ইলিয়াস শিকারি
ইলিয়াস শিকারি

কেরল থেকে ডাকাতি করে পালানোর সময় বসিরহাটে গ্রেফতার বাংলাদেশি ডাকাত

  • গত বছর অগাস্টে একটি মলয়লম সংবাদপত্রের সাংবাদিকের বাড়িতে হানা দেয় ইলিয়াস ও তার দলবল। বিবেক চন্দ্রম নামে ওই সাংবাদিকের মাথায় বন্দুক ঠেকিয়ে ২০ লক্ষ টাকা লুঠ করে সে।

কেরলে ডাকাতি করে পালানোর সময় বহিরহাটের ঘোজাডাঙা সীমান্তে গ্রেফতার হল বাংলাদেশি ডাকাত। ধৃতের নাম ইলিয়াস শিকারি। কেরলে আগ্নেয়াস্ত্র দেখিয়ে এক সাংবাদিকের কাছ থেকে ২০ লক্ষ টাকা ছিনতাইয়ের অভিযোগ রয়েছে তার বিরুদ্ধে। বাংলাদেশের খুলনা জেলার বাসিন্দা সে।

পুলিশ সূত্রের খবর, বাংলাদেশেও বিভিন্ন জায়গায় ইলিয়াসের বিরুদ্ধে প্রচুর অপরাধের অভিযোগ রয়েছে। গ্রেফতারির হাত থেকে বাঁচতে ভারতে পালিয়ে আসে সে। কিন্তু এখানেও জড়িয়ে পড়ে অপরাধে। পশ্চিমবঙ্গে কিছু দিন থেকে কেরল পালায় সে। সেখানেও তৈরি করে ডাকাতদল।

গত বছর অগাস্টে একটি মলয়লম সংবাদপত্রের সাংবাদিকের বাড়িতে হানা দেয় ইলিয়াস ও তার দলবল। বিবেক চন্দ্রম নামে ওই সাংবাদিকের মাথায় বন্দুক ঠেকিয়ে ২০ লক্ষ টাকা লুঠ করে সে। সেই ঘটনার তদন্তে নামে কেরল পুলিশ। ততদিনে কেরল ছেড়ে অন্যত্র গা ঢাকা দেয় ইলিয়াস। তার নামে জারি হয় লুক আউট নোটিশ।

সম্প্রতি কেরল পুলিশ জানতে পারে, ঘোজাডাঙা দিয়ে বাংলাদেশে ঢোকার চেষ্টা করছে ইলিয়াস। সেখবর বসিরহাট পুলিশকে দেয় তারা। বসিরহাট পুলিশ গোপন তথ্যের ভিত্তিতে সীমান্তে নজরদারি বাড়ায়। তাতেই মেলে সাফল্য। শনিবার ধরা পড়ে কুখ্যাত এই দুষ্কৃতী। ইলিয়াসকে গ্রেফতার করে কেরল পুলিশের হাতে তুলে দিয়েছে বসিরহাট পুলিশ। তাঁকে ট্রানজিট রিম্যান্ডে কেরল নিয়ে যাওয়ার তোড়জোড় চলছে। তবে লুঠের টাকা উদ্ধার হয়নি।



বন্ধ করুন