বাংলা নিউজ > বাংলার মুখ > অন্যান্য জেলা > ঋণ দিতে প্রাথমিক শিক্ষকের কাছে টেট পাশের নথি চাইল ব্যাঙ্ক
প্রতীকি ছবি

ঋণ দিতে প্রাথমিক শিক্ষকের কাছে টেট পাশের নথি চাইল ব্যাঙ্ক

  • এব্যাপারে অবশ্য রাখঢাক করেই শাখার ম্যানেজার সুশান্তকুমার মারাক বলেন, ‘আদালতের নির্দেশে ইতিমধ্যে ২৬৯ জন প্রাথমিক শিক্ষককে বরখাস্ত করা হয়েছে। তাদের মধ্যে কেউ পুরনো নথি পেশ করে ঋণ নিলে আমাদের বোঝার কোনও উপায় নেই।

প্রাথমিক শিক্ষককে ঋণ দিতে টেট উত্তীর্ণ হওয়ার প্রমাণ চাইল ব্যাঙ্ক। একের পর এক শিক্ষক দুর্নীতিতে আদালতের নির্দেশে কয়েক হাজার শিক্ষক ও শিক্ষাকর্মী বরখাস্ত হওয়ার পর রাষ্ট্রায়ত্ত ব্যাঙ্কের এই পদক্ষেপে শোরগোল শুরু হয়েছে। ব্যাঙ্কের তরফে জানানো হয়েছে ওপর মহলের নির্দেশ না থাকলেও নিজেদের বিনিয়োগের নিরাপত্তা নিশ্চিত করতে এই পদক্ষেপ করেছে তারা।

জানা গিয়েছে আলিপুরদুয়ারের পারোকাটা গ্রাম পঞ্চায়েতের বাসিন্দা এক প্রাথমিক শিক্ষক সম্প্রতি উত্তরবঙ্গে ক্ষেত্রীয় গ্রামীণ বিকাশ ব্যাঙ্কের সালসালাবাড়ি শাখায় ঋণ নিতে যান। তখনই ব্যাঙ্কের আধিকারিক তাঁকে টেট পাশের নথি পেশ করতে বলেন। এর পরই বিষয়টি প্রকাশ্যে আসে। শিক্ষকদের একাংশের দাবি, এই নথি চাওয়া তাঁদের জন্য অপমানজনক।

এব্যাপারে অবশ্য রাখঢাক করেই শাখার ম্যানেজার সুশান্তকুমার মারাক বলেন, ‘আদালতের নির্দেশে ইতিমধ্যে ২৬৯ জন প্রাথমিক শিক্ষককে বরখাস্ত করা হয়েছে। তাদের মধ্যে কেউ পুরনো নথি পেশ করে ঋণ নিলে আমাদের বোঝার কোনও উপায় নেই। তাই নিজেদের বিনিয়োগের নিরাপত্তা নিশ্চিত করতে আমরা টেট পাশের নথি চেয়েছি। এর মধ্যে অবমাননাকর কিছু নেই। পরে গোলমাল হলে আমাদেরই জবাবদিহি করতে হবে। সাধারণ মানুষের গচ্ছিত টাকা চোট যেতে পারে। তবে এব্যাপারে হেড অফিস থেকে কোনও নির্দেশ আমাদের কাছে আসেনি।’

জেলা বিদ্যালয় পরিদর্শক (প্রাথমিক) সুজিত সরকার বলেন, ‘ব্যাঙ্ককে বলব তারা শিক্ষকদের সামাজিক সম্মানের দিকটিও যেন বিবেচনা করেন।’

 

বন্ধ করুন