘অন্য কোনও দলে যাচ্ছি না। তৃণমূল, কংগ্রেস, সিপিআইএম, কোথাও নয়। একেবারে নিশ্চিতভাবে বলছি। কেউ আমায় ডাকেনি, আমিও কোথাও যাচ্ছি না। আমি বরাবর একপক্ষের সমর্থক। চিরকাল মোহনবাগানকেই সমর্থন করে এসেছি। বাংলায় একমাত্র বিজেপিই করেছি।’

কিন্ত ঘণ্টাখানেক পর সেই লেখা উধাও হয়ে যায়। ততক্ষণে এডিট করে বাবুল জানিয়ে দেন, সাংসদপদ ছেড়ে দিচ্ছেন। সেই ‘অন্য কোনও দলে যাচ্ছি না' অংশটি আরও খুঁজে পাওয়া যায়নি বাবুলের পোস্টে। তার জেরে স্বভাবতই গুঞ্জন শুরু হয়েছে, এক ঘণ্টায় কী এমন হল যে ‘অন্য কোনও দলে যাচ্ছি না'-কেই ‘আলবিদা’ জানিয়ে দিলেন বাবুল?

যদিও বাবুলের সেই ‘আলবিদা’ পর্বকে পাত্তা দিতে নারাজ তৃণমূলের রাজ্য  সম্পাদক কুণাল ঘোষ। টুইটারে বাবুল-পর্ব নিয়ে নাম না করে কুণাল লেখেন, ‘যদি কেউ রাজনীতি ছাড়ার কথা বলেন, তাহলে আগে সাংসদ পদ ছাড়ুন। নাহলে বলব নাটক। মন্ত্রিত্ব হারিয়ে দলে কোণঠাসা হয়ে হতাশার কারণে প্রচারে ভেসে থেকে দিল্লির দৃষ্টি আকর্ষণের চেষ্টা।’

বন্ধ করুন