বাংলা নিউজ > বাংলার মুখ > অন্যান্য জেলা > DA নিয়ে প্রশ্ন তোলার ২৪ ঘণ্টার মধ্যে তৃণমূল নেতার নির্দেশে শো-কজ প্রধান শিক্ষককে

DA নিয়ে প্রশ্ন তোলার ২৪ ঘণ্টার মধ্যে তৃণমূল নেতার নির্দেশে শো-কজ প্রধান শিক্ষককে

DA নিয়ে প্রশ্ন তুলে শো কজের শিকার প্রধান শিক্ষক সাক্ষীগোপাল মণ্ডল।

শো - কজ নোটিশ পেয়ে সাক্ষীগোপালবাবু বলেন, আমি আশ্চর্য নই। আমি যথার্থ প্রশ্নই করেছিলাম। আমাদের DA দেওয়ার দায়িত্ব রাজ্য সরকারের। আমি বিরোধী সংগঠন করি। তাই আমাকে শো কজ করা হয়েছে।

দিদির দূতকে বকেয়া DA নিয়ে প্রশ্ন করায় শো - কজের মুখে পড়লেন প্রাথমিক স্কুলের প্রধান শিক্ষক। প্রশ্ন করার ২৪ ঘণ্টার মধ্যে তাঁর কাছে পৌঁছে গেল শো - কজের নোটিশ। তবে DA নিয়ে প্রশ্ন করায় নয়, নানা রকম ভুতুড়ে কারণ দেখিয়ে তাঁকে শো কজ করেছে জেলা প্রাথমিক শিক্ষা সংসদ। এই শো কজের বিরোধিতায় ইতিমধ্যে পথে নেমেছে বিজেপি।

শুক্রবার দুপুরে বাঁকুড়ার গঙ্গাজলঘাঁটি ব্লকের জেনাডিহি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক সাক্ষীগোপাল মণ্ডলের কাছে পৌঁছয় শো কজের চিঠি। তাতে অভিযোগ করা হয়েছে, মিড – ডে মিলের বাসন ঠিক মতো ব্যবহার করছেন না তিনি। তাঁর স্কুলে ছাত্র সংখ্যা কমছে, স্কুলে অনিয়মিত আসেন তিনি। বৃহস্পতিবার দিদির দূত কর্মসূচিতে অংশগ্রহণ করে এই স্কুলে গিয়েছিলেন দক্ষিণ কলকাতার সাংসদ মালা রায়। সেখানে তাঁকে সাক্ষীগোপালবাবু প্রশ্ন করেন, অন্য রাজ্যের কর্মচারীদের তুলনায় মাত্র ৩ শতাংশ ডিএ পাচ্ছেন পশ্চিমবঙ্গের রাজ্য সরকারি কর্মীরা। এই নিয়ে সরকার কী ভাবছে? এই প্রশ্ন শুনে ক্যামেরার সামনেই প্রধান শিক্ষককে হুমকি দিয়েছিলেন মালা রায়। বলেন, এসব প্রশ্ন করলে আপনার বিরুদ্ধে ব্যবস্থা গ্রহণ করতে হবে। এর পর সংবাদমাধ্যমের ক্যামেরায় ধরা পড়ে, ব্লক তৃণমূলের সভাপতি নিমাই মাজি কাউকে ফোন করে বলছেন, প্রধান শিক্ষক সাক্ষীগোপালবাবুকে শো - কজ করতে হবে। তার ২৪ ঘণ্টার মধ্যে পৌঁছে গেল শো কজের নোটিশ।

শো - কজ নোটিশ পেয়ে সাক্ষীগোপালবাবু বলেন, আমি আশ্চর্য নই। আমি যথার্থ প্রশ্নই করেছিলাম। আমাদের DA দেওয়ার দায়িত্ব রাজ্য সরকারের। আমি বিরোধী সংগঠন করি। তাই আমাকে শো কজ করা হয়েছে।

বলে রাখি, বৃহস্পতিবারই কার্টুনকাণ্ডের মামলা থেকে অধ্যাপক অম্বিকেশ মহাপাত্রকে নিষ্কৃতি দিয়েছে আদালত। এর পর অধ্যাপক মহাপাত্র বলেন, ‘এই ঘটনা থেকে রাজ্যের শাসক শিক্ষা নেবে বলে মনে হয় না।’

 

বন্ধ করুন