বাংলা নিউজ > বাংলার মুখ > অন্যান্য জেলা > ফেসবুকের প্রেম থেকে বারুইপুরের নাবালিকা পাচার, হরিয়ানা থেকে উদ্ধার পুলিশের
গ্রেফতার করা হয় নারসি নামে এক ব্যক্তিকে।

ফেসবুকের প্রেম থেকে বারুইপুরের নাবালিকা পাচার, হরিয়ানা থেকে উদ্ধার পুলিশের

  • এই অভিযোগ পেয়েই পুলিশ তদন্তে নামে। আধুনিক প্রযুক্তির সাহায্যে তদন্ত শুরু করা হয়। সেখান থেকেই পুলিশ জানতে পারে অভিযুক্ত ব্যক্তি হরিয়ানার একটি প্রত্যন্ত গ্রামে নাবালিকাকে লুকিয়ে রেখেছে। ১৮ মে রাজ্য পুলিশের পাঁচজনের এক বিশেষ টিম হরিয়ানার উদ্দেশে রওনা দেয়।

নাবালিকাকে প্রেমের জালে ফাঁসিয়ে পাচার করার ছক কষা হয়েছিল বিদেশে। কিন্তু তা বানচাল করে দিল পুলিশ। হরিয়ানা থেকে বারুইপুরের এক নাবালিকাকে অক্ষত অবস্থায় উদ্ধার করল পুলিশ। এই ঘটনায় শোরগোল পড়ে গিয়েছে। বারুইপুর পুলিশের তৎপরতায় বেঁচে গেল নাবালিকা ছাত্রীটি। অভিযুক্ত ব্যক্তিতে গ্রেফতার করা হয়েছে।

ঠিক কী ঘটেছিল বারুইপুরে?‌ স্থানীয় সূত্রে খবর, বারুইপুরের অষ্টম শ্রেণির এই নাবালিকা ছাত্রীর সঙ্গে হরিয়ানার এক ব্যক্তির ফেসবুকে বন্ধুত্ব হয়। তারপর ধীরে ধীরে ওই ব্যক্তির সঙ্গে কথোপকথন চলে রোজ। সেখান থেকেই আদানপ্রদান হয় ফোন নম্বরের। সেখান থেকে জমে ওঠে প্রেম। কিন্তু ব্যক্তিটি প্রেমের অভিনয় করে যায়।

তারপর কী ঘটে সেখানে?‌ পুলিশ সূত্রে খবর, ওই ব্যক্তি মেয়েটিকে প্রেমের ফাঁদে ফেলে। তারপর গত ১৯ এপ্রিল তাঁকে হরিয়ানায় নিয়ে যায়। তাঁর পরিবার বিস্তর খোঁজাখুঁজি করেও সন্ধান পায়নি। তখন পুলিশের দ্বারস্থ হন পরিবারের সদস্যরা। ২২ এপ্রিল ওই নাবালিকার বাবা–মা পুলিশ ফাঁড়িতে নিখোঁজ হয়েছে মেয়ে বলে অভিযোগ দায়ের করেন।

কেমন করে উদ্ধার হল নাবালিকা?‌ এই অভিযোগ পেয়েই পুলিশ তদন্তে নামে। আধুনিক প্রযুক্তির সাহায্যে তদন্ত শুরু করা হয়। সেখান থেকেই পুলিশ জানতে পারে অভিযুক্ত ব্যক্তি হরিয়ানার একটি প্রত্যন্ত গ্রামে নাবালিকাকে লুকিয়ে রেখেছে। ১৮ মে রাজ্য পুলিশের পাঁচজনের এক বিশেষ টিম হরিয়ানার উদ্দেশে রওনা দেয়। ২১ মে ভোরে হরিয়ানা রাজ্যের সিরসা জেলার নাথুসারি থানার অন্তর্গত জোরিয়ান গ্রামে পৌঁছয় পুলিশ। সেখানে অভিযান চালিয়ে ওই নাবালিকাকে একটি বন্ধ ঘর থেকে উদ্ধার করা হয়। গ্রেফতার করা হয় নারসি নামে এক ব্যক্তিকে। আগামী সোমবার রাজ্যে ফিরবে বারুইপুর পুলিশ।

বন্ধ করুন