প্রতীকি ছবি
প্রতীকি ছবি

ভিড় এড়াতে ৭ দিন বন্ধ বারাসত বড়বাজার

  • ব্যবসায়ীরা জানাচ্ছেন, বার বার সোশ্যাল ডিসট্যান্সিং বজায় রাখতে বললেও ক্রেতাদের মধ্যে কোনও সচেতনতা নেই।

করোনার সংক্রমণ রুখতে গোটা দেশজুড়ে লকডাউন। রাজ্যের বেশ কিছু জায়গায় রেড জোন হিসেবে চিহ্নিত করা হয়েছে। রেড জোনের আওতাভুক্ত হওয়া সত্ত্বেও এখনও লকডাউন মানছেন না অনেকেই। এবার জমায়েত এড়াতে বন্ধ করে দেওয়া হল বারাসত স্টেশন লাগোয়া বড়বাজার। সোমবার থেকে সাতদিন বন্ধ থাকবে বড়বাজার, এমনটাই জানিয়েছে বারাসত ব্যবসায়ী সমিতি। উত্তর ২৪ পরগনায় করোনা আক্রান্তের সংখ্যা রোজই বাড়ছে। সংক্রমণ ছড়িয়ে পড়া এড়াতে এই সিদ্ধান্ত বলে জানিয়েছেন ব্যবসায়ীরা।

জানা গিয়েছে, শুক্রবার বিকেল থেকেই বারাসতে পুলিশ টহল দিতে শুরু করেছে। অন্যান্য জায়গার ভিড় কিছুটা আয়ত্তে এলেও বারাসাতের বড়বাজারের অবস্থা একই। এখানে খুচরো ও পাইকারি দোকান থাকায় ভিড় অনেকটাই বেশি। এমনকি বাজার ফাঁকা করতে স্বয়ং পুলিশ সুপারও নজরদারি করতে যান। কিন্তু তিনি এলাকা ছাড়তেই ফের একই অবস্থা।

বারাসাতের উপ-পুরপ্রধান অশনি মুখোপাধ্যায় জানিয়েছেন, ভিড়ের জন্য ব্যবসায়ীরাও করোনায় আক্রান্ত হতে পারেন। তাঁদের পরিবারে সংক্রমণ ছড়াতে পারে। তিনি আরও জানিয়েছেন, পুলিশ প্রশাসনের বারবার সতর্ক করা সত্ত্বেও মানুষের মধ্যে কোনও সচেতনতা নেই।


বড়বাজার ব্যবসায়ী সমিতির সভাপতি জগন্নাথ পাল জানিয়েছেন, ‘বাজারের ভিড় দেখে কার্যত স্পষ্ট মানুষ খাদ্য মজুত করে রাখছে। এমনকি বাইরে থেকেও লোক বাজারে গাড়ি নিয়ে আসছে। ফলে সংক্রমণের আশঙ্কা রয়েই যাচ্ছে।‘ তিনি আরও বলেন, ‘সর্বোপরি লকডাউন মানার জন্য রয়েছে প্রশাসনিক চাপ। তাই ব্যবসায়ীরা এই জমায়েত এড়াতেই আগামী সাত দিন বড়বাজার বন্ধ রাখার সিদ্ধান্ত নিয়েছেন।‘



বন্ধ করুন